৩০ আশ্বিন  ১৪২৬  শুক্রবার ১৮ অক্টোবর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক:  সিনেমা তৈরির জন্য যে সমস্ত চিত্রনাট্য এতদিন সেন্সরের কাঁচির কোপে পড়ার ভয়ে বাক্স বন্দি করে রেখেছিলেন পরিচালকরা, সেই ভাবনাগুলোই এবার ওয়েব সিরিজের মাধ্যমে ফুটিয়ে তুলছেন তাঁরা। আর ঠিক যে কারণে পরিচালকরাও বর্তমানে সিনেমার থেকে ওয়েব ময়দানেই বেশি ঝুঁকছেন। ওয়েব সিরিজ মানেই খোলামেলা কন্টেন্ট, হিংসা, রক্তারক্তি ওয়েব প্ল্যাটফর্মে দেখাতে কোনওরকম বাঁধা নেই। তবে এবার বোধহয় সুখের দিন শেষ হতে চলল। কারণ, ওয়েব ময়দানেও এবার সেন্সরের কাঁচি পড়ল বলে!

[আরও পড়ুন: বলিউড পেরিয়ে এবার মারাঠা ইন্ডাস্ট্রিতে, মারাঠি ছবিতে সুর দিচ্ছেন অনুপম ]

সিনেমায় যেসব দেখানো যায় না কিংবা যে সব বিষয় সম্বন্ধে ভাবা যেত না এযাৎকাল, তাই কিন্তু এতদিন তুলে ধরা যেত ওয়েব সিরিজে। পরিচালকরাও একবাক্যে স্বীকার করে নেন সেসব কথা। তবে এবার ওয়েব সিরিজ নির্মাতারা নিজেরাই চাইছেন, ওয়েব বিনোদনের মাধ্যমেও আরোপিত হোক কিছু সেন্সরশিপ। সম্প্রতি দিল্লিতে দুই সংস্থার এক বৈঠকে এমন কথাই উঠেছে। সূত্রের খবর, সেখানেই ওয়েব প্ল্যাটফর্মে লাগাম লাগানোর কথা উঠেছিল।

[আরও পড়ুন: ‘গুমনামি’ ঘিরে ফের বিতর্ক, হাই কোর্টে মামলা দায়ের ফরওয়ার্ড ব্লক নেতার ]

তাঁদের কথায়, যেহেতু মানুষ এখন টেলিভিশনের পর্দা ছেড়ে আরও বেশি করে ওয়েব সিরিজে মজেছেন, তাই বাচ্চাদের নাগালেও এসব চলে এসেছে বর্তমানে। সেহেতু পর্নোগ্রাফি, অবরাধমূলক বিষয়গুলি নিয়ে আরও সচেতন হয়ে কাজ করা উচিত। নেটফ্লিক্স, হটস্টার, এরোজ নাও, জি ফাইভ প্রত্যেকেই নিজেদের মতো করে সিদ্ধান্ত নিয়েছে কীরকম কনটেন্ট তাঁরা দেখাবেন।

তবে বৈঠকে উপস্থিত সকলেই যে এই সিদ্ধান্তে একমত হয়েছেন, এমনটা কিন্তু নয়। কেনই বা নিজেদের উপর সেন্সরশিপ চাপাবেন এই নিয়েও প্রশ্ন তুলেছেন অনেকে। তবে ওয়েব সিরিজের বিষয় নিয়ে এবং খোলামেলা কিংবা হিংসাত্মক দৃশ্য নিয়ে তাঁরা আরও ভাবনা চিন্তা করবেন বলে জানিয়েছেন। পাশাপাশি, কিছুদিন পর থেকে সব ওয়েব প্ল্যাটফর্ম থেকেই যাতে সিনেমা মুক্তি পেতে পারে, সেরকম পরিকল্পনাও রয়েছে তাঁদের। 

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং