BREAKING NEWS

২৬ শ্রাবণ  ১৪২৭  মঙ্গলবার ১১ আগস্ট ২০২০ 

Advertisement

আনলকের দ্বিতীয় পর্বেও খুলল না সিনেমা হল, অসন্তোষ প্রকাশ করে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকে চিঠি হল মালিকদের

Published by: Bishakha Pal |    Posted: July 2, 2020 4:41 pm|    Updated: July 2, 2020 4:41 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: লকডাউন কাটিয়ে ধীরে ধীরে স্বাভাবিক হচ্ছে দেশ। চলছে দ্বিতীয় পর্বের আনলক। দেশের মধ্যে ভ্রমণ, অফিস, মার্কেট, শপিং কমপ্লেক্স এবং আর ওকিছু জায়গা এই পর্যায়ে খোলার নির্দেশ দিয়েছে কেন্দ্র। কিন্তু সিনেমা হল এবং মাল্টিপ্লেক্সগুলি এখনও বন্ধ। এই নিয়ে ক্ষুব্ধ হল মালিকরা। এই নিয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রককে একটি চিঠিও দিয়েছে তারা।

মাল্টিপ্লেক্স ও সিনেমা হল মালিকদের মতে, যখন অর্থনীতির ধস আটকাতে আনলক ২-এ একাধিক পরিষেবা খোলার সিদ্ধান্ত নিয়েছে কেন্দ্র সরকার। কিন্তু তার মধ্যে নেই সিনেমা হল ও মাল্টিপ্লেক্স। করোনা আবহে সামাজিক দূরত্ব ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে কীভাবে সুষ্ঠভাব কাজ পরিচালনা করা যায়, তার উদাহরণ হতে পারে এগুলি। কিন্তু কেন্দ্র সে বিষয়ে ভাবনা চিন্তা না করার মনক্ষুণ্ণ হয়েছেন হল মালিকরা। তাঁদের মতে, ভারতের মাল্টিপ্লেক্স ইন্ডাস্ট্রিক সঙ্গে সরাসরি ২ লক্ষ মানুষ যুক্ত রয়েছেন। ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রির উপার্জনের প্রায় ৬০ শতাংশ এখান থেকেই আসে। এগুলি ভারতীয় ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রির মেরুদন্ড। ১০ লক্ষেরও বেশি লোকের জীবিকা এর সঙ্গে জড়িয়ে রয়েছে। স্পট বয় থেকে শুরু করে মেকআপ আর্টিস্ট, সংগীতশিল্পী, ডিজাইনার, টেকনিশিয়ান এবং ভিস্যুয়ান আর্টিস্ট, পরিচালক এবং অভিনেতাদের কাছে ছবি মুক্তি একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। লকডাউনের ফলে ভারতীয় ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রিকে এক জায়গায় আটকে দিয়েছে। ক্ষয়ক্ষতি দিন দিন বেড়েই চলেছে। সিনেমা হলগুলি খোলার অনুমতি দেওয়ার সিদ্ধান্ত ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রির বাস্তুতন্ত্রকে ঠিক রাখতে সহায়তা করবে। পাশাপাশি ধীরে ধীরে পুনরুত্থানের দিকেও পরিচালিত করবে।

[ আরও পড়ুন: বলিউডে কতটা স্বজনপোষণ চলে? যাচাই করতে ‘নেপোমিটার’ আনলেন সুশান্তের জামাইবাবু ]

সিনেমা হল খোলার পর সব স্বাভাবিক হতে অন্তত ৩ থেকে ৬ মাস সময় লাগবে। ইতিমধ্যেই ফ্রান্স, ইটালি, স্পেন, নেদারল্যান্ডস, অস্ট্রিয়া, হংকং, বেলজিয়াম, মালয়েশিয়া, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের মতো দেশগুলি সিনেমা হল খুলে দিয়েছে। মানুষের প্রতিক্রিয়া দেখছে তারা। বিশ্বজুড়ে ২০টিরও বেশি বড় সিনেমা বাজার কাজ শুরু করেছে। তাই ভারতের মাল্টিপ্লেক্স ও সিনেমা হলগুলিরও এই সুযোগ পাওয়া উচিত বলে মন্তব্য করেন হল মালিকরা। চিঠিতে এও জানানো হয়েছে লকডাউন কীভাবে পুরো ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রির ক্ষতি করেছে। সিনেমা হলগুলি বন্ধ থাকায় অধিকাংশ প্রযোজকই ডিজিটাল রিলিজের দিকে ঝুঁকেছে। ইতিমধ্যেই একাধিক সিনেমার ডিজিটাল রিলিজ ঠিকই হয়ে গিয়েছে। এভাবে চলতে থাকলে অদূর ভবিষ্যতে ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রি আরও ক্ষতির সম্মুখীন হবে বলে জানান তাঁরা।

[ আরও পড়ুন: ‘রাজনৈতিক ফায়দা তোলার চেষ্টা করছেন শেখর সুমন ও সন্দীপ সিং’, অভিযোগ সুশান্তের পরিবারের ]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement