BREAKING NEWS

২৬ শ্রাবণ  ১৪২৭  মঙ্গলবার ১১ আগস্ট ২০২০ 

Advertisement

আদৌ কি এবছর হবে স্নাতক-স্নাতকোত্তরের পরীক্ষা? শিক্ষামন্ত্রীর কথায় মিলল ইঙ্গিত

Published by: Sucheta Sengupta |    Posted: July 7, 2020 9:51 pm|    Updated: July 7, 2020 9:51 pm

An Images

দীপঙ্কর মণ্ডল: এ রাজ্যের কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়গুলিতে স্নাতক, স্নাতকোত্তর পরীক্ষা হবে কিনা, তা নিয়ে দেখা দিল অনিশ্চয়তা। বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন (UGC) সোমবার নতুন করে নির্দেশিকা জারির করার পর রাজ্য সরকার নতুন করে কোনও বিজ্ঞপ্তি দেয়নি। মঙ্গলবার শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় পরীক্ষা নেওয়ার বিষয়টি বিশ্ববিদ্যালয়গুলির উপর ছেড়ে দিলেন। তিনি বলেন, “স্নাতক ও স্নাতকোত্তর পরীক্ষা নিয়ে আমরা রাজ্যের প্রত্যেকটি বিশ্ববিদ্যালয়কে অ্যাডভাইজরি পাঠিয়েছি। UGC-র চিঠি এখনও দেখিনি। আমাদের কাছে ছাত্রছাত্রী, শিক্ষক ও শিক্ষাকর্মীদের সুস্থ থাকা বেশি গুরুত্বপূর্ণ। মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলব। উচ্চশিক্ষা দপ্তরের আধিকারিকদের সঙ্গেও কথা বলব। সিদ্ধান্ত নিতে হবে বিশ্ববিদ্যালয়গুলিকেই।”

সোমবার UGC দেশের সব বিশ্ববিদ্যালয়কে একটি নির্দেশিকা পাঠিয়েছে। মঞ্জুরি কমিশনের নির্দেশ, সেপ্টেম্বর মাসের শেষে স্নাতক ও স্নাতকোত্তরের পরীক্ষা নিতে হবে। সেই পরীক্ষা কলেজ বা বিশ্ববিদ্যালয়গুলিতে গিয়ে খাতা-কলমেও হতে পারে অথবা অনলাইনেও নেওয়া যেতে পারে। কিন্তু রাজ্যের শিক্ষা দপ্তর ইতিমধ্যে নিজেদের বিশ্ববিদ্যালয়গুলিকে জানিয়ে দিয়েছে, উত্তরোত্তর যেভাবে করোনা সংক্রমণ বাড়ছে, তাতে পরীক্ষা নেওয়ার মতো পরিস্থিতি নেই।

[আরও পড়ুন: রাজ্যের সব কনটেনমেন্ট জোনে ৯ জুলাই থেকে Full Lockdown, কী কী বন্ধ থাকছে জানুন]

তাই রাজ্য আগেই নির্দেশিকা দিয়ে জানিয়েছিল, স্নাতক এবং স্নাতকোত্তরে আগের সেমেস্টারগুলিতে পাওয়া নম্বরের ভিত্তিতে চূড়ান্ত বর্ষের পড়ুয়াদের মূল্যায়ণ হবে। কাউকেই পরীক্ষা দিতে হবে না। চূড়ান্ত সেমেস্টারে ৮০ শতাংশ মূল্যায়ণ হবে আগের সেমেস্টার গুলিতে পাওয়া নম্বরের ভিত্তিতে এবং ২০ শতাংশ মূল্যায়ন হবে ইন্টারনাল অ্যাসেসমেন্টের ভিত্তিতে। ৩১ জুলাইয়ের মধ্যে রাজ্যের বিশ্ববিদ্যালয়গুলি চূড়ান্ত বর্ষের স্নাতক ও স্নাতকোত্তর ছাত্রছাত্রীদের ফল প্রকাশের প্রস্তুতি শুরু করে দিয়েছে। এই অবস্থায় ইউজিসির নয়া নির্দেশিকা কিছুটা অস্বস্তি বাড়ালেও রাজ্যের বিশ্ববিদ্যালয়গুলি পরীক্ষা নিতে রাজি নয়।

[আরও পড়ুন: আবেদনে সাড়া, করোনা ভ্যাকসিনের মানব পরীক্ষার জন্য ডাক পেলেন দুর্গাপুরের শিক্ষক]

উত্তরবঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক সুবীরেশ ভট্টাচার্য জানিয়েছেন, “কোভিড পরিস্থিতি দিনদিন অবনতি হচ্ছে। অনেক কলেজে কোয়ারেন্টাইন সেন্টার চলছে। এছাড়াও আমফানে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে প্রচুর প্রতিষ্ঠান। এই অবস্থায় রাজ্যে পরীক্ষা নেওয়ার মতো অবস্থা নেই।” আরেক বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের বক্তব্য, শিক্ষা সংবিধানের যুগ্ম তালিকায় আছে। UGC কোনওভাবেই কোনও নির্দেশ রাজ্যগুলির উপর একতরফা চাপিয়ে দিতে পারে না।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement