BREAKING NEWS

২৩ জ্যৈষ্ঠ  ১৪২৭  শনিবার ৬ জুন ২০২০ 

Advertisement

সাবেক ছিটমহলে ঢুকতে বাধা অপর্ণা-বোলানদের, ক্ষুব্ধ বিদ্বজ্জনরা

Published by: Sandipta Bhanja |    Posted: October 19, 2019 4:30 pm|    Updated: October 19, 2019 4:33 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক:  সাবেক ছিটমহলে ঢুকতে বাধা দেওয়া হল অভিনেত্রী অপর্ণা সেন, বোলান গঙ্গোপাধ্যায়-সহ বেশ কয়েকজন বুদ্ধিজীবিদের। শনিবার কোচবিহার জেলার দিনহাটার করোলা নামক ভারত-বাংলাদেশ সীমান্ত এলাকায় গিয়েছিলেন অভিনেত্রী। তবে সেখানে ঢুকতে দেওয়া হয়নি তাঁদের। সাবেক ছিটমহলে ঢোকার চেষ্টা করলেই বাধা দেয় সীমান্তরক্ষী বাহিনী। আর এতেই বেজায় রেগে গিয়েছেন বুদ্ধিজীবিরা। নিজের দেশে গণ্ডীর ভিতর কেন কেউ অনায়াসে যাতাযাত করতে পারবেন না? প্রশ্ন তুলে প্রতিবাদে সরব হন অপর্ণা-বোলানরা।

কেন ঢুকতে দেওয়া হল না? এই জায়গা তো ভারতের মধ্যেই পড়ছে, একজন নাগরিক নিজের দেশের যে কোনও জায়গায় ইচ্ছেমতো যেতে পারেন। দেশের স্পর্শকাতর কিছু এলাকায় অবশ্য শর্তসাপেক্ষে প্রবেশ করতে দেওয়া হয়, কিন্তু এক্ষেত্রে সেরকম কোনও সমস্যা না থাকলেও কেন সীমান্তরক্ষী বাহিনীরা বাধা দিলেন? প্রশ্ন তুলেছেন অভিনেত্রী তথা বুদ্ধিজীবী মহলের অন্যতম মুখ অপর্ণা সেন। প্রসঙ্গত, সীমান্ত এলাকায় ভোটার আইডি কার্ড কিংবা যে কোনও ধরনের পরিচয়পত্র দেখিয়ে প্রবেশ করার অনুমতি নিতে হয়। কিন্তু অপর্ণা সেনের মতো একজন জনপ্রিয় ব্যক্তিত্বের নাগরিকত্ব নিয়ে প্রশ্ন তোলার তো কথা নয়! তিনি যে ভারতীয় নাগরিক, সেটাও আলাদা করে উল্লেখ করার প্রয়োজন নেই। তবুও কেন সাবেক ছিটমহলের দায়িত্বপ্রাপ্ত বিএসএফ জওয়ানরা বাধা দিলেন তাঁকে? এমন প্রশ্ন কিন্তু অনেকেই তুলেছেন।

[আরও পড়ুন: ‘ম্যাডাম CM! দোষীদের শাস্তি নিশ্চিত করুন’, জিয়াগঞ্জ হত্যাকাণ্ডে আবেদন অপর্ণার]

শনিবার বেলা নাগাদ বেশ কজন বুদ্ধিজীবীদের নিয়ে অপর্ণা সেন গিয়েছিলেন সেখানকার বাসিন্দাদের সঙ্গে কথা বলতে। রেশন কার্ড কিংবা একটা মানুষের যে বেঁচে থাকার জন্য জল-আলো-খাবারের মতো নানান প্রাথমিক চাহিদা থাকে, সেগুলো পেতে সেখানকার বাসিন্দাদের কোনও অসুবিধে হচ্ছে কি না, সেসব খোঁজ নিতেই মূলত তাঁরা গিয়েছিলেন দিনহাটার করোলা ছিটমহলে। তবে বিএসএফদের দ্বারা বাঁধাপ্রাপ্ত হওয়ায় প্রতিবাদে সরব হন অপর্ণা-বোলানরা।

[আরও পড়ুন: ‘ওঁরা যৌন হেনস্তার শিকার’, পার্শ্বশিক্ষিকাদের পাশে থেকে মুখ্যমন্ত্রীকে কটাক্ষ অপর্ণার]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement