BREAKING NEWS

২১ চৈত্র  ১৪২৬  শনিবার ৪ এপ্রিল ২০২০ 

Advertisement

মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশে টলিউড প্রযোজকদের সঙ্গে মিটিংয়ে বসছেন অরূপ-স্বরূপ

Published by: Sandipta Bhanja |    Posted: February 27, 2020 3:18 pm|    Updated: February 27, 2020 3:18 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: টলিউড ইন্ডাস্ট্রিতে ফের বকেয়া সমস্যা। পুরনো সমস্যার জট না কাটায় সম্প্রতি নবান্নে গিয়ে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে দেখা করে এলেন আর্টিস্ট ফোরামের নয়া কার্যকরী সভাপতি শংকর চক্রবর্তী। মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে সৌজন্যমূলক সাক্ষাৎকারের সময়ে শংকরের সঙ্গে নবান্নে উপস্থিত ছিলেন অরিন্দম গঙ্গোপাধ্যায়, সোহম চক্রবর্তী এবং জিৎ। বাংলা ইন্ডাস্ট্রিকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য  মুখ্যমন্ত্রীর কাছে বেশ কয়েকটা আবেদন রেখেছে আর্টিস্ট ফোরাম। সেগুলির মধ্যেই মূল সমস্যা হিসেবে উঠে এসেছে বকেয়া টাকার সমস্যা। আগামী শনিবারই মন্ত্রী অরূপ বিশ্বাস ও স্বরূপ বিশ্বাস বৈঠক করবেন টলিপাড়ায়।

বকেয়া টাকা মেটানোর পাশাপাশি আরও কিছু প্রস্তাব এদিন মুখ্যমন্ত্রীর কাছে রাখা হয়েছে আর্টিস্ট ফোরামের তরফে। যেমন- ফোরামের অফিসের জায়গা বাড়ানো, নতুন একটি ভবন গড়া, এছাড়াও শিল্পীদের  জন্য কমিউনিটি হলের ব্যবস্থা করা, যেখানে ওয়ার্কশপের আয়োজন করা যাবে। সেসমস্ত বিষয়েও আশ্বাস দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী।

[আরও পড়ুন: ভাঙছে কঙ্কণা সেনশর্মা ও রণবীর শোরের বিয়ে, বিচ্ছেদ মামলা দায়ের আদালতে ]

প্রসঙ্গত, মাস গিয়ে বছর গড়ালেও টলিপাড়ায় বকেয়া টাকার সমস্যা সমাধান এখনও অধরাই। গতবছর আর্টিস্ট ফোরাম এবং ফেডারেশন অফ সিনে টেকনিশিয়ান্স অ্যান্ড ওয়ার্কার্স অফ ইস্টার্ন ইন্ডিয়া, এই দুই সংগঠনের অন্দরে দফায় দফায় মিটিং হলেও সবার পাওনা টাকা এখনও মেটেনি। গত বছরই এই বকেয়া টাকার সমস্যা এমন পর্যায়ে পৌঁছেছিল যে বেশ কয়েকটি ধারাবাহিকের শুটিং বন্ধ হতে বসেছিল। মাসের পর মাস টাকা না পাওয়ার প্রতিবাদে টেকনিশিয়ানরা দিন দুয়েক শুটিং বন্ধও রেখেছিলেন। এতদিনেও সমস্যার জট না কাটায় মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যেপাধ্যায়ের দ্বারস্থ আর্টিস্ট ফোরাম।  

শনিবার টলিউডের প্রযোজনা সংস্থার কর্ণধারদের সঙ্গে বৈঠকে বসবেন মন্ত্রী অরূপ বিশ্বাস এবং স্বরূপ বিশ্বাস। টলিউডে বকেয়া না মেটানোর অভিযোগ উঠেছিল মূলত ২ প্রযোজক- দাগ ক্রিয়েটিভ মিডিয়ার কর্তা রানা সরকার এবং সুব্রত রায়ের বিরুদ্ধে। তবে তাঁরা কেউই এই মুহূর্তে টলিউডে কোনও কাজের সঙ্গে যুক্ত নন। তাঁদের ধারাবাহিকের ভার হয়তো বর্তেছে চ্যানেলের উপর কিংবা অন্যান্য প্রযোজনা সংস্থার উপর। প্রসঙ্গত, এর আগেও মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে এই সমস্যা নিয়ে কথা হয়েছিল। তাঁর মধ্যস্থতায় প্রথম ধাপে সমস্যার সমাধান হলেও পরবর্তীতে একই ঘটনার পুনরাবৃত্তি হয়েছে। শনিবারের মিটিংয়েও কি সেই সমস্যার সুরাহা হবে প্রশ্ন উঠছে সেখানেও।

[আরও পড়ুন: ‘দেশে এখনও কেন হিন্দু-মুসলিম হানাহানি?’, দিল্লি নিয়ে টুইট তরজা চেতন-অনুপমের]

Advertisement

Advertisement

Advertisement