BREAKING NEWS

১ আশ্বিন  ১৪২৭  শুক্রবার ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

সমস্ত প্রেক্ষাগৃহ বন্ধের নির্দেশ মুখ্যমন্ত্রীর, কতটা মানছেন হল মালিকেরা?

Published by: Sandipta Bhanja |    Posted: March 17, 2020 6:09 pm|    Updated: March 17, 2020 6:09 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: সোমবারই মুখ্যমন্ত্রী নির্দেশ দিয়েছেন যে আগামী ৩১ মার্চ অবধি রাজ্যের সমস্ত প্রেক্ষাগৃহ বন্ধ রাখতে হবে। গত দু’দিনের রিপোর্ট বলছে, গোটা দেশে প্রায় ১৫০০ প্রেক্ষাগৃহ বন্ধ হয়েছে। কেরালা, মধ্যপ্রদেশ, দিল্লি, মহারাষ্ট্র, কর্ণাটক, বিহার-সহ একাধিক রাজ্যে স্কুল-কলেজের সঙ্গে প্রেক্ষাগৃহেরও দরজা বন্ধ হয়েছে। রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও নির্দেশিকা জারি করেছেন যে বাংলায় আগামী ৩১ তারিখ অবধি সিনেমাহল বন্ধ থাকবে। কিন্তু মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশে কতটা সাড়া দিলেন প্রেক্ষাগৃহের মালিকেরা? এই নির্দেশিকাকেই বা কেমনভাবেই নিচ্ছেন তাঁরা?

সোমবার নির্দেশিকা জারির পর মঙ্গলবারও অনেক সিনেমাহলই খোলা থাকতে দেখা গেল। এমনকী, অনলাইনেও খোলা রয়েছে সিনেমাহলের টিকিট বুকিংয়ের অপশন। সেক্ষেত্রে মুখ্যমন্ত্রীর কড়া নির্দেশ, যারা এখনও প্রেক্ষাগৃহ বন্ধ করেননি, অতি সত্ত্বর তাঁদের এই নির্দেশিকা মানতে হবে। নতুবা যথাযথ পদক্ষেপ করা হবে। করোনা সংক্রমণের ভয়ে প্রেক্ষাগৃহে বিগত দিন দু’-তিন দিন ধরেই অপেক্ষাকৃত কম লোক আসছেন। আর তাই সদ্য মুক্তিপ্রাপ্ত ছবিগুলোও ভাল ব্যবসা করতে পারেনি। যার জেরে সম্প্রতি ইরফান খানের ‘আংরেজি মিডিয়াম’ ফের রিলিজের ঘোষণা করা হয়েছে। উল্লেখ্য, এক্ষেত্রে শিবু-নন্দিতার ‘ব্রহ্মা জানেন গোপন কম্মটি’ও আবার মুক্তি পাবে বলে জানা গিয়েছে।

[আরও পড়ুন: একনজরে টলিউডে করোনার প্রকোপ, পিছল রাজের ‘ধর্মযুদ্ধ’ ও দেবের ‘গোলন্দাজ’-সহ একগুচ্ছ ছবি ]

অন্যদিকে, সিনেমাহল মালিকেরাও জানিয়েছিলেন যে লোকসানে চলার চেয়ে প্রেক্ষাগৃহ বন্ধ রাখাই ভাল। কারণ, জমায়েত কিংবা যে কোনওরকম ভীড় এড়ানোর জন্য সিনেপ্রেমীরাও হলমুখো হচ্ছেন না। এপ্রসঙ্গে ‘নবীনা’ সিনেমাহলের কর্তা নবীন চৌখানি জানিয়েছেন যে, জনস্বার্থে মুখ্যমন্ত্রীর সিদ্ধান্ত মেনেই আগামী ৩১ তারিখ অবধি প্রেক্ষাগৃহ বন্ধ রাখা হবে। উপরন্তু, যারা অগ্রীম বুকিং করিয়েছিলেন, তাঁরাও টাকা ফেরত পাচ্ছেন ‘নবীনা’ থেকে।

প্রিয়া সিনেমা হলের ক্ষেত্রে মমতার জারি করা নির্দেশিকা মানা হচ্ছে আগামী ১৯ তারিখ থেকে। কারণ, প্রিয়া এন্টারটেইনের মালিক অরিজিৎ দত্তের কথায়, আগামী ২দিন বুকিং রয়েছে। তাই বৃহস্পতিবার থেকে হল বন্ধ থাকবে। উপরন্তু অনলাইনে অগ্রীম বুকিংয়ের অপশনও বন্ধ রাখা হচ্ছে। এদিকে, ‘বসুশ্রী’ কর্তৃপক্ষ মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশ মেনে প্রেক্ষাগৃহ বন্ধ রাখারই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। পিভিআর কর্তৃপক্ষও অনলাইনে বুকিং অপশন বন্ধ করে দেওয়ার কথা জানিয়েছে।

[আরও পড়ুন: করোনার জেরে ৫০০ কোটির ধাক্কা, টেকনিশিয়ানদের অর্থ সাহায্যের প্রস্তাব বলিউড পরিচালকদের]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement