BREAKING NEWS

২৬ শ্রাবণ  ১৪২৭  মঙ্গলবার ১১ আগস্ট ২০২০ 

Advertisement

সুশান্ত ও টিকটক স্টার সিয়ার আত্মহত্যার শোক সইতে না পেরে আত্মঘাতী দ্বাদশ শ্রেণির ছাত্রী

Published by: Sandipta Bhanja |    Posted: July 11, 2020 1:43 pm|    Updated: July 11, 2020 1:43 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যুর প্রায় এক মাস হতে চলল, আজও শোকবিহ্বল অনুরাগীরা। শোক কাটিয়ে উঠতে না পেরে প্রিয় বলিউড অভিনেতার অনুকরণেই গলায় ফাঁস লাগিয়ে এযাবৎকাল একাধিক ভক্তের আত্মহত্যার খবর পাওয়া গিয়েছে। সুশান্তের মৃত্যুর পর পরই গুরগাঁওয়ের ষোড়শী টিকটক স্টার সিয়া কক্করও আত্মহত্যা করেছিলেন। আর সেই জোড়া শোক সইতে না পেরেই এবার দেরাদুনে আত্মঘাতী দ্বাদশ শ্রেণির এক ছাত্রী।

সূত্রের খবর, বছর সতেরোর ওই কিশোরীর ঘর থেকে কোনওরকম সুইসাইড নোট পাওয়া যায়নি। তবে সুশান্ত সিং রাজপুত (Sushant Singh Rajput) এবং টিকটক স্টার সিয়া কক্করের আত্মঘাতী হওয়াতেই যে সংশ্লিষ্ট ছাত্রী মুষড়ে পড়েছিল, সেকথা তার পরিবারের সদস্যরাও জানিয়েছেন।

জানা গিয়েছে, শুক্রবার দেরাদুনে নিজের বাড়িতে গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মঘাতী হয়েছে সম্ভ্রান্ত ব্যবসায়ী পরিবারের মেয়েটি। চলতি বছরই সে উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষা দিয়েছিল বলে জানা গিয়েছে পুলিশের তরফে। আত্মঘাতীর পরিবারে রয়েছেন তার বাবা, মা এবং দুই দাদা।

তদন্তকারী পুলিশ অফিসার অজয় রাওয়াত জানিয়েছেন, গত কয়েক দিন ধরেই সুশান্ত সিং রাজপুত এবং টিকটক স্টার সিয়া কক্করের (Siya Kakkar) আত্মহত্যা নিয়ে বার বার কথা বলত এই কিশোরী। তার পরিবারের সদস্যরাই জানিয়েছে একথা।

[আরও পড়ুন: ‘সুশান্তকে খুন করেছে দাউদের গ্যাং!’, বিস্ফোরক দাবি প্রাক্তন RAW অফিসারের]

গত বৃহস্পতিবার পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে খাওয়া-দাওয়া সেরে সে নিজের ঘরে ঘুমতে যাতে। পরের দিন সকালে অনেক ডাকাডাকি করলেও দরজা খোলেনি। এরপরই বাড়ির লোকজন দরজা ভেঙে ঘরে ঢুকে সিলিং ফ্যান থেকে ঝুলন্ত অবস্থায় দেখতে পান তাকে। সঙ্গে সঙ্গে স্থানীয় হাসপাতালে যাওয়া হলে চিকিৎসকরা জানান, কিশোরীর মৃত্যু হয়েছে। এরপরই খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে তদন্ত শুরু করেছে বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্ট পুলিশ আধিকারিক।

পুলিশের দাবি, “প্রাথমিক তদন্তে ঘটনাস্থল থেকে কোনও সুইসাইড নোট পাওয়া যায়নি। এমনকী, তার পরিবারের সদস্যরাও আত্মহত্যার নেপথ্যের কারণ সম্পর্কে কিছু বলতে পারেননি। তবে জানা গিয়েছে, গত ১০-১২ দিন ধরেই নাকি সুশান্ত এবং সিয়া কক্করের আত্মহত্যার কথা প্রায়ই বলত দ্বাদশ শ্রেণির ওই ছাত্রী। মেয়েটির বাবা তাকে অনেক বুঝিয়েছিলেন যে ওই সমস্ত ঘটনার কথা বেশি চিন্তা না করতে। কিন্তু তার কথাবার্তায় পরিবারের সদস্যরা ঘুণাক্ষরেও টের পাননি যে তাদের মেয়ে নিজেই এমন পদক্ষেপ করতে চলেছে!”

ময়না তদন্তের রিপোর্টে মৃত্যুর কারণ শ্বাসরোধ বলে জানা গিয়েছে। অর্থাৎ গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যার বিষয়টি সত্যি প্রমাণিত হয়েছে বলে জানা গিয়েছে পুলিশের তরফে।

[আরও পড়ুন: করোনা আক্রান্ত কোয়েল এবং রঞ্জিত মল্লিক-সহ গোটা পরিবার]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement