Advertisement
Advertisement

Breaking News

TMC

ব্লক সভাপতিকে সোশ্যাল মিডিয়ায় হুমকি, বীরভূমে গ্রেপ্তার তৃণমূলের পঞ্চায়েত সদস্য

ধৃতের বিরুদ্ধে বিজেপির হয়ে ভোট করানোর অভিযোগে সরব তৃণমূল নেতৃত্ব।

TMC Panchayat member arrested for threatening block president in Birbhum | Sangbad Pratidin
Published by: Sucheta Sengupta
  • Posted:June 1, 2023 1:16 pm
  • Updated:June 1, 2023 1:23 pm

নন্দন দত্ত, সিউড়ি: কুরুচিকর ভাষায় দলের ব্লক সভাপতিকে সোশ্যাল মিডিয়ায় হুঁশিয়ারি, বিজেপির হয়ে ভোট করানো-সহ একাধিক অভিযোগ। থানায় অভিযোগ দায়েরের দু’দিনের মধ্যেই গ্রেপ্তার হলেন তৃণমূল (TMC)পঞ্চায়েত সদস্য রাজীব পান। বুধবার রাতে তাঁকে গ্রেপ্তার করেছে বীরভূমের (Birbhum) খয়রাশোল থানার পুলিশ। বৃহস্পতিবার তাঁকে পেশ করা হবে দুবরাজপুর আদালতে। সেখানে সমর্থকরা বিক্ষোভ দেখাতে পারেন। আদালত চত্বরের নিরাপত্তা বাড়ানো হয়েছে।

দু’দিন আগে খয়রাশোলের নিজের দলের ব্লক সভাপতি কাঞ্চন অধিকারীকে সোশ্যাল মিডিয়ায় (Social Media) হুমকি দেওয়ার অভিযোগ ওঠে রাজীব পানের বিরুদ্ধে। তিনি খয়রাশোলের কেন্দগড়িয়া গ্রাম পঞ্চায়েতের তৃণমূল সদস্য। সোশ্যাল মিডিয়া পোস্টে রাজীববাবু লেখেন, “গায়েন, অধিকারী, সাহা, মুখার্জি, বেইমানি ধীবর, আপনারা সাবধানে থাকুন। সময় ভাল নেই।”

Advertisement

Advertisement

তাঁর নিশানায় মূলত খয়রাশোলের ব্লক সভাপতি কাঞ্চন অধিকারী। এছাড়াও তাঁর অনুগামীদের পদবি উল্লেখ করে হুমকি (Threat)দেওয়া হয়েছে। এই পোস্ট সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হওয়ায় এলাকায় চাঞ্চল্য দেখা দেয়। রাজীব পান খয়রাশোলের কেন্দ্র গড়িয়া গ্রাম পঞ্চায়েতের তৃণমূলের সদস্য। তাঁর সঙ্গে ব্লক সভাপতির মতবিরোধ থাকলেও এভাবে প্রকাশ্যে আগে কখনও কুরুচিকর মন্তব্য করেননি কেউ। শুধু মন্তব্য নয়, রীতিমতো হুমকি দেওয়া হয়েছে বলে কাঞ্চন অধিকারী থানায় অভিযোগ করেছেন।

[আরও পড়ুন: বায়রন বিশ্বাসের বিধায়ক পদ বাতিল হোক, বিধানসভার অধ্যক্ষকে চিঠি আইনজীবীর]

ব্লক সভাপতির বক্তব্য, রাজীব দলের সদস্য নয়, একজন দুষ্কৃতী। এরাই দলের ক্ষতি করছে। অন্যদিকে কাঞ্চন অধিকারীর স্ত্রী তথা জেলা পরিষদের সদস্য আঁখি অধিকারী রাজীবের গ্রেপ্তারের দাবিতে সরব হন। খয়রাশোল থানায় বিক্ষোভ দেখান। আঁখিদেবী দাবি করেন, খুনোখুনি-রক্তপাত দেখতে অভ্যস্ত খয়রাশোলে শান্তি ফিরেছে কাঞ্চন অধিকারীর নেতৃত্বে। রক্তপাত হয়নি। রাজীব পান হুমকি দিয়ে ফের সেই কালো দিনগুলি ফিরিয়ে আনতে চাইছেন। তৃণমূল মহিলা সংগঠনের রাজ্য কমিটির সদস্য অসীমা ধীবর বিক্ষোভে নেতৃত্ব দিয়ে বলেন, ”রাজীব তো বিধানসভায় বিজেপির হয়ে ভোট করেছিল। এখন খুনোখুনি করে দলে বিভেদ তৈরি করতে চাইছে। ওর উপযুক্ত শাস্তি হওয়া দরকার।” এদিকে বুধবার রাজীব পান গ্রেপ্তার হতেই তাঁর সমর্থকরা সকাল থেকে দুবরাজপুর আদালতে জড়ো হতে শুরু করেছেন। অশান্তির আশঙ্কায় বাড়তি নিরাপত্তা আদালত চত্বরে।

[আরও পড়ুন: মৃতদেহের অন্তর্বাসে বীর্য! আরও ঘনীভূত হচ্ছে অভিনেত্রী আকাঙ্ক্ষার মৃত্যুরহস্য]

Sangbad Pratidin News App

খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ