৫ আশ্বিন  ১৪২৬  সোমবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক:  বৃহস্পতিবারই স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে মুক্তি পেয়েছে ‘গুমনামি’র প্রথম টিজার। অভিনেতা প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়ের ‘গুমনামি’ লুকের ভূয়সী প্রশংসা করেছে নেটিজেনরা। আবার নেতাজি অন্তর্ধান রহস্যের মতো একটি বিতর্কিত বিষয়বস্তুকে ঘিরে ছবি তৈরির জন্য ইন্ডাস্ট্রির অন্দরে বেজায় প্রশংসিতও হয়েছেন পরিচালক সৃজিত। তবে এর মাঝেই ঘটল বিপত্তি। ‘গুমনামি’র জন্য আইনি নোটিস পেলেন পরিচালক সৃজিত মুখোপাধ্যায়।

[আরও পড়ুন: শুটিং ফ্লোরে ফিরলেন নুসরত, বিয়ের পর প্রথম ছবির কাজ সাংসদের ]

সৃজিতের বিরুদ্ধে অভিযোগ, নেতাজি সুভাষচন্দ্র বোসের মতো মহান ব্যক্তিত্বকে ভুল ভাবে তুলে ধরা হয়েছে ‘গুমনামি’তে। দেবব্রত রায় নামে জনৈক ব্যক্তি তাঁর ব্যক্তিগত উকিল মারফত শুক্রবার আইনি নোটিস পাঠিয়েছেন পরিচালককে। ছবির টিজার প্রকাশ্যে আসতেই যে আইনি বিতর্কে জড়ালেন পরিচালক সৃজিত, তা বলাই বাহুল্য। এপ্রসঙ্গে সৃজিত মুখোপাধ্যায় কোনওরকম মন্তব্য করেননি এখনও পর্যন্ত।

নেতাজি অন্তর্ধান রহস্য আজও অধরা। ১৯৪৫ সালের বিমান দুর্ঘটনাতেই কি তাঁর মৃত্যু ঘটেছিল নাকি অন্য বেশে পাড়ি দিয়েছিলেন ভিন্ন দেশে? এই প্রশ্ন এখনও মনে সদাজাগরুক। আরও একবার সেই বিতর্কিত প্রশ্ন ছুঁড়েই মুক্তি পেল পরিচালক সৃজিত মুখোপাধ্যায়ের ‘গুমনামি: দ্য গ্রেটেস্ট স্টোরি নেভার টোল্ড’-এর টিজার। হিন্দি এবং বাংলা দুই ভাষাতেই মুক্তি পেয়েছে টিজার।  সেই সঙ্গে প্রকাশ্যে এল ‘গুমনামি’র ভূমিকায় অভিনেতা প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়ের লুক। গলায় রুদ্রাক্ষের মালা, চোখে হুবহু সেই গোল ফ্রেমের চশমা। তবে, অমিল বলতে মুখের ধূসর দাড়ি-গোঁফ। সন্ন্যাসী বেশ। দেখে বোঝার উপায় নেই। রহস্যময় চরিত্র। যাকে ঘিরে কৌতূহলের অন্ত নেই। সাদা কালো ফ্রেমে ধরা দিল ভারতীয় ইতিহাসের ছিঁড়ে যাওয়া কিছু পাতা। উল্লেখ্য, মুক্তির কিছুক্ষণের মধ্যেই প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়ের লুক বেশ প্রশংসিত হল নেটদুনিয়ায়। তাঁর সঙ্গে ঝলক মিলল অভিনেতা অনির্বাণ ভট্টাচার্যেরও। যাকে দেখা যাবে এক সাংবাদিকের চরিত্রে।

[আরও পড়ুন: ফের বলিউড ছবিতে টোটা রায়চৌধুরি, রয়েছেন পরিনীতিও ]

টিজার প্রসঙ্গে সৃজিত মুখোপাধ্যায় বলেন, “ছোটবেলা থেকে এই কথাটাই শুনে আসছি, ‘নেতাজি বিমান দুর্ঘটনায় মারা যাননি’। এমনকী আজও গোটা দেশ এবং সংবাদমাধ্যম নেতাজি মৃত্যুরহস্য নিয়ে সন্দিহান। এই ছবির প্লট সাজানোর সময়ে আমার ঠিক যতটা রোমহর্ষক অভিজ্ঞতা হয়েছে, সিনেমা দেখার সময়ে দর্শকদেরও ঠিক একইরকম অনুভূতি হবে বলে আমার বিশ্বাস।”

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং