BREAKING NEWS

৪ আশ্বিন  ১৪২৭  মঙ্গলবার ২২ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

শাহরুখের ‘ম্যায় হুঁ না’র দৃশ্যই হাতিয়ার, ফিল্মি কায়দায় সচেতনতা প্রচার অভিযানে মুম্বই পুলিশ

Published by: Sandipta Bhanja |    Posted: April 12, 2020 3:34 pm|    Updated: April 12, 2020 3:34 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: লকডাউনে বাড়ির বাইরে পা রাখায় নিষেধাজ্ঞা জারি হয়েছে ঠিকই, কিন্তু মানবিকতা, রসবোধ কিংবা জ্ঞান, দয়া, আশা, ভক্তির উপর তো লকডাউন জারি হয়নি! আর তাই আমচি মুম্বইবাসীদের সাবধানবাণী দিতে খানিক ফিল্মি কায়দাই অবলম্বন করছে মুম্বই পুলিশ। কখনও অজয় দেবগন, রাজকুমার রাও তো কখনও আবার শাহরুখের সিনেমার দৃশ্য-সংলাপকে হাতিয়ার করে তুলছে সচেতনতা প্রচার অভিযানে।   

করোনা মোকাবিলায় সচেতনতা প্রচারে এবার শাহরুখ খানের ‘ম্যায় হুঁ না’ সিনেমার একটি দৃশ্যকেই হাতিয়ার করে তুলল মুম্বই পুলিশ। মারণ ভাইরাসের সংক্রমণ রুখতে মাস্ক কতটা প্রয়োজনীয় কিংবা কেন এই সময়ে মাস্ক পরে বাইরে পা রাখা আবশ্যক, আমচি মুম্বইবাসীদের সেই বার্তা দিতেই পুলিশের তরফে এমন অভিনব পন্থা গ্রহণ করা হল।

‘ম্যায় হুঁ না’ ছবির একটি দৃশ্যের কথা নিশ্চয় মনে আছে, যেখানে সতীশ শাহ অভিনীত প্রফেসর রাসাইয়ের কথা বলার সময়ে থুতু ছেটার ভয়ে রামপ্রসাদ শর্মা ওরফে শাহরুখকে পুরো ৩৬০ ডিগ্রি হয়ে এক স্টান্ট করতে হয়েছিল। সিনেমার সেই মজাদার দৃশ্য শেয়ার করেই মুম্বই পুলিশ টুইটারে লিখেছে, “শাহরুখ এখন আর আপনার এরকম স্টান্ট করার প্রয়োজন পড়বে না। মাস্ক আছে তো!” উল্লেখ্য, COVID-19-এর সংক্রমণ রুখতে হাঁচি-কাশি এড়ানোর জন্য নানা পন্থা অবলম্বন করার নির্দেশ রয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার গাইডলাইনসে। কারণ, হাঁচি-কাশি থেকেও এসময়ে আপনার পাশের মানুষটির থেকে আপনার সংক্রমণ ছড়াতে পারে। তাই সাবধানতা অবলম্বনের জন্য কয়েক মিটার দূরত্ব বজায় রাখার পরামর্শ দিয়েছে বিশ্বের তাবড় তাবড় স্বাস্থ্য সংস্থাগুলো। আর তাই এই সময়ে মাস্ক পরাকে বাধ্যতামূলক করা হয়েছে অনেক ক্ষেত্রেই। মাস্ক পরা কেন আবশ্যক? জনসাধারণের মধ্যে সেই বার্তা ছড়িয়ে দিতেই মুম্বই পুলিশ শাহরুখ খানের ‘ম্যায় হুঁ না’ সিনেমার সংশ্লিষ্ট দৃশ্যটিকে হাতিয়ার করে তুলেছে।

[আরও পড়ুন: ‘লকডাউনে মানুষ খাবার পাচ্ছে না, আপনি রান্নার ভিডিও দিচ্ছেন!’, ফের কটাক্ষের শিকার নুসরত]

এমন কঠিন পরিস্থিতিতেও দাঁড়িয়েও যেভাবে হাসিমুখে নিজেদের কর্তব্য পালনে অবিচল তাঁরা, তা সত্যিই অনুপ্রেরণা জোগানোর মতো। জনগনকে সাবধানবাণী দিতে মাঝেমধ্যেই মজার মজার টুইট করছে তাঁরা। কখনও অজয় দেবগনকে ধন্যবাদ জানাচ্ছে অভিনবভাবে তাঁর সিনেমার নাম ব্যবহার করে, তো আবার কখনও বা রাজকুমার রাও-শ্রদ্ধা কাপুরের ‘স্ত্রী’র সংলাপ ধার করে টুইটারের দেওয়ালে লিখছেন, “ও করোনা কভি মত আনা।” আর মুম্বই পুলিশের এমন মজার মজার টুইট দেখেই মেতেছেন নেটিজেনরা।

এমন কঠিন পরিস্থিতিতেও যে মুম্বই পুলিশ হাসিমুখে কর্তব্য পালন করছে, নেটদুনিয়ায় সেই বার্তা ছড়িয়ে দিতেই হয়তো এমন মজার টুইট। তাই শহরের আইন-শৃঙ্খলা বজায় রাখতে একদিকে পুলিশ যেমন কড়া মনোভাব পোষণ করছেন, তেমনই অসহায় ও সম্বলহীনদের জন্যও এগিয়ে আসছেন তারাই। এই লকডাউন পরিস্থিতিতেও যে ভালবাসা, সম্পর্ক, জ্ঞান, দয়া, আশা, ভক্তি এবং তদুপরি রসবোধ কোনও কিছুর উপরই ‘লকডাউন’ জারি হয়নি, সেটারই প্রমাণই দিল মুম্বই পুলিশ। এই কঠিন পরিস্থিতিতেও যেভাবে তাঁরা মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছেন, শ্রদ্ধা ও ধন্যবাদ ওঁদেরও প্রাপ্য। বলছেন মুম্বইবাসীরা।

[আরও পড়ুন: ট্রাকে করে ত্রাণসামগ্রী পৌঁছচ্ছে মজুরদের বাড়ি, চুপিসারেই মানুষের সাহায্যে সলমন  ]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement