১২ আশ্বিন  ১৪২৭  বুধবার ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

এগিয়ে থেকেও পিছিয়ে গেলেন, ভোটের দিন শেষবেলায় উদয় মুনমুনের

Published by: Sucheta Sengupta |    Posted: April 29, 2019 7:21 pm|    Updated: April 29, 2019 7:21 pm

An Images

চন্দ্রশেখর চট্টোপাধ্যায়, আসানসোল: সারাবছর পরিশ্রম করেও শেষবেলায় কিছুটা পিছিয়ে গেলেন৷ মূল প্রতিপক্ষ যেখানে সকাল সকাল বুথ বুথে ঘুরে, বিক্ষোভের মুখে পড়ে দিনভর দাপিয়ে বেড়ালেন৷ তখনও তারকা প্রার্থীর দেখা নেই৷ বলা হচ্ছে মুনমুন সেন এবং বাবুল সুপ্রিয়র কথা৷ আসানসোল লোকসভা কেন্দ্রের দুই যুযুধান প্রার্থী৷ ভোটের দিন তারকা প্রার্থী মুনমুন সেন যা করলেন, তা নিয়ে এখন সরগরম আসানসোল৷

[ আরও পড়ুন : ইভিএমে বিজেপির বোতাম আতর, ভোটারদের হাতের গন্ধ শুঁকলেন তৃণমূলকর্মীরা!]

‘বেড টি’ পেতে দেরি হওয়ায় ঘুম ভাঙতে সকাল গড়িয়ে গেছে৷ এমনই সাফাই দিয়ে সোমবার, ভোটের দিন শুরু করেছিলেন তৃণমূলের তারকা প্রার্থী তথা বিদায়ী সাংসদ মুনমুন সেন৷ ততক্ষণে আসানসোল দাপিয়ে বেড়াচ্ছেন তাঁর মূল প্রতিপক্ষ বাবুল সুপ্রিয়, আসানসোলের বিদায়ী সাংসদ৷ সকাল থেকে ভোট পরিদর্শনে গিয়ে একবার বারাবনি, একবার অণ্ডালে গিয়ে বিক্ষোভের মুখে পড়ছেন তিনি৷ ভেঙে দেওয়া হয় তাঁর গাড়ির কাচও৷ বুথে ঢুকে প্রিসাইডিং অফিসারকে হুমকি দেওয়ার অভিযোগে তাঁর বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের করার নির্দেশ দিয়েছে কমিশন৷ সব’কটি ঘটনায় অভিযোগের আঙুল ওঠে তৃণমূলের দিকে৷ শেষবেলায় অণ্ডালেও একই ঘটনা৷ সেখানেও বাবুল সুপ্রিয়কে দেখে রীতিমতো তাড়া করেন এক যুবক৷ এসব নিয়ে অভিযোগও দায়ের হয়েছে৷ যেভাবেই হোক, ভোটগ্রহণের দিন ময়দানে একেবারে সক্রিয় ছিলেন বাবুল সুপ্রিয়৷ 

munmun kulti

কিন্তু প্রচারে এগিয়ে থেকেও ভোটের দিন সকাল থেকে দেখা গেল না তৃণমূলের তারকা প্রার্থী মুনমুন সেনকে৷ দুপুর ১২টার পর তিনি বেরোলেন৷ আসানসোলের মাটিতে তখন কাঠফাটা রোদ৷ কুলটি এলাকার মাত্র তিনটি বুথে ঘুরলেন৷ তারপরই ফের ঢুকে গেলেন হোটেলে৷ সেখানেই সাংবাদিকদের সঙ্গে সামান্য কথাবার্তা বলেন৷ আক্ষেপ প্রকাশ করেন, সব বুথে পৌঁছতে পারলেন না বলে৷ তাঁর কথায়, ভোটের আগে এলাকায় লাগাতার প্রচার হলেও, ভোটের দিন সকলে একবার প্রার্থীকে দেখতে চান৷ অর্থাৎ পরোক্ষে মেনেই নিলেন, সোমবার দেরি করে বেরোনোটা তাঁকে চাপে ফেলেছে৷ এখানেই কি বাবুল সুপ্রিয়র সঙ্গে লড়াইটা একটু কঠিন হয়ে গেল? এই প্রশ্নকে বিশেষ গুরুত্ব দিলেন না মুনমুন৷ বললেন, ‘ওর নাম শুনে শুনে ক্লান্ত হয়ে গেলাম৷ এই লড়াই কঠিন বলে বুঝলাম না৷ বরং আগেরবারের লড়াই অনেক কঠিন ছিল, বাসুদেবদাকে হারানো৷’   

munmun

তবু প্রাকভোট সমীক্ষা বলছে, বাবুলের জয় কঠিন৷ তুলনায় এগিয়ে মুনমুন৷ কিন্তু আসল পরীক্ষার দিন শেষবেলায় উদয় হয়ে মুনমুন নিজের নিশ্চয়তা নিজেই হারালেন না কি? এই প্রশ্নে সরগরম আসানসোল৷  

[ আরও পড়ুন : আলু পোস্ত খাইয়ে অনুপমকে দলে ফেরানোর বার্তা অনুব্রতর, তুঙ্গে জল্পনা]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement