BREAKING NEWS

১০  আশ্বিন  ১৪২৯  শনিবার ১ অক্টোবর ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

অভিনব উদ্যোগ, হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকা বয়স্কদের জন্য খাদ্যসংস্থানের ব্যবস্থা দিয়া মির্জার

Published by: Sandipta Bhanja |    Posted: March 27, 2020 8:01 pm|    Updated: March 27, 2020 8:01 pm

Actress Dia Mirza helps old age people during quarantine period

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: আগামী ৩ সপ্তাহ এখন গোটা দেশ লকডাউনে। ঠিক আমি, আপনি বা আমরা, এসময়ে নিজেদের খাদ্যসংস্থানের কথা ভাবছি, যে বাড়ির চাল-ডাল ফুরলে হঠাৎ কোথায় কী পাব! যদিও অত্যাবশকীয় দ্রব্য পাওয়া যাচ্ছে, কিন্তু এই লকডাউন পরিস্থিতিতে বাড়ির বাইরে পা রাখার সাহস খুব কেউ একটা করছেন না! রেস্তরাঁ কিংবা ফুটপাতের খাবারের দোকানগুলোও বন্ধ। অতঃপর বাড়িতে মজুদ রসদ ফুরোলে আর গতি নেই। ঠিক এই পরিস্থিতিতেই বয়স্ক মানুষের জন্য এগিয়ে এলেন বলিউড অভিনেত্রী দিয়া মির্জা। 

রিপোর্ট বলছে, COVID-19 সংক্রমণের ক্ষেত্রে পঞ্চাশ পেরনো কিংবা ষাটোর্দ্ধ মানুষদের ঝুঁকি সবচাইতে বেশি। অতঃপর সাবধানতা অবলম্বনে বাড়িতে থাকার পরামর্শই দিচ্ছেন চিকিৎসকরা। কিন্তু খাবার ফুরিয়ে গেলে? বয়স্কদের অনেকেরই ছেলেমেয়েরা হয়তো থাকেন দেশের বাইরে, কেউ বা আবার অন্য শহরে। শরীর খারাপ হলে দেখতে আসার উপায়টুকুও এখন নেই। এই কঠিন পরিস্থিতিতে মা-বাবাদের নিয়ে কপালে চিন্তার ভাঁজ পড়েছে অনেকেরই। এমতাবস্থায়, সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন বলিউড অভিনেত্রী দিয়া মির্জা।

মুম্বইয়ের যে অঞ্চলে তিনি থাকেন, সেখানকার বাসিন্দাদের সিংহভাগই বয়স্ক। তাই তাঁদের জন্য উদ্বেগ প্রকাশ করে সরকারকে আরজি জানিয়েছেন লকডাউনের মাঝেও কী করে বয়স্ক মানুষদের প্রয়োজনীয় জিনিসের ব্যবস্থা করা যায়, তা নিয়ে ভাবনাচিন্তা করতে। কারণ, বয়স্করা বাড়ির বাইরে বেরতে পারছেন না ঝুঁকি নিয়ে। উপরন্তু, অনলাইন সবজিপাতি কেনার সুযোগও নেই। সেটাও বন্ধ। আগে যারা রোজ এলাকায় সবজি-ফল বিক্রি করতে আসতেন, লকডাউনের জেরে তাঁরাও আসতে পারছেন না। অতঃপর, দীর্ঘকাল ধরে সেই এলাকার বাসিন্দা হওয়ায় দিয়া নিজে উদ্যোগ নিয়েছেন। ২ জন করে সবজি এবং ফল বিক্রেতাদের ঠিক করেছেন। যাঁরা সপ্তাহে ২ দিন করে এসে এলাকার বয়স্ক মানুষদের প্রয়োজনীয় খাবারের সামগ্রী দিয়ে যাবেন।  

[আরও পড়ুন: লকডাউনের মাঝেও সচেতনতা অবলম্বন করে রাস্তার কুকুরদের খাওয়ালেন শ্রীলেখা মিত্র ]

সেল‌ফ কোয়ারেন্টাইনে থেকেও কীভাবে সমাজের কাজে এগিয়ে আসা যায়, তারই প্রমাণ দিলেন অভিনেত্রী দিয়া মির্জা। এমনটাই বলছেন অভিনেত্রীরা।

 
 
 
 
 
View this post on Instagram
 
 
 
 
 
 
 
 
 

Took this #Selfie some days ago. Haven’t had much time since 😊 The last few days have been busy. Yes, even in a lockdown there are things to be done. People to be fed. Systems to be implemented to safe guard and protect all in our Co-Op. Have been on our society’s managing committee for over 8 years. Because change, help, progress, love, care, empathy must begin at HOME. 80% of our residents are senior citizens. Most of them are single with their children living overseas. They are all above the age of 75. Guess what? They are independent, strong, resilient. Before this lockdown many of them would self drive, many of them continued to engage and help with accounts, management of the co-op, cook, clean, work, exercise… They are our neighbours, our friends. Our personal heroes. Now is the time to help them get what they need – ESSENTIALS. The things they would walk across to pick up, or drive to buy. Now they MUST not. Because they are MOST susceptible and vulnerable to #Covid19. So we (Managing Committee) volunteered to organise a vegetable vendor come to our co-op to sell vegetables 2 times a week, a fruit seller to come 2 times a week. (Most online services are not available at Khar/Bandra West and they are not comfortable with technology) We maintain a distance of 5ft, ensure they place their orders on the society group, ensure they come to collect their items at staggered timings. We personally wipe down all common areas of touch with alcohol disinfectants. We take turns to manage our domestic waste, yes, we continue to segregate our waste and compost all kitchen waste. We take turns to water our beautiful garden. We are in this together. We continue to maintain a distance of 5 feet from one another, we continue to practice #SafeHands. We will continue to #StayHome #StaySafe and HELP EACH OTHER. Would love for you to share your story of 1 elderly person you have contacted in this time and are caring for. Maharashtra state alone has 1.25 crore senior citizens. Find ONE you can help 💖🙌🏼 Also, do let me know if you would like for me to share the Health Protocols we’ve put in place for our Co-Operative Housing Society.

A post shared by Dia Mirza (@diamirzaofficial) on

[আরও পড়ুন: করোনা: সরকারি স্বাস্থ্যখাতে অর্থসাহায্য দক্ষিণী তারকাদের, ৪ কোটি দিলেন প্রভাস ]

 

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে