১৩ অগ্রহায়ণ  ১৪২৮  মঙ্গলবার ৩০ নভেম্বর ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

স্থায়ীকরণের দাবিতে কর্মী বিক্ষোভে উত্তাল গৌড়বঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয়, ঘেরাও ডেপুটি কন্ট্রোলার

Published by: Tiyasha Sarkar |    Posted: February 4, 2020 1:02 pm|    Updated: February 4, 2020 1:02 pm

Temporary staff's of University of Gour Banga started protest

বাবুল হক, মালদহ: স্থায়ীকরণের দাবিতে ফের উত্তাল উত্তরবঙ্গের গৌড়বঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয়। রাতভর ডেপুটি কন্ট্রোলার বিনয়কৃষ্ণ হালদারকে ঘেরাও করে বিক্ষোভ দেখালেন অস্থায়ী কর্মীরা। যার জেরে মঙ্গলবার সকালে কার্যত অচলাবস্থা তৈরি হয়েছে বিশ্ববিদ্যালয়ে। বন্ধের মুখে পঠনপাঠন। দাবি না মানা পর্যন্ত বিক্ষোভ জারি থাকবে বলেই জানিয়েছেন আন্দোলনকারীরা।

জানা গিয়েছে, প্রায় একমাস আগে থেকে স্থায়ীকরণের দাবিতে কর্মবিরতিতে শামিল হয়েছিলেন গৌড়বঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয়ের অস্থায়ী কর্মীরা। সেই সময় তাঁদের পাশে দাঁড়িয়েছিলেন স্থায়ী কর্মীরাও। যার ফলে গত মাসে অচলাবস্থা তৈরি হয়েছিল বিশ্ববিদ্যালয়ে। সেই সময় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য স্বাগত সেন রাজ‍্য সরকারের উচ্চশিক্ষা দপ্তরে পদত্যাগ পত্র জমা দেন। সেই সময় দীর্ঘদিন রেজিস্ট্রার বিশ্ববিদ্যালয়ে না আসায় কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে ক্ষোভ বাড়তে থাকে অস্থায়ী কর্মীদের মধ্যে। অবশেষে রেজিস্ট্রার বিশ্ববিদ্যালয়ে গিয়ে অস্থায়ী কর্মীদের সঙ্গে কথা বলেন। কিছু দাবি মেনে নেওয়ার আশ্বাসও দেন। এরপর অবস্থান তুলে নেন বিক্ষোভকারীরা।

[আরও পড়ুন: ‘ঝাঁটা মেরে গ্রাম থেকে বের করে দেব’, বিজেপি কর্মীদের কড়া হুঁশিয়ারি তৃণমূল নেতার]

কিন্তু তারপর নির্ধারিত সময় পেরিয়ে গেলেও মানা হয়নি অস্থায়ী কর্মীদের দাবি। এই অভিযোগ তুলে সোমবার বিশ্ববিদ্যালয় চত্বরে ফের আন্দোলন শুরু করেন অস্থায়ী কর্মীরা। ঝাড়ু হাতে শ্লোগান দিতে দিতে বিশ্ববিদ্যালয় চত্বর পরিক্রমা করে কন্ট্রোলারের ঘরের সামনে যান তাঁরা। সেখানেই বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেন। বিকেল থেকেই ঘেরাও করে রাখা হয় ডেপুটি কন্ট্রোলারকে। সূত্রের খবর, এখনও বিশ্ববিদ্যালয়ে আটকে তিনি। আন্দোলনকারীদের দাবি, এগজিকিউটিভ কাউন্সিল অস্থায়ী কর্মীদেরও রোপা ২০১৯ অনুযায়ী বেতন প্রদানের কথা জানিয়েছে, এমনটাই জানিয়েছিলেন রেজিস্ট্রার৷ সাফাইকর্মীদের গ্রুপ ডি কর্মী হিসাবে বিবেচনা করা হবে বলেও আশ্বাস দিয়েছিলেন তিনি৷ কিন্তু পরবর্তীতে রেজিস্ট্রার জানান, সরকারি নিয়ম অনুযায়ী ওই কর্মীদের গ্রুপ ডি কর্মী হিসাবে বিবেচনা করা যাবে না৷ তাঁর জেরেই এই আন্দোলন।

[আরও পড়ুন: করোনা আতঙ্কে সুন্দরবন থেকে কাঁকড়া আমদানি বন্ধ করল চিন, কয়েক কোটি টাকার ক্ষতি]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে