৯ আশ্বিন  ১৪২৭  সোমবার ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

রাতের কলকাতায় সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়ের বায়োপিকের শুটিংয়ে যিশু সেনগুপ্ত

Published by: Sandipta Bhanja |    Posted: March 15, 2020 6:43 pm|    Updated: March 15, 2020 7:53 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: বর্তমানে টলিউডের অন্যতম ব্যস্ত অভিনেতা যিশু সেনগুপ্ত। শুধু টলিউড বললে অবশ্য ভুল হবে! কারণ, এখন বলিউডেও বেশ পরিচিত মুখ তিনি। একাধিক ছবিতে অভিনয় করেছেন। রানি মুখোপাধ্যায়, দীপিকা পাড়ুকোন, কঙ্গনা রানাউত, ইলিনা ডি’ক্রুজ, বিদ্যা বালান, একে একে বলিউডের প্রথমসারির প্রায় সব নায়িকার নায়ক হিসেবেই দেখা গিয়েছে তাঁকে। দু’দশক ধরে যত্ন নিয়ে অক্লান্ত পরিশ্রম করে আজ এই জায়গায় পৌঁছেছেন যিশু। আজ রবিবার, ১৫ মার্চ এই ভার্সেটাইল অভিনেতার জন্মদিন। ৪৩-এ পা রাখলেন তিনি। যাঁকে কিনা যে কোনও চরিত্রে অনায়াসেই মানিয়ে যায়।

বর্তমানে সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়ের (Soumitra Chatterjee) বায়োপিক ‘অভিযান’ নিয়ে ব্যস্ত তিনি। কমবয়সি সৌমিত্রের ভূমিকায় দেখা যাবে তাঁকে। সদ্য কলকাতায় পরিচালক পরমব্রত চট্টোপাধ্যায়ের সঙ্গে শুটিং শুরু করেছেন যিশু। সোশ্যাল মিডিয়ায় সম্প্রতি একটি ছবিতেই যিশুকে দেখা গেল রাতের শহরে শুটিংয়ের ফাঁকে পরিচালক পরমব্রতর সঙ্গে আলোচনায় মগ্ন। সেই ছবিতে দেখা মিলল যিশুর ঘনিষ্ঠ বন্ধু রুদ্রনীল ঘোষকেও। যাঁকে কিনা ‘অভিযান’-এ রবি গোষের চরিত্রে দেখা যাবে।

[আরও পড়ুন: রণবীর কাপুরকে ছাড়াই জন্মদিনের পার্টি! আলিয়ার হলটা কী? ]

উপরন্তু যিশু সেনগুপ্তের হাতে আপাতত একগুচ্ছ বলিউড ছবির কাজ। টলিউড কিংবা বলিউড, আপাতত দুই ইন্ডাস্ট্রিতেই যে চুটিয়ে কাজ করছেন অভিনেতা যিশু সেনগুপ্ত, তা বলাই বাহুল্য। যোগ দিয়েছেন ভূমি পেড়নেকরের ‘দুর্গাবতী’ টিমে। যে    ছবির প্রযোজনা করছেন অক্ষয় কুমার। বলিউড ছবি ‘দেবিদাস ঠাকুর’-এও দেখা যাবে যিশুকে (Jisshu Sengupta) । অন্যদিকে, ‘অশ্বথামা’ দিয়ে তেলুগু ইন্ডাস্ট্রিতেও পা রাখতে চলেছেন অভিনেতা। ওদিকে, মহেশ ভাট পরিচালিত ‘সড়ক ২’ ছবিতে আলিয়া ভাটের বাবার চরিত্রে দেখা যাবে যিশুকে। শুটিং শেষ। অপেক্ষা শুধু মুক্তির। আবার ‘মানব কম্পিউটার’ শকুন্তলা দেবীর বায়োপিকে স্বামী পরিতোষ বন্দ্যোপাধ্যায়ের চরিত্রেও রয়েছেন যিশু। তাঁর বিপরীতে বিদ্যা বালান। অভিনেতার জন্মদিনে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন।

[আরও পড়ুন: ‘আংরেজি মিডিয়াম’ দেখে অভিভূত, নিজে হাতে রাধিকা মদনকে চিঠি লিখে পাঠালেন অমিতাভ]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement