৫ শ্রাবণ  ১৪২৬  রবিবার ২১ জুলাই ২০১৯ 

Menu Logo বিলেতে বিশ্বযুদ্ধ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

ইন্দ্রনীল রায়: অভিনেতা বিক্রমের গাড়ি চালানো নিয়ে তুঙ্গস্পর্শী বিতর্কের রেশ কমার আগেই ‘সংবাদ প্রতিদিন’-এর খবরকে ঘিরে টলিপাড়া সরগরম! বিতর্কের কেন্দ্রবিন্দুতে দুই নায়িকা এবং এক পরিচালক-শুভশ্রী, মিমি, রাজ চক্রবর্তী৷ তাঁদের ত্রিকোণ প্রেমের জেরে এমন অভাবিত ঘটনা সাম্প্রতিককালে টলিউডে বেনজির৷ রাজ চক্রবর্তীর জন্য দুই নায়িকা মিমি ও শুভশ্রী, মাত্র চব্বিশ ঘণ্টার মধ্যে দু’জনেরই আত্মহত্যার চেষ্টার খবর প্রকাশিত হতেই তুলকালাম৷ sangbadpratidin.in-এর খবরের জেরে এক নায়িকাকে ফেসবুক লাইভে আসতে হল, আর এক নায়িকাকে মুখ খুলতে হল সিনেমার প্রিমিয়ারে৷ আর যাকে ঘিরে এই বিতর্ক সেই রাজ চক্রবর্তী? ‘সংবাদ প্রতিদিন’-এর সামনে তিনি নিজেও কিন্তু অস্বীকার করেননি এই ঘটনার কথা৷ খোলাখুলি জানিয়েছেন তাঁর মতামত৷

বৃহস্পতিবার ‘সংবাদ প্রতিদিন’-এর বিকেলের সংস্করণ ও sangbadpratidin.in-এ মিমি-শুভশ্রীর আত্মহত্যার খবর প্রকাশিত হওয়ার পর গতকাল সন্ধ্যায় লেক মলে একটি বড় বাজেটের বাংলা ছবির প্রিমিয়ার ছিল৷ সেই নতুন ছবির ভাগ্য আলোচনার বদলে টালিগঞ্জের নবতম বিতর্ক গুঞ্জনেই মুখর ছিল প্রিমিয়ারের আসর৷ বিতর্কের অন্যতম মুখ অভিনেত্রী মিমি চক্রবর্তী সেখানে এসেছিলেন ছবির নায়িকা ও ঘনিষ্ঠ বন্ধু নুসরতকে শুভেচ্ছা জানাতে৷ তাঁকে সবাই জিজ্ঞেস করতে থাকেন, ঠিক কী হয়েছে? রাতে মিমি ‘সংবাদ প্রতিদিন’-কে বলেন, ‘সকলের একই  প্রশ্ন, আমি নাকি স্লিপিং পিল খেয়েছি? আমি আর রাজ নাকি একসঙ্গে, এই সব৷’ তবে গোটা ঘটনার কথাই অস্বীকার করে মিমি বলেন, ‘আমার মা বেচারি এসব শুনে অসুস্থ হয়ে পড়েছেন৷ ওঁর প্রেশার শুট-আপ করেছে৷’

[ফের ঘনিষ্ঠ রাজ-মিমি, শুনেই গায়ে আগুন দিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা শুভশ্রীর]

মিমি মুখে যাই বলুন না কেন,  ঘটনা এই যে, নতুন করে রাজ-মিমি যোগাযোগে খুব ‘ইনসিকিওর’ হয়ে পড়েন শুভশ্রী৷ সূত্রের খবর, বুধবার রাতে তাঁর ঘনিষ্ঠ বন্ধুদের হোয়াটসঅ্যাপ করে শুভশ্রী জানিয়েছিলেন, তিনি আর বাঁচতে চান না৷ এবং সেই বন্ধুদের সঙ্গেও তাঁর আর দেখা হবে না৷ বিস্ফোরক যেসব কথা শুনে বন্ধুরা প্রচণ্ড ভয় পেয়ে যান৷ ভয় পেয়ে তাঁরা একে ওকে ফোন করা শুরু করেন৷ সেখান থেকেই জানা যায়, প্রাক্তন বান্ধবী মিমির সঙ্গে নতুন করে রাজের সম্পর্ক শুরু হয়েছে বলেই শুভশ্রীর এরকম চরম প্রতিক্রিয়া৷

এখানেই শেষ নয়, বুধবার রাত দেড়টা নাগাদ শুভশ্রী তাঁর বন্ধুবান্ধব ও পরিবারের লোকজন নিয়ে রাজের হাইল্যান্ড পার্কের ফ্ল্যাটে যান৷ নাটকের কেন্দ্রীয় চরিত্ররা যে বহাল তবিয়তে দাবি করছেন ‘সংবাদ প্রতিদিন’-এর খবরটা সত্যি নয়, তাঁদের একটাই কথা জানিয়ে দেওয়া দরকার৷ পুরো তর্কাতর্কি রাজের ফ্ল্যাটে ঘটার আগে প্রথম দফায় ঘটে হাইল্যান্ড পার্কের পার্কিং লটের কাছে৷ যা আসলে একটি ‘পাবলিক প্লেস’৷ শুভশ্রীর বন্ধুরা বলছেন, হাইল্যান্ড পার্কের ওই হাউজিংয়ের সিসিটিভি ক্যামেরা পরীক্ষা করলেই পুরো ঘটনাটি দেখা যাবে৷

[LIVE অনুষ্ঠানে মহিলার স্তনে হাত, তারপর কী হল?]

মজার ব্যাপার হল, বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা থেকে হঠাৎ করে শুরু হয় রাজ-মিমি-শুভশ্রীর প্রকাশ্যে ‘হ্যাপি’ থাকার চেষ্টা৷ তাঁরা তিনজন একসঙ্গে ছবি তোলেন৷ যদিও তাঁদের ‘কমন ফ্রেন্ড’দের মতে, পুরো ব্যাপারটা মজার প্রহসন ছাড়া কিছু নয়৷ “সুইসাইডের খবরটা বেরিয়ে যাওয়ার পরে ওরা ভয় পেয়ে গিয়েছে৷ আমি এটুকু বলতে পারি, ওরা সবাই অসম্ভব টেনশনে রয়েছে৷ এবং পুরোটাই একটা অভিনয় করে চলেছে,” বলছেন রাজ-মিমি-শুভশ্রীর এক ঘনিষ্ঠ বন্ধু৷ শুভশ্রীর যে দিদি ফেসবুক ভিডিওতে দাবি করেছেন যে, এরকম কিছুই হয়নি, তিনিও মধ্যরাতে শুভশ্রীর বহু বন্ধুকে ফোন করে বলেন, “আমার বোনের সঙ্গে একটু কথা বলুন৷ আমরা বুঝতে পারছি না কী করব৷” এটাও শোনা যায়, শুভশ্রীর বাবাও খুবই হতাশাগ্রস্ত হয়ে পড়েন বুধবার রাত্তিরে৷

post-final-1

রাজ রাতে বলেন, “খুব বিপর্যস্ত লাগছে৷ ওই গায়ে আগুন দেওয়ার খবরটা আদৌ সত্যি নয়৷ হ্যাঁ একটা অশান্তি রয়েছে৷ সে তো অনেক সময় থাকেই৷ কিন্তু আমি আর শুভশ্রী একসঙ্গে আছি৷ বিয়েটাও হবে৷” এখানেই থেমে না থেকে রাজ আরও বলেন, “আমার বিয়ে মোটেও ক্যানসেল হয়নি৷ লোকে ভুল খবর দিচ্ছে৷ হ্যাঁ, অস্বীকার করছি না, শুভশ্রীর সঙ্গে একটা অশান্তি হয়েছে৷ হাল্কা অশান্তি হয়েছে৷ কিন্তু সে তো হতেই পারে৷ নিজেদের মধ্যে মনোমালিন্য হয়ে থাকে৷ রাজের দাবি, “এই যে জানুয়ারিতে আমাদের বিয়ের খবর, ভেনু ফাইনাল হয়ে গিয়েছে, এগুলো আমাদের বন্ধুরাই নিশ্চয়ই বলেছে৷ কারও পেটে কথা থাকেনি৷ নইলে বেরোবে কী করে? মিমির কাছে ফিরে গিয়েছি এমন নয়৷ তবে কাল ও খুব অসুস্থ শুনে কনসার্নড হয়ে ওর বাড়িতে দেখতে গিয়েছিলাম৷ ও স্লিপিং পিল খায়নি৷ চল্লিশ-পঞ্চাশ বার লুজ মোশন হয়েছিল৷ আমি এটা শোনামাত্র ওকে দেখতে যাই৷ সেটা নিয়ে আমার সঙ্গে শুভশ্রীর অশান্তি হয়েছে, এটা সত্যি কথা৷ তবে শুভশ্রীর সঙ্গে সম্পর্কের ব্যাপারটা একই জায়গায় আছে৷”

অনেক জায়গায় বলা হচ্ছে যে সংশ্লিষ্ট তিনজন নাকি সংবাদমাধ্যমের বিরুদ্ধে মানহানির মামলা করবেন৷ টালিগঞ্জের তারকাদের অতীত চরিত্রই অবশ্য তাই৷ সত্যি খবর অথচ অবাঞ্ছিত হলেই এঁরা প্রথমে গালাগালি দেন, অস্বীকার করেন৷ তার পর মানহানির মামলা করবেন বলেন৷ মিমি অবশ্য ‘সংবাদ প্রতিদিন’-কে এদিন বলেন, একটি ওয়েবসাইটে যে তাঁর মুখ দিয়ে মামলা করার কথা বলা হয়েছে, সেটা সর্বৈব মিথ্যে৷ এমন কথা তিনি আদৌ বলেননি৷

[‘নাম থেকে মহম্মদ হটাও’, পাক নাগরিকের কটাক্ষে কী জবাব কাইফের?]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং