BREAKING NEWS

২৬ শ্রাবণ  ১৪২৭  মঙ্গলবার ১১ আগস্ট ২০২০ 

Advertisement

বিদ্যুতের বিল লক্ষাধিক টাকা, খরচ মেটাতে কিডনি বিক্রির কথা বললেন আরশাদ ওয়ারসি!

Published by: Sandipta Bhanja |    Posted: July 5, 2020 4:21 pm|    Updated: July 5, 2020 4:21 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: বিদ্যুতের বিল নিয়ে জেরবার বলিউড তারকারা। তাপসী পান্না এবং হুমা কুরেশি-সহ বেশ কয়েকজন তারকার পর এবার সংশ্লিষ্ট বিষয়ে মুখ খুললেন আরশাদ ওয়ারসি। এই মাসের ইলেকট্রিক বিল দেখে ‘মুন্নাভাই এমবিবিএস’ অভিনেতার প্রাণ ওষ্ঠাগত। পরিস্থিতি এমন পর্যায়ে পৌঁছেছে যে টুইটারে তিনি নিজের দুটো কিডনি বিক্রি করে দেওয়ার কথাও বলেছেন!

উল্লেখ্য, আরশাদ ওয়ারসির (Arshad Warsi) বিদ্যুতের বিলের খরচ কিন্তু হার মানিয়েছে অন্যান্য তারকারদের ইলেকট্রিক বিলকেও। তাপসী পান্নুর বিদ্যুতের বিল এসেছিল ৩৬ হাজার টাকা। অন্যদিকে হুমা কুরেশি জানিয়েছিলেন তাঁর এমাসের বিদ্যুৎ বিল এসেছে ৫০ হাজার টাকা। কিন্তু সবাইকে ছাপিয়ে গিয়েছে আরশাদের বিল। যা শুনলে আপনার চক্ষুও চড়ক গাছ হতে বাধ্য! জানা গিয়েছে, সদ্য বিদ্যুতের বিল হিসেবে ১ লক্ষ ৩ হাজার টাকা জমা দিতে হয়েছে আরশাদ ওয়ারসিকে। তবে এই পাহাড় প্রমাণ বিলের কারণ কী? তা কিছুতেই বুঝে উঠতে পারছেন না অভিনেতা।

সেই সুবাদেই টুইট করে ক্ষুব্ধ আরশাদ একহাত নিয়েছেন মুম্বইয়ের বিদ্যুৎ সরবরাহকারী সংস্থা আদানিকে। অন্যান্য মাসের তুলনায় এ মাসে কী এমন ঘটল, যার জন্যে বিদ্যুতের বিল এত এল? চিন্তায় পড়ে গিয়েছেন তিনি। আর এই একই সমস্যায় কিন্তু জেরবার মুম্বইয়ের সাধারণ মানুষও। টুইট করে বলিউড অভিনেতা লিখেছেন, “সবাইকে অনুরোধ করছি আমার পেইন্টিংগুলো কিনুন, যাতে আমি আদানি সংস্থাকে এই মাসের বিলটা অন্তত দিতে পারি! পরের মাসের বিলের জন্য আমি নিজের কিডনি দুটোই তুলে রাখছি!”

[আরও পড়ুন: ‘অনার কিলিং’কে গৌরবান্বিত করে ছবি! তেলেঙ্গানা আদালতের নজরে পরিচালক রামগোপাল ভার্মা]

আসলে লকডাউনে বাড়ি বসে প্রচুর ছবি আঁকছেন আরশাদ। আর সেই পেইন্টিংগুলো বিক্রি হলেই তিনি ইলেকট্রিক বিল জমা দিতে পারবেন বলে, দাবি করেছেন! স্বাভাবিকবশতই লকডাউনে কাজ না থাকায় অনেকেই বিদ্যুতের বিল দেখে দিশেহারা হয়ে পড়েছেন।

উল্লেখ্য, বিদ্যুৎ সরবরাহকারী সংস্থা আদানির এই ইলেকট্রিক বিল গন্ডগোলের জন্য কিন্তু মুম্বইয়ের সাধারণ মানুষকেও বেশ নাকানিচোবানি খেতে হচ্ছে। লকডাউনের জেরে অনেকেই রোজগারহীন হয়েছেন, কাজ খুঁইয়েছেন কেউ বা আবার পুরো মাসমাইনেও পাচ্ছেন না। আর এমন একটি কঠিন পরিস্থিতির মধ্যে কিনা এত টাকা বিদ্যুৎ বিল মেটাতে হবে! কীভাবে? ভেবেই কূল পাচ্ছেন না মুম্বইয়ের আমজনতা। সেই একই অবস্থা হয়েছে আরশাদেরও। তবে কিডনি বিক্রির কথা নিছক মজাচ্ছলেই বলেছেন তিনি। খানিক ব্যাঙ্গাত্মকভাবে বিঁধেছেন মুম্বইয়ের বিদ্যুৎ সরবরাহকারী সংস্থা আদানিকে।

[আরও পড়ুন: আচমকা বিমানে অক্ষয়ের নাসিক যাত্রায় বিতর্ক, তদন্তের আশ্বাস মহারাষ্ট্রের মন্ত্রীর]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement