BREAKING NEWS

১২ অগ্রহায়ণ  ১৪২৮  সোমবার ২৯ নভেম্বর ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

বায়োপিকের অর্থ দিয়ে সেতু নির্মাণ করতে চান ‘অ্যাম্বুল্যান্স দাদা’ করিমুল

Published by: Sandipta Bhanja |    Posted: September 30, 2019 12:44 pm|    Updated: September 30, 2019 12:44 pm

Ambulance Man Karimul Haque to fund bridge with biopic money

শান্তনু কর, জলপাইগুড়ি: নিজের জীবনকাহিনি অবলম্বনে নির্মিত ছবি থেকে প্রাপ্য অর্থ চেল নদীর সেতু নির্মাণের জন্য সরকারের হাতে তুলে দেওয়ার কথা ঘোষণা করলেন পদ্মশ্রী করিমুল হক। করিমুলের আক্ষেপ, স্বাধীনতার এত বছর পরেও চেল নদীর উপর সেতু না হওয়ায় চরম দুর্ভোগের মধ্যে দিয়ে দিন কাটে ক্রান্তি এলাকার বাসিন্দাদের। বহুবার এই নিয়ে সরব হয়েছেন তিনি। কিন্তু তাতেও কোনও কাজ হয়নি। তাই রবিবার এক সাংবাদিক বৈঠকে নিজের উপার্জিত অর্থ সেতু নির্মাণে দান করার কথা ঘোষণা করলেন জলপাইগুড়ি জেলার ‘অ্যাম্বুল্যান্স দাদা’ করিমুল হক

[আরও পড়ুন: ‘আপনার জন্যই দেশের ছবি পালটাচ্ছে’, মোদির প্রশংসায় পঞ্চমুখ লতা ]

দু’চাকার অ্যাম্বুলেন্সে মুমূর্ষু রোগীকে হাসপাতালে পৌঁছে দিয়ে সকলের চোখে তিনি হয়ে উঠেছিলেন ‘অ্যাম্বুল্যান্স দাদা’। সামাজিক জীবনে সাদামাটা মানুষটির সেই অসামান্য জীবন কাহিনিই এবার রুপোলি পর্দায় তুলে ধরতে চলেছেন লেখক ও পরিচালক বিনয় মুদগল। রবিবার জলপাইগুড়ি প্রেসক্লাবে সাংবাদিক সম্মেলন করে পরিচালক বিনয় মুদগল জানান, রীতিমতো বাণিজ্যিক ভাবনায় ছবিটিকে তৈরি করছেন তাঁরা। 

করিমুল হক

 

বলিউডের বিগ বাজেটের এই ছবিটি প্রযোজনা করছে ‘রাজা হিন্দুস্থানি’, ‘চেন্নাই এক্সপ্রেস’ খ্যাত প্রযোজক সংস্থা সিনে যুগ। বলিউডের প্রথম সারির অভিনেতাদের কাছে ইতিমধ্যেই প্রস্তাব গিয়েছে করিমুল সাহেবের চরিত্রে অভিনয় করার জন্য। যদিও এই বিষয়ে কথাবার্তা চলছে এখনও। পুজোর পরই অভিনেতা নির্বাচন চূড়ান্ত হয়ে যাবে বলে জানান পরিচালক। তিনি আরও বলেন, ছবির জন্য গান তৈরি চলছে বর্তমানে। লোকেশন নির্বাচনও সেরে ফেলেছেন তাঁরা। যেহেতু এটি আত্মজীবনীমূলক ছবি, তাই বিষয়টিকে বাস্তবের ছেঁয়া দিতে ডুয়ার্সের লোকেশনেই ছবির শুটিং হবে।

[আরও পড়ুন: বিয়ের পিঁড়িতে বসতে চান রুদ্রনীল, ঠিক এমন পাত্রীই চাই অভিনেতার! ]

বায়োপিক হলেও যেহেতু বাণিজ্যিক ভাবনায় ছবিটিকে তৈরি করা হবে, সেই কারণে ছবির আয়ের একটা অংশ পাবেন করিমুল হক। এদিন করিমুলকে পাশে বসিয়ে পরিচালক বিনয় মুদগল বলেন, “আমি জানি করিমুল হক সাহেব কী চান। এক কথায় বলতে পারি, ছবি তৈরি হয়ে যাওয়ার পর তিনি যা পাবেন, তা দিয়ে তার সমস্ত ইচ্ছেই পূরণ হয়ে যাবে।” সাংবাদিক সম্মেলনের মঞ্চ থেকে করিমুল হক বলেন, “কী পাব জানি না। তবে যা পাব, সবটাই চেল নদীর সেতু নির্মাণের জন্য সরকারের হাতে তুলে দেব।”

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে