BREAKING NEWS

৭ মাঘ  ১৪২৭  বৃহস্পতিবার ২১ জানুয়ারি ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

বিশ্বভারতীতে ধারাবাহিক অশান্তি, কিনারা করতে তৈরি ৩ সদস্যের তদন্ত কমিটি

Published by: Sucheta Sengupta |    Posted: January 17, 2020 2:19 pm|    Updated: January 17, 2020 3:13 pm

An Images

ভাস্কর মুখোপাধ্যায়, বোলপুর: বিশ্বভারতী বিশ্ববিদ্যালয়ে ধারাবাহিক অশান্তির ঘটনায় তদন্ত কমিটি তৈরি করল কর্তৃপক্ষ। গত ৮ তারিখ CAA প্রসঙ্গে বিশ্বভারতীর আলোচনাসভায় যোগ দেওয়া রাজ্যসভার সাংসদ স্বপন দাশগুপ্তকে ঘেরাও এবং বুধবার রাতে বিদ্যাভবন ছাত্রাবাসে ঢুকে বামপন্থী ছাত্রদের উপর হামলা – দুটি ঘটনারই তদন্ত করবে এই কমিটি।

VB-notice
তদন্ত কমিটি নিয়ে লিখিত বিজ্ঞপ্তি

বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের তৈরি এই কমিটিতে থাকছেন কলকাতা হাই কোর্টের অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতি জ্যোতির্ময় ভট্টাচার্য, কর্মসমিতিতে প্রধানমন্ত্রীর প্রতিনিধি দুলালচন্দ্র ঘোষ ও কর্মসমিতিতে উপাচার্যের প্রতিনিধি মঞ্জুমোহন মুখেপাধ্যায়। একমাসের মধ্যে তদন্ত শেষ করে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য বিদ্যুৎ চক্রবর্তীকে রিপোর্ট দেবেন কমিটির সদস্যরা।

[আরও পড়ুন: বক্সার জঙ্গলে মিলল জোড়া ব্ল্যাক প্যান্থারের দেখা, ক্যামেরাবন্দি বিলুপ্তপ্রায় প্রাণী]

গত ৮ জানুয়ারি সংশোধিত নাগরিকত্ব বিল (CAA) নিয়ে বিশ্বভরতীর লেকচার সিরিজে যোগ দেন বিজেপির রাজ্যসভার সাংসদ স্বপন দাশগুপ্ত। তিনি ক্যাম্পাসে প্রবেশ করামাত্রই গাড়ি ঘিরে ধরে, কালো পতাকা নিয়ে বিক্ষোভ দেখান বেশ কয়েকজন ছাত্রছাত্রী। অভিযোগ, তাঁরা সকলেই এসএফআই-য়ের সদস্য। আলোচনা সভা চলকালীন কিছু বহিরাগত ও বিশ্বভারতীর বাম ছাত্র মিলে বাইরে থেকে সমাজকল্যাণ বিভাগের প্রেক্ষাগৃহ ঘেরাও করে বিক্ষোভ দেখাতে থাকেন। বিকেল পাঁচটা থেকে রাত সাড়ে দশটা পর্যন্ত ঘেরাও চলে। নিজে টুইট করে একথা প্রকাশ করেন সাংসদ স্বপন দাশগুপ্ত। পরে ঘেরাওমুক্ত হয়ে উপাচার্য ও অতিথিরা ক্যাম্পাস থেকে বেরিয়ে যান। এই ঘটনায় কে বা কারা দায়ী, তা খতিয়ে দেখবে নবগঠিত তদন্ত কমিটি।

পাশাপাশি, গত বুধবার গভীর রাতে বিশ্বভারতীর বিদ্যাভবন ছাত্রাবাসে বাম ছাত্রদের সঙ্গে আরেকদল ছাত্রের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এতে স্বপ্ননীল মুখোপাধ্যায় এবং ফাল্গুনি পান নামে দুই ছাত্র আহত হন। বাম ছাত্র সংগঠনের অভিযোগ, ৮ তারিখ বিজেপি সাংসদকে ঘেরাওয়ের প্রতিশোধ নিতে এবিভিপি তাঁদের উপর রাতের অন্ধকারে হামলা চালিয়েছে। যদিও অভিযুক্ত ছাত্রনেতা অচিন্ত্য বাগদি বারবার নিজেকে টিএমসিপি-র সদস্য বলে দাবি করেছে। ফলে এদিনের ঘটনার হামলাকারীদের পরিচয় নিয়ে ধোঁয়াশা তৈরি হয়। পরে শান্তিনিকেতন থানার পুলিশ ছাত্রনেতা অচিন্ত্য বাগদি ও ‘বহিরাগত’ সাবির আলিকে গ্রেপ্তার করে। এই ঘটনারও তদন্ত করবে অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতি জ্যোতির্ময় ভট্টাচার্যের নেতৃত্বাধীন তিন সদস্যের কমিটি। 

[আরও পড়ুন: সারা মাসের রেশন এবার একদিনেই তোলা যাবে, ঘোষণা খাদ্যমন্ত্রীর]

বুধবারের ঘটনার প্রতিবাদে বৃহস্পতিবারও বিশ্বভারতী ক্যাম্পাসে মিছিলে শামিল হয়েছিল বাম ছাত্র সংগঠন। শুক্রবারও তাদের প্রতিবাদ মিছিলের কর্মসূচি রয়েছে বিকেল ৪টে থেকে।

VB-rally

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement