BREAKING NEWS

৭ আশ্বিন  ১৪২৭  শুক্রবার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

লজ্জা নয় স্বাস্থ্য, ট্রেলারেই বার্তা নিয়ে হাজির ‘প্যাডম্যান’ অক্ষয়

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: December 15, 2017 6:10 am|    Updated: September 19, 2019 2:34 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: আমেরিকার কাছে ব্যাটম্যান আছে, সুপারম্যান আছে, স্পাইডারম্যান আছে। ভারতের কী আছে? আছে প্যাডম্যান। শুরুতেই জলদগম্ভীর স্বরে এ ঘোষণা অমিতাভ বচ্চনের। আর ২ মিনিট ২৫ সেকেন্ডের ট্রেলার শেষে মালুম হয়, দেশে ঠিক কতখানি দরকার ছিল এই প্যাডম্যানের। যে রূপে পর্দায় ধরা দেবেন অক্ষয় কুমার। সম্প্রতি মুক্তি পেল তাঁর নতুন ছবি ছবির ট্রেলার।

ভাড়া বাকি ৬৪ লক্ষ টাকা, বাড়ি থেকে বিতাড়িত মল্লিকা ]

নারীর ঋতুস্রাবকে চিরকাল গোপনেই রাখা হয়েছে। পুরুষতান্ত্রিক সমাজব্যবস্থায় সেটাই দস্তুর বলে ধরে নেওয়া হযেছে। এমনকী মেনে নিয়েছেন বা নিতে বাধ্য হয়েছেন নারীরাও। ফলত সংক্রমণ থেকে মৃত্যু কোনও কিছুই বাদ যায়নি। তবু লজ্জার আড় ভাঙেননি। এই পরিস্থিতিতেই এগিয়ে এসেছিলেন এক ভারতীয় পুরুষ। যিনি বুঝেছিলেন, যদি আধ ঘণ্টাও কোনও পুরুষের নারীর মতো রক্তক্ষরণ হয়, তবে তিনি সঙ্গে সঙ্গে মারা যাবেন। অথচ সেই যন্ত্রণা সইতে হয় নারীদের। তাহলে কেন নোংরা জিনিসের ব্যবস্থা? কেন একটা প্যাড তৈরি করা যাবে না? ভাবনামতোই কাজ করেছিলেন। তুলো দিয়ে তৈরি প্যাড তুলে দিয়েছিলেন বোনের হাতে। স্ত্রীর হাতে। বদলে সমাজে বদনামের ভাগীদার হতে হয়েছিল। স্ত্রী তাঁকে ছেড়ে চলেও গিয়েছিলেন। কিন্তু ভাগ্যের চাকা ঘুরে যায় একদিন। যখন তাঁর প্যাড নিয়েই গবেষণা করতে শুরু করে আইআইটি-র গবেষকরা। তিনি হয়ে ওঠেন দেশের প্যাডম্যান। ভাঙা ভাঙা অশুদ্ধ ইংরেজিতে সে কথা বিশ্ববাসীকে তিনি পরে শোনাবেনও। এই চরিত্রেই দেখা মিলল অক্ষয় কুমারের।

[ রিসেপশনের নিমন্ত্রণপত্রেও চমক বিরুষ্কার, জানেন কী? ]

DREQxF5VoAA5tOv

সম্পূর্ণ নগ্ন মডেলের পিঠে চেপে ছবি, বিতর্কে ছোটপর্দার এই নায়িকা ]

বেশ কয়েকটি ছবিতে সামাজিক বার্তা দেওয়ার চেষ্টা করছেন অক্ষয়। তাঁর আগের ছবি ছিল ‘টয়লেট- এক প্রেম কথা’। যেখানে প্রকাশ্যে শৌচ বন্ধের উদ্যোগ নিয়েছিল গ্রামের এখ যুবক। তালা দেওয়া অফিসেও সরকারি ফাইল খুলতে বাধ্য করেছিল তার জেদ। সে ছবি প্রশংসা পেয়েছে বিপুল। তবে সমালোচনাও হয়েছে। স্বাস্থ্যের থেকে নারীর সম্ভ্রমের দিকটি বেশি আলোকিত হয়েছিল সেখানে। যা কাম্য ছিল না। এ ছবিতে আবার সম্ভ্রমের থেকে স্বাস্থ্যের দিকটিই বেশি গুরুত্বপূর্ণ। নারীস্বাস্থ্য আজও আমাদের দেশে অবহেলার বিষয়। এখনও ঋতুমতী নারীকে দূরে রাখা হয়। এমনকী মন্দিরে ঢোকা থেকেও তাঁরা ব্রাত্য। নেপালে ঋতুমতী নারীকে অচ্ছুত করে রাখা আইনত দণ্ডনীয় বলে ঘোষিত হলেও, বহু জায়গাতেই এ অচলাবস্থা চলছে। অক্ষয়ের ছবি সেদিক থেকে যদি সামাজিক সচেতনতা জাগিয়ে তুলতে পারে, তবেই সার্থকতা। ছবির মুখ্য দুই নারী চরিত্রে আছেন রাধিকা আপ্টে ও সোনম কাপুর।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement