২২  শ্রাবণ  ১৪২৯  সোমবার ৮ আগস্ট ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

‘কৃষকবন্ধু’ প্রকল্পের বড় সাফল্য, প্রতিশ্রুতি ছাপিয়ে ১ কোটি কৃষকের ‘বন্ধু’ মমতার ভাতা

Published by: Sayani Sen |    Posted: June 27, 2022 9:40 am|    Updated: June 27, 2022 9:40 am

WB CM Mamata Banerjee's Krishak Bandhu project helps many farmers । Sangbad Pratidin

কিংশুক প্রামাণিক: এক বছর আগে নির্বাচনী প্রচারে বলেছিলেন, ৬৮ লক্ষ কৃষকের হাতে বছরে দু’বার পাঁচ হাজার করে মোট দশ হাজার টাকা ভাতা তুলে দেবেন। তৃতীয়বার বিধানসভা ভোটে জিতেই প্রতিশ্রুতি কার্যকর করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (CM Mamata Banerjee)। বছর ঘুরতেই বড় সাফল্য ‘কৃষকবন্ধু’ প্রকল্পে। বর্ষার শুরুতে এবার ৮৯ লক্ষ কৃষকের হাতে দু’দফায় দশ হাজার টাকা করে তুলে দিতে চলেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কৃষি দপ্তরের হিসাব অনুযায়ী,  আগামী বছরে এই ভাতা এক কোটি কৃষকের ঘরে পৌঁছে যাবে। পরিবারের হিসাবে ভাতার সুবিধা পাবে আড়াই থেকে তিন কোটি মানুষ।

প্রকল্প চালুর প্রথম পর্যায়ে ৬৮ লক্ষের লক্ষ্যমাত্রা পূরণ হওয়ার পর কৃষকসমাজ খুশি। নতুন করে আরও অনেকে যে ভাতা নিতে এগিয়ে এসেছেন, সেই ছবিটা স্পষ্ট। আরও ২১ লক্ষ নতুন নাম নথিভুক্ত হয়েছে দ্বিতীয় পর্যায়ে। পঞ্চায়েত নির্বাচন সামনের বছর। গ্রামীণ ভোটে কৃষকদের রায়েই রয়েছে সাফল্যের চাবি। সেই প্রেক্ষিতে কন্যাশ্রী, সবুজসাথী, রূপশ্রীর মতোই প্রথমবার ‘কৃষকবন্ধু’ প্রকল্পের (Krishak Bandhu Project) সাফল্যের ফসল শাসকদল তৃণমূ্‌ল ঘরে তুলবে বলে মনে করছে রাজনৈতিক মহল।

[আরও পড়ুন: কলেজ সার্ভিস কমিশনেও দুর্নীতির অভিযোগ, সিবিআই তদন্তের দাবি চাকরিপ্রার্থীদের]

কেন্দ্রীয় সরকার ছ’হাজার টাকা ভাতা দেয় কৃষকদের। বছরে তিনবার দু’হাজার টাকা করে দেওয়া হয়। কিন্তু সেই প্রকল্প হেক্টরপিছু জমিতে। খুব কম কৃষকের (Farmer) এতটা জমি রয়েছে। ফলে বেশি কৃষক সুবিধা পান না। অন্যদিকে মুখ্যমন্ত্রীর প্রকল্পের নিরিখ মাত্র এক একর জমি। ভাতাও প্রায় দ্বিগুণ। দেখা যাচ্ছে, তাতেই কেন্দ্রকে অনেক পিছনে ফেলে দিয়েছে রাজ্য। মমতার প্রকল্পের সুযোগ আগামী দিনে পাবেন প্রায় এক কোটি কৃষক। কোনও রাজ্যে এমন ইউনিক প্রকল্প নেই বলে জানালেন কৃষি বিশেষজ্ঞ বিধায়ক প্রদীপ মজুমদার। সোমবার মুখ্যমন্ত্রীর দুই বর্ধমান জেলার সফর শুরু হচ্ছে।

দুপুরে বর্ধমান শহরের কাছে সরকারি সভা থেকে দ্বিতীয় পর্যায়ের কৃষকবন্ধু প্রকল্পের সাফল্যের তথ্য তু্‌লে ধরবেন মমতা। প্রদীপবাবু জানান, “তিন একরে এক হেক্টর। এই তথ্য বলছে, কেন্দ্র ও রাজ্যের প্রকল্পে ফারাক কোথায়? স্বাভাবিকভাবেই কেন্দ্রের প্রকল্পের সুযোগ খুব কম কৃষকই পান। কিন্তু মুখ্যমন্ত্রী ৬৮ লক্ষ কৃষককে ভাতা দেওয়ার যে প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন, তা দ্বিতীয় পর্যায়ে কোটির কাছাকাছি পৌঁছে গিয়েছে। এটাই সব চেয়ে বড় সাফল্য।”

শস্যগোলা বর্ধমান থেকে মমতার সফর শুরু। প্রথম দিন কৃষকবন্ধু প্রকল্প। দ্বিতীয় দিন মুখ্যমন্ত্রী মানুষকে ধন্যবাদ জানাতে রাজনৈতিক সভা করবেন আসানসোলে। কিছুদিন আগে লোকসভা আসনের উপনির্বাচনে তৃণমূলের তারকা প্রার্থী শত্রুঘ্ন সিনহাকে বিরাট ব্যবধানে জিতিয়েছেন আসানসোলবাসী। মানুষের সেই রায়ে অভিভূত মমতা কৃতজ্ঞতা জানাতে যাচ্ছেন এবার। পরদিন অর্থাৎ বুধবার দুই বর্ধমানের প্রশাসনিক বৈঠক হবে দুর্গাপুরে।

[আরও পড়ুন: ‘ব্যাস, একবার…’, ছাত্রীকে বাড়িতে ডেকে ধর্ষণের চেষ্টা, কাঠগড়ায় যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে