BREAKING NEWS

১৫ মাঘ  ১৪২৯  সোমবার ৩০ জানুয়ারি ২০২৩ 

READ IN APP

Advertisement

কেজরির মন্দির যাত্রাকে ‘অশুদ্ধ’ বলে কটাক্ষ বিজেপির, পালটা দিলেন মুখ্যমন্ত্রী

Published by: Paramita Paul |    Posted: February 8, 2020 1:48 pm|    Updated: February 8, 2020 1:48 pm

After Arvind Kejriwal's hanuman temple visit, BJP flags act of

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: নির্বাচনের দিনও দিল্লির রাজনৈতিক কাজিয়া তুঙ্গে। দিল্লির বিদায়ী মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়ালের মন্দির যাত্রা নিয়ে তীব্র কটাক্ষ করে বিজেপি নেতৃত্ব। পালটা দেন কেজরিওয়ালও।সবমিলিয়ে সরগরম রাজধানী রাজনীতি। এদিকে আবার শনিবার সকালে দিল্লির মহিলাদের ভোট দিতে যাওয়ার আবেদন জানান বিদায়ী মুখ্যমন্ত্রী। একইসঙ্গে কাকে ভোট দিতে হবে, তা বাড়ির পুরুষদের সঙ্গে আলোচনা করে ঠিক করে নিতেও পরামর্শ দেন কেজরিওয়াল। তাঁর এই মন্তব্য ‘মহিলা বিদ্বেষী’ বলে কটাক্ষ করে মাঠে নেমেছেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী স্মৃতি ইরানিও। সবমিলিয়ে নির্বাচনের দিন সকাল থেকেই সপ্তমে রাজধানীর রাজনীতির পারদ।

শুক্রবার সন্ধেয় কনাট প্লেসের হনুমান মন্দিরে পুজো দিতে গিয়েছিলেন বিদায়ী মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল। বির্তকের সূত্রপাত সেখান থেকেই। বিদায়ী মুখ্যমন্ত্রীর মন্দির যাত্রাকে ‘অশুদ্ধ’ বলে কটাক্ষ করেন দিল্লির বিজেপি প্রধান মনোজ তিওয়ারি। টুইটারে মনোজ লেখেন, “উনি কি পুজো দিতে গিয়েছিলেন, নাকি মন্দিরটাকে অশুদ্ধ করতে গিয়েছিলেন? যে হাতে জুতো খুললেন সেই হাতেই ফুল-মালা নিয়ে পুজো দিলেন! যখন দেখনদারি করতে কেউ মন্দিরে আসেন, তখন এটাই হয়।” তিনি আরও বলেন, “আমি পুরোহিতকে বারবার ফোন করে বলেছি, হনুমানজির বিগ্রহ শুদ্ধ করতে।” এরপরই ব্যাপক চটে যান বিদায়ী মুখ্যমন্ত্রী। একগুচ্ছ টুইট করেন কেজরিওয়াল। তাঁর কথায়, “আমি যবে থেকে প্রকাশ্যে হনুমান চল্লিশা পাঠ করেছি তবে থেকে সমস্যা তৈরি হয়েছে। কুৎসিত ভাষায় আমাকে আক্রমণ করা হচ্ছে। বিজেপি নেতৃত্ব ক্রমাগত বলে চলেছেন, “আমি মন্দির অপবিত্র করতে গিয়েছিলাম, এটা কী ধরনের রাজনীতি।” শেষে তিনি আরও লেখেন, “ঈশ্বর সকলকে আর্শীব্বাদ করুন। বিজেপি নেতাদেরও সুবুদ্ধি দিক।”

[আরও পড়ুন : ‘আমার ষষ্ঠ ইন্দ্রিয় বলছে ক্ষমতায় আসবে বিজেপি’, প্রত্যয়ী মনোজ তিওয়ারি]

এদিকে শনিবার সকালে দিল্লির মহিলাদের ভোট দিতে যাওয়ার আবেদন জানান। দিল্লিবাসী মহিলাদের উদ্দেশ্যে কেজরিওয়াল বলেন, “পরিবার সামলানোর মতো দেশ গড়ার দায়িত্বও আপনারা কাঁধে নিয়ে নিন। বাড়ির পুরুষদের সঙ্গে আলোচনা করে ঠিক করুন, উন্নয়নের স্বার্থে কাকে ভোট দেবেন।” আর তাঁর এই মন্তব্যকে হাতিয়ার করে মাঠে নেমেছেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী স্মৃতি ইরানি। টুইটারে কেজরিওয়ালকে মহিলা বিদ্বেষী বলে অভিযোগ করে লেখেন, “মহিলারা কি নিজেদের সিদ্ধান্ত নিজেরা নিতে পারেন না?” টুইটারে পাল্টা জবাব দিয়েছেন কেজরিওয়ালও। তিনি লেখেন, “দিল্লিতে এবার কাকে ভোট দেওয়া হবে, তা আগেই ঠিক করে ফেলেছেন মহিলারা। পরিবারের সদস্যরা কাকে ভোট দেওয়া হবে তাও তাঁরাই ঠিক করেছেন। কারণ পরিবার তো ওঁরাই চালাবেন।”

[আরও পড়ুন : সাতসকালে পোলিং অফিসারের মৃত্যু ঘিরে চাঞ্চল্য দিল্লিতে]

সবমিলিয়ে এক নজিরবিহীন পরিস্থিতির মুখে দাঁড়িয়ে রাজধানী দিল্লির দখলের লড়াই। এর আগে নির্বাচনের দিনেও এধরণের রাজনৈতিক কাজিয়া শেষ কবে দেখেছেন, তা মনে করতে পারছেন না Delhites-রা।

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে