২২ আষাঢ়  ১৪২৭  মঙ্গলবার ৭ জুলাই ২০২০ 

Advertisement

করোনায় আক্রান্ত হয়ে প্রয়াত মাসি, গায়ত্রী মন্ত্র পোস্ট করে শ্রদ্ধাজ্ঞাপন বরুণ ধাওয়ানের

Published by: Bishakha Pal |    Posted: May 25, 2020 11:44 am|    Updated: May 25, 2020 10:20 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: করোনার প্রকোপ দিনের পর দিন বাড়ছে। ভারতে আক্রান্তের সংখ্যা ছাড়িয়েছে ১ লক্ষ। গত ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্ত হয়েছেন ৬ হাজার ৯৭৭ জন। ক্রমবর্ধমান মৃত্যুর সংখ্যাও। এখনও পর্যন্ত দেশে মৃতের সংখ্যা ছাড়িয়েছে ৪ হাজার। রেহাই পায়নি বলিউডও। করিম মোরানি, জোয়া মোরানি, শাজা মোরানি, কণিকা কাপুর, কিরণ কুমার-সহ অনেকেই করোনার কোপে পড়েছেন। কিন্তু এবার বলিউড থেকে মিলল মৃত্যুসংবাদ। করোনায় আক্রান্ত হয়ে প্রয়াত হলেন বরুণ ধাওয়ানের মাসি।

অভিনেতা সম্প্রতি ইনস্টা্গ্রামে এই খবর জানিয়েছেন। মাসির সঙ্গে একটি ছবিও শেয়ার করেছেন তিনি। লিখেছেন, ‘Love you, maasi. RIP.’

যদিও বরুণে মাসি ভারতে থাকেন না। তিনি শিকাগোয় বাস করেন। জোয়া মোরানির করোনার রিপোর্ট পজিটিভ আসার পরই তিনি জানিয়েছিলেন তাঁর মাসিও করোনায় আক্রান্ত। চিকিৎসা চলছে তাঁর। কিন্তু জোয়া মোরানি সুস্থ হয়ো উঠলেও বরুণের মাসির অবস্থার উন্নতি হয়নি। শনিবার শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি। তাঁর মৃত্যুতে বলিউডে নেমে এসেছে শোকের ছায়া। সোনম কাপুর, সোফি চৌধুরি, সোনাল চৌহান, মালাইকা অরোরা, করিশ্মা কাপুর-সহ অনেকেই শোকবার্তা জানিয়েছেন।

[ আরও পড়ুন: মোদিকে নিয়ে কুরুচিকর পোস্ট, তুমুল বিতর্কের মুখে পড়ে ক্ষমা চাইলেন বাংলাদেশি গায়ক নোবেল ]

বলিউডে প্রথম করোনায় আক্রান্ত হন গায়িকা কণিকা কাপুর। এরপর প্রযোজক করিম মোরানি ও তাঁর দুই মেয়ে জোয়া এবং শাজা মোরানির শরীরে করোনা ধরা পড়ে। যদিও চারজনেই এখন সম্পূর্ণ সুস্থ। এদিকে বনি কাপুর ও জাহ্নবী কাপুরের বাড়িতেও হানা দিয়েছে করোনা। বাড়ির তিন পরিচারক করোনায় আক্রান্ত হয়ে পড়েছেন। কাপুর পরিবারের তরফে সংবাদমাধ্যমকে একটি বিবৃতি দিয়ে জানানো হয়, বনি, জাহ্নবী এবং খুশি- তিনজনেই আপাতত সুস্থ রয়েছেন। ভাইরাসে আক্রান্ত হয়নি তাঁরা। দু’দিন আগে তাঁদের পরিচারক চরণের করোনা পজিটিভ আসার পরই বাড়ির সবার লালারস পরীক্ষা করা হয়। কিন্তু তাঁদের তিনজনের রিপোর্ট নেগেটিভ এসেছে। যদিও সতর্কতার কারণে বর্তমানে আইসোলেশনে রয়েছেন তাঁরা। এরপরই খবর পাওয়া যায় করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন অভিনেতা কিরণ কুমার। এপ্রসঙ্গে কিরণ জানিয়েছেন, করোনার কোনওরকম উপসর্গই তাঁর শরীরের ছিল না। হাসপাতালে গিয়েছিলেন রুটিন চেক-আপের জন্যে। সেখানেই বেশ কিছু টেস্ট করাতে বলা হয়েছিল। চিকিৎসকরা সেসময়ে তাঁকে কোভিড টেস্টও করানোর পরামর্শ দেন। সেই টেস্টের পরই ধরা পড়ে যে তিনি করোনা আক্রান্ত। এই মুহূর্তে পরিবারের সদস্যদের থেকে পুরোপুরি আলাদা রয়েছেন কিরণ কুমার।

[ আরও পড়ুন: আমফান বিধ্বস্ত বাংলার পাশে বিকাশ খান্না ]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement