BREAKING NEWS

১৪ আশ্বিন  ১৪২৭  বৃহস্পতিবার ১ অক্টোবর ২০২০ 

Advertisement

রাজ্যের অবস্থানের বিপরীতে বিশ্বভারতী, UGC’র গাইডলাইন মেনে অফলাইনে পরীক্ষার বিজ্ঞপ্তি

Published by: Sucheta Sengupta |    Posted: July 23, 2020 12:38 pm|    Updated: July 23, 2020 12:49 pm

An Images

ভাস্কর মুখোপাধ্যায়, বোলপুর: করোনা পরিস্থিতিতে সেপ্টেম্বরে বিশ্ববিদ্যালয়গুলিতে ফাইনাল পরীক্ষা নেওয়ার কথা জানিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন (UGC)। এই গাইডলাইন মানতে নারাজ রাজ্য। তা পুনর্বিবেচনার আবেদন জানিয়ে প্রধানমন্ত্রীকে পর্যন্ত চিঠি লিখেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তবে এসবের মাঝে রাজ্যেরই কেন্দ্রীয় বিশ্ববিদ্যালয় বিশ্বভারতীয় ইউজিসি’র গাইডলাইন মেনে অফলাইনে পরীক্ষার প্রস্তুতি নিতে শুরু করল। নভেম্বরের মধ্যে পরীক্ষা পদ্ধতি সম্পূর্ণ করা হবে, এই মর্মে বিজ্ঞপ্তি জারি করেছেন বিশ্বভারতী (Vishvabharati) কর্তৃপক্ষ।

বিশ্বভারতী বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, ইউজিসি’র গাইডলাইন অনুসারে অফলাইন পরীক্ষা নেওয়া হবে। ছাত্রছাত্রীদের বিশ্ববিদ্যালয়ে ক্যাম্পাসে গিয়ে পরীক্ষা দিতে হবে। নভেম্বর মাস শেষ হওয়ার আগেই এই পরীক্ষা সম্পূর্ণ হবে। পরীক্ষাসূচি জানিয়ে দেওয়া হবে খুব তাড়াতাড়ি। বিজ্ঞপ্তি অনুসারে, স্নাতক এবং স্নাতকোত্তর স্তরের ফাইনাল সেমিস্টারের ছাত্রছাত্রীদের আগস্ট মাসের শেষে বিশ্বভারতীর ক্যাম্পাসে চলে যেতে হবে পরীক্ষা দেওয়ার জন্য। প্রথম ২ সপ্তাহ তাদের কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হবে। এর পরে পরীক্ষা শুরু হবে এবং শেষ হবে সেপ্টেম্বর মাসের শেষ সপ্তাহে।

[আরও পড়ুন: আমফানের ক্ষতিপূরণে মিলেছে মাত্র ১০০০ টাকা! অর্থ ফেরত দিতে বিডিওর দ্বারস্থ ক্ষুব্ধ বৃদ্ধা]

বিশ্বভারতীর অধীনস্থ স্কুলগুলিতেও চূড়ান্ত ফলাফল প্রকাশের জন্য প্রস্তুতি নেওয়া হচ্ছে। স্কুলে সমস্ত বিষয়ে প্র্যাকটিক্যাল পরীক্ষা এবং বাংলা বিষয়ের পরীক্ষা আগেই শেষ হয়ে গিয়েছে। এবার ফাইনাল নম্বর দেওয়ার ক্ষেত্রে চলতি বছর নিয়মের সামান্য বদল ঘটানো হয়েছে। ৮০ শতাংশ নম্বর দেওয়া হবে স্কুলগুলিতে সারা বছর যে ইন্টারনাল পরীক্ষা হয়, তার পাওয়া নম্বরের উপর ভিত্তি করে। আর ২০ শতাংশ নম্বর দেওয়া হবে অনলাইন বা টেলিফোনিক ভাইভার মাধ্যমে। ১লা আগস্টের মধ্যে ভাইভা পরীক্ষা শেষ করা হবে। তারপর শুরু হবে পরবর্তী পর্যায়ের প্রস্তুতি।

[আরও পড়ুন: লকডাউনে গণপরিবহণ বন্ধ থাকলেও চালু উড়ান, বিমানবন্দরে কীভাবে পৌঁছবেন? চিন্তায় যাত্রীরা]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement