BREAKING NEWS

২ আশ্বিন  ১৪২৭  শনিবার ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

জলযোগে গোলযোগ, বাংলার গর্ব মমতা কর্মসূচি ঘিরে প্রকাশ্যে শাসকদলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব

Published by: Paramita Paul |    Posted: March 12, 2020 9:01 pm|    Updated: March 12, 2020 9:01 pm

An Images

সৌরভ মাজি, বর্ধমান: বাংলার গর্ব মমতা কর্মসূচির অঙ্গ হিসেবে বৃহস্পতিবার বর্ধমান-১ ব্লক তৃণমূল কংগ্রেসের একাংশ জলযোগ কর্মসূচি পালন করে। পূর্ব বর্ধমান জেলা পরিষদের সদস্য নুরুল হাসানের নেতৃত্বে এই কর্মসূচি পালন করা হয়। যা নিয়ে বিতর্কের সৃষ্টি হয়েছে। স্থানীয় বর্ধমান উত্তর কেন্দ্রের তৃণমূল বিধায়ক নিশীথ মালিক আবার ওই কর্মসূচিকে অবৈধ বলে দাবি করেছেন। পাল্টা বিধায়কের বিরুদ্ধেও অভিযোগ তুলেছেন এদিনের কর্মসূচি পালনকারী নেতৃবৃন্দ। এই ব্লকে ফের গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব বাংলার গর্ব মমতা কর্মসূচিকে কেন্দ্র করে প্রকাশ্যে এসেছে।

এদিন বিজয়রামের একটি অনুষ্ঠান বাড়িতে জলযোগ কর্মসূচির আয়োজন করা হয়। নুরুল হাসান ছাড়াও সেখানে ছিলেন দলের রায়ান-১ অঞ্চলের নেতা শেখ শুকুর আলি, ব্লকের অন্যতম নেতা অনুপকুমার মণ্ডল, লালমোহন শেখ, জেলা যুব নেতা শিবশঙ্কর ঘোষ, ব্লকের মহিলা নেত্রী তথা পঞ্চায়েত সদস্য সইফুন্নিসা বেগম, সুতপা রাজমল্য, পঞ্চায়েত সদস্য ভানু মাহিলি, সিরাজুন্নেসা খাতুন প্রমুখ। বুধবারই বিধায়ক নিশীথ মালিক বর্ধমান-২ ব্লকের হাটগোবিন্দপুরে তৃণমূল কার্যালয়ে জলযোগ কর্মসূচি পালন করেছিলেন। রাজ্য নেতৃত্বের তরফে বাংলার গর্ব মমতা কর্মসূচিতে বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমের প্রতিনিধিদের সংবর্ধনা জ্ঞাপন ও তৃণমূলের কর্মকাণ্ডের বিষয়ে আলাপচারিতার বিষয়ে জলযোগ কর্মসূচি পালনের নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু আলাদাভাবে এই কর্মসূচি পালন ঘিরে বিতর্ক উঠেছে।

[আরও পড়ুন : পরীক্ষাকেন্দ্রে মোবাইল-সহ ধরা পড়ল দুই উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষার্থী, বাতিল পরীক্ষা]

নুরুল হাসান বলেন, “বিধায়ক বর্ধমান-২ ব্লকে ওই কর্মসূচি পালন করেছেন আমাদের ব্লকের কয়েকজন নেতাকে নিয়ে। সেখানে আমাদের ডাকা হয়নি। তাই আমাদের ব্লকেও আমরা বাংলার গর্ব মমতা কর্মসূচিতে জলযোগের আয়োজন করেছি। দলের শীর্ষ নেতৃত্বের নির্দেশেই এই কর্মসূচি নেওয়া হয়েছে।” যদিও বিধায়ক নিশীথ মালিক বলেছেন, “এদিন যে কর্মসূচি বিজয়রামে করা হয়েছে তা দল বিরোধী কাজ। বিধায়করাই এই কর্মসূচি করবেন বলে দলের নির্দেশ রয়েছে। বেআইনিভাবে কেউ কেউ তা করেছে। শীর্ষ নেতৃত্ব ওদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে বলব আমরা।” পাল্টা নুরুল হাসান বলেছেন, “বিধায়ক যে জলযোগ কর্মসূচি করেছিলেন সেখানে প্রথম সারির অধিকাংশ সংবাদপত্র ও চ্যানেলকেই আমন্ত্রণ করেননি। উনি সংবাদ মাধ্যমকেও সম্মান দিচ্ছেন না। দলের নেতা-কর্মীদেরও অসম্মান করছেন।” তিনি আরও জানিয়েছে, বাংলার কর্ম মমতা কর্মসূচিতে দলের পক্ষ থেকে যা যা করতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে আগামীদিনেও তা করা হবে বর্ধমান-১ ব্লকের বিভিন্ন জায়গায়।

[আরও পড়ুন : ট্রলি ব্যাগে ব্যবসায়ীর দেহ উদ্ধারের ঘটনায় ধৃত ৩, নজরে মূল অভিযুক্তের বান্ধবী]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement