২৮ আশ্বিন  ১৪২৭  সোমবার ২৬ অক্টোবর ২০২০ 

Advertisement

মানভঞ্জনের চেষ্টা বৃথা, দলের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগরে দায়িত্ব ছাড়লেন ‘অপমানিত’ তৃণমূল বিধায়ক

Published by: Sucheta Sengupta |    Posted: October 3, 2020 1:35 pm|    Updated: October 3, 2020 1:39 pm

An Images

বিক্রম রায়, কোচবিহার: তাঁর তালিকা করে দেওয়া পছন্দমোত সদস্যদের ঠাঁই হয়নি ব্লক কমিটিতে। মাসখানেক আগে তৃণমূলের সাংগঠনিক রদবদলের পর এই নিয়ে ক্ষোভ বাড়ছিল কোচবিহার দক্ষিণের তৃণমূল বিধায়ক মিহির গোস্বামীর (Mihir Goswami)। এবার তিনি অপমানিত বোধ করে দলের সমস্ত সাংগঠনিক দায়িত্ব ছাড়লেন। কোচবিহার ১ নং ব্লকের দায়িত্বে ছিলেন তিনি। দলকে চিঠি লিখে নিজের সিদ্ধান্তের কথা জানিয়ে দিয়েছেন বিধায়ক। এও জানিয়েছেন যে দলনেত্রী চাইলে তিনি বিধায়ক পদও ছাড়তে পারেন।

ব্লক কমিটি নিয়ে কোচবিহার দক্ষিণের বিধায়ক (TMC MLA) মিহির গোস্বামী ক্ষোভ প্রকাশ করেছিলেন আগেই। অভিযোগ ছিল, বিধায়কদের পছন্দকে গুরুত্ব দেওয়া হয়নি নবগঠিত জেলা ও ব্লক কমিটি গঠনে। তাঁর পাঠানো তালিকার কেউই স্থান পাননি জেলা ও  ব্লক কমিটিতে। তাতে তিনি অপমানিত বোধ করেছেন বলে জানিয়ে দলকে এ নিয়ে খোলা চিঠি লিখে সাংগঠনিক দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি নিলেন মিহির গোস্বামী। সূত্রের খবর, সাংবাদিক বৈঠকে এই সিদ্ধান্ত ঘোষণার আগে টিম পিকে’র সদস্যরা তাঁর মান ভাঙানোর চেষ্টা করেন। কিন্তু সমস্য়া মেটেনি। মোটেই তাঁদের কথা মানেননি বিধায়ক। বরং হাতজোড় করে তাঁদের প্রত্যাখ্যান করে দেন। নিজের সিদ্ধান্তেই অটল থাকেন। 

[আরও পড়ুন: একুশের ভোটে বারাকপুরের লড়াই থেকে সরলেন শীলভদ্র দত্ত, কারণ নিয়ে তুমুল জল্পনা]

চিঠিতে মিহির গোস্বামী স্পষ্ট জানিয়েছেন যে এক সময়ে তিনি তৃণমূল নেত্রীর সঙ্গে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে কীভাবে লড়াই করেছেন দীর্ঘদিন ধরে। এই  সময়ে এসে তাঁর মনে হয়েছে যে এই দল থেকে আর কিছু প্রাপ্তি নেই। দলীয় অনুশাসন ক্রমেই তলানিতে ঠেকেছে বলে চিঠিতে উল্লেখ করেছেন বিধায়ক। এছাড়া দলে স্বজনপোষণ নিয়েও অভিযোগ তুলেছেন মিহির গোস্বামী। দীর্ঘ ৫ দশকের রাজনৈতিক জীবনের ওঠাপড়ার মাঝেও দলের উপর ভরসা ছিল। কিন্তু সম্প্রতি সেই ভরসা হারিয়ে তিনি চূড়ান্ত অপমানিত বোধ করছেন। তাই দায়িত্ব ত্যাগের সিদ্ধান্ত। চিঠিতে তিনি এও জানিয়ে দেন যে দলনেত্রী নির্দেশ দিলে তিনি বিধায়ক পদও ছেড়ে দেবেন। 

[আরও পড়ুন: সাতদিনের লড়াই শেষ, বিদ্যুৎস্পৃষ্ট ইঞ্জিনিয়ারের মৃত্যুতে বিক্ষোভে ফেটে পড়লেন রেলকর্মীরা]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement