২৮ আশ্বিন  ১৪২৭  সোমবার ২৬ অক্টোবর ২০২০ 

Advertisement

সুশান্ত সিং রাজপুত মৃত্যু মামলায় নতুন মোড়, ED, CBI, NCB’র পর এবার তদন্তে NIA!

Published by: Suparna Majumder |    Posted: September 23, 2020 2:01 pm|    Updated: September 23, 2020 2:24 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: প্রথমে মুম্বই পুলিশ, তারপর বিহার পুলিশ, সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশে সিবিআই (CBI), মাদক যোগ খতিয়ে দেখতে আবার নারকোটিক্স কন্ট্রোল ব্যুরো (NCB), আর্থিক তছরুপের মামলা খতিয়ে দেখছে এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টোরেট (ED)। সূত্রের খবর মানলে এবার সুশান্ত সিং রাজপুতের ( Sushant Singh Rajput Death Case) মৃত্যুর তদন্তের সঙ্গে যুক্ত হতে চলেছে ন্যাশনাল ইনভেস্টিগেশন এজেন্সি বা জাতীয় তদন্তকারী সংস্থা (NIA)।

সুশান্ত মামলার তদন্তে বর্তমানে মুখ্য ভূমিকায় নারকোটিক্স কন্ট্রোল ব্যুরো। ইতিমধ্যেই রিয়া চক্রবর্তী (Rhea Chakraborty), তাঁর ভাই সৌভিক চক্রবর্তী (Showik Chakraborty), সুশান্তের হাউস ম্যানেজার স্যামুয়েল মিরান্ডা (Samuel Miranda), কর্মচারী দীপেশ সাওয়ান্ত-সহ একাধিক মাদক কারবারীকে গ্রেপ্তার করেছে NCB। ৬ অক্টোবর পর্যন্ত রিয়া, সৌভিক ও স্যাম্যুয়েলকে বিচার বিভাগীয় হেফাজতে থাকার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। বুধবার বম্বে হাই কোর্টে (Bombay High Court) রিয়া এবং সৌভিকের জামিনের আবেদনের শুনানি ছিল। কিন্তু প্রবল বৃষ্টির কারণে মুম্বইয়ের সমস্ত সরকারি অফিসে ছুটি ঘোষণা করা হয়েছে। তাই আদালতের কাজকর্মও স্থগিত রাখা হয়েছে।

 

[আরও পড়ুন: ছোটবেলা থেকেই শিশু নিগ্রহ করতেন অনুরাগ! পুরনো ভিডিও শেয়ার করে দাবি কঙ্গনার]

ইতিমধ্যেই শোনা গিয়েছে, NCB আধিকারিকদের জেরার মুখে একাধিক বলিউড তারকার নাম নিয়েছেন ট্যালেন্ট ম্যানেজমেন্ট সংস্থা KWAN-এর কর্মী জয়া সাহা (Jaya Shah)। আজ দীপিকা পাড়ুকোনের (Deepika Padukone) ম্যানেজার করিশ্মা প্রকাশকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে। ইতিমধ্যেই NCB অফিসে পৌঁছে গিয়েছেন KWAN-এর অন্যতম ডিরেক্টর তথা নীনা গুপ্তার প্রাক্তন জামাই মধু মন্টেনা। বুধবার শ্রুতি মোদিকেও (Shruti Modi) জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে।

সূত্রের খবর, NCB আধিকারিকদের জিজ্ঞাসাবাদে নাকি জয়া সাহা জানিয়েছেন, শ্রদ্ধা কাপুরকে (Shraddha Kapoor) নেশার জন্য সিবিডি অয়েল জোগাড় করে দিয়েছিলেন তিনি। ঘটনায় দিয়া মির্জার (Dia Mirza) নামও জড়িয়েছে। শোনা গিয়েছে, দীপিকা পাড়ুকোন, দিয়া মির্জাকে সমন পাঠাতে পারে NCB। কিন্তু পরে দিয়া সোশ্যাল মিডিয়ায় দাবি করেন তিনি কোনওদিন মাদক নেননি বা মাদক চক্রের সঙ্গে জড়িত ছিলেন না। তবে সূত্রের খবর, KWAN সংস্থার মাধ্যমে বলিউডের অনেক ‘এ লিস্টার’দের নামও উঠে আসতে পারে। এর মধ্যে আবার পাক যোগের সম্ভাবনাও উড়িয়ে দেওয়া যাচ্ছে না। কেচো খুঁড়তে কেউটের সন্ধানও মিলতে পারে। সেই কারণেই সুশান্ত মামলার তদন্তভার জাতীয় তদন্তকারী সংস্থার হাতে তুলে দিতে পারে কেন্দ্র সরকার।

[আরও পড়ুন: সুশান্ত মামলায় অভিযুক্ত KWAN কোম্পানির সঙ্গে সলমনের কোনও সম্পর্কই নেই, দাবি তাঁর আইনজীবীর]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement