BREAKING NEWS

১৩ অগ্রহায়ণ  ১৪২৭  রবিবার ২৯ নভেম্বর ২০২০ 

Advertisement

বড়পর্দায় ফেলুদা ও শঙ্কুর জমাটি জুটি, এক ছবিতে সত্যজিতের দুই আইকনিক চরিত্র

Published by: Suparna Majumder |    Posted: October 21, 2020 8:52 pm|    Updated: October 21, 2020 8:52 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: পুজোর আগে জবর খবর/ আসছে জোড়া গোয়েন্দা প্রবর/ একজন দেন মগজাস্ত্রে শান/ অন্যজনের হাতের মুঠোয় কল্পবিজ্ঞান — রায় মশাই থাকলে এর থেকে ভাল ছন্দ মিলিয়েই দিতে পারতেন। অবশ্য তিনি না থাকলেও তাঁর সৃষ্টি বাঙালির সম্পদ হয়ে রয়ে গিয়েছে। এখনও বাংলা সিনেমার প্রসঙ্গ উঠলে সবার প্রথমে একটাই নাম সিনেপ্রেমীদের ঠোঁটে ফুটে ওঠে, সত্যজিৎ রায় (Satyajit Ray)। সিনে মায়েস্ট্রোর একশোতম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষেই এক ছবিতে দেখা যাবে বাঙালির দুই প্রিয় চরিত্রকে। প্রদোষ চন্দ্র মিত্র ওরফে ফেলুদা (Feluda) এবং প্রোফেসর ত্রিলোকেশ্বর শঙ্কু (Professor Shanku)। বুধবার প্রযোজনা সংস্থা SVF-এর পক্ষ থেকে জানানো হল এই খবর। ছবিটি পরিচালনার দায়িত্বে থাকছেন সত্যজিৎপুত্র সন্দীপ রায় (Sandip Ray)।

 

[আরও পড়ুন: পুজোর শুরুতেই সুখবর, ক্যানসারকে হার মানিয়ে সুস্থ জীবনে ফিরলেন সঞ্জয় দত্ত]

১৯৬৫ সালের ডিসেম্বর মাসের ‘সন্দেশ’ পত্রিকায় ফেলুদা সিরিজের প্রথম গল্প ‘ফেলুদার গোয়েন্দাগিরি’ প্রকাশিত হয়। ছোটবেলায় পড়া শার্লক হোমসের গল্প থেকে প্রভাবিত হয়ে এই চরিত্র সৃষ্টি করেছিলেন সত্যজিৎ রায়। সঙ্গে ওয়াটসনের মতো তোপসের চরিত্রের পাশাপাশি রেখেছিলেন জটায়ুর মতো নির্ভেজাল বাঙালি চরিত্র। তার চার বছর আগেই প্রফেসর শঙ্কুর সৃষ্টি করেছিলেন সত্যজিৎ। সেখানে তিনি বিজ্ঞানের পাশাপাশি নিজের কল্পনাকেও প্রশ্রয় দিয়েছিলেন। ৬৯টি ভাষা জানেন শঙ্কু। হায়ারোগ্লিফিক পড়তে পারেন, হরপ্পা ও মহেঞ্জোদাড়োর লিপি উনিই প্রথম পড়েন। আইকনিক এই দুই চরিত্রই নিজস্বতায় জোরে বছরের পর বছর ধরে পাঠকদের মনে জায়গা করে নিয়েছে। সত্যজিৎ রায়ের হাত ধরেই ফেলুদার বড়পর্দার সফর শুরু হয়েছিল। কিন্তু শঙ্কুকে প্রথমবার পর্দায় দেখা গিয়েছে গত বছর। SVF-এর ব্যানারে ছবিটি পরিচালনা করেছিলেন সন্দীপ রায়।

এবারে দুই আইকনিক চরিত্রকে এক ছবিতে নিয়ে আসছেন সত্যজিৎপুত্র। চ্যালেঞ্জ বড় হলেও দায়িত্ব নিয়ে ফেলেছেন। তবে শোনা গিয়েছে, ফেলুদা ও শঙ্কুকে এক ছবিতে দেখা যাবে ঠিকই তবে এক ফ্রেমে নাও দেখা যেতে পারে। দু’টি ভিন্ন গল্পে দুই সত্যানুসন্ধানীকে দেখা যাবে। শঙ্কুর চরিত্র সম্ভবত ‘প্রোফেসর শঙ্কু ও এল ডোরাডো’র নায়ক ধৃতিমান চট্টোপাধ্যায়ই থাকবেন। তবে ফেলুদার চরিত্রে কে অভিনয় করবেন? সেই বিষয়ে এখনও পর্যন্ত কিছু জানা যায়নি। ঠিক করা হয়নি নাম। সব ঠিক থাকলে আগামী বছরের জানুয়ারিতে শুটিং শুরু হতে পারে। সত্যজিৎ রায়ের জন্মমাস অর্থাৎ মে মাসে বড়পর্দায় দেখা যাবে ফেলুদা ও শঙ্কুর এই জোড়া অভিযান।

[আরও পড়ুন: কঙ্গনাকে ধর্ষণের হুমকি আইনজীবীর, তীব্র বিতর্কের মুখে কী সাফাই অভিযুক্তের?]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement