১৪ জ্যৈষ্ঠ  ১৪২৭  বৃহস্পতিবার ২৮ মে ২০২০ 

Advertisement

যৌন হেনস্তার মামলায় নানা পাটেকরকে স্বস্তি দিল পুলিশ

Published by: Sandipta Bhanja |    Posted: June 13, 2019 3:54 pm|    Updated: June 13, 2019 3:55 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: #MeToo আন্দোলনে নয়া মোড়। বন্ধ হল নানা পাটেকরের বিরুদ্ধে যৌন হেনস্তার মামলা। গত বছর থেকেই এই একটি ইস্যুতে সরগরম গোটা বলিউড। হলিউডে হিল্লোল তোলার পর বলিউডও ভেসে গিয়েছিল #MeToo জোয়ারে। অভিনেত্রী তনুশ্রী দত্তর হাত ধরে বলিউডে শুরু হয় এই আন্দোলন, যা রীতিমতো কেড়ে নিয়েছিল একের পর এক পরিচালক-প্রযোজকদের রাতের ঘুম। মহিলাদের যৌন হেনস্তার অপরাধে ইন্ডাস্ট্রি থেকে বরখাস্ত হতে হয়েছিল বেশ কিছু ‘বলিউড হোতা’দের। প্রথম অভিযোগ ছিল জাতীয় পুরস্কারপ্রাপ্ত অভিনেতা নানা পাটেকরের বিরুদ্ধে। যার জেরে দু’ভাগে ভাগ হয়ে গিয়েছিল গোটা বলিউড। তবে, অবশেষে বৃহস্পতিবার স্বস্তির নিশ্বাস ফেললেন নানা। কারণ, তাঁর বিরুদ্ধে দায়ের করা তনুশ্রীর যৌন হেনস্তার মামলা খারিজ হয়ে গেল।  

[আরও পড়ুন: নানা পাটেকরের বিরুদ্ধে মুখ খুলে হুমকির শিকার তনুশ্রী ]

বৃহস্পতিবার দুপুরে চাঞ্চল্যকর তথ্য প্রকাশ্যে আসে। মুম্বই পুলিশের তরফে বন্ধ করে দেওয়া হল নানা পাটেকরের বিরুদ্ধে যৌন হেনস্তার মামলা। ঠিক কী কারণে বন্ধ হল এই মামলা? সূত্রের খবর, ওশিওয়াড়া থানার তরফে স্থানীয় আদালতে জানানো হয়েছে অভিনেতার বিরুদ্ধে যথাযোগ্য প্রমাণ মেলেনি। আর সেই কারণেই নানার বিরুদ্ধে দায়ের হওয়া #MeToo মামলা টেনে নিয়ে যাওয়ার কোনও কারণ দেখছেন না তাঁরা। তবে, স্থানীয় আদালত থেকে এ বিষয়ে কোনওরকম চূড়ান্ত নির্দেশ এখনও পর্যন্ত জানানো হয়নি। তবে, মুম্বই পুলিশের তরফ থেকে মামলা খারিজ করে দিলেও তনুশ্রী পালটা লড়ে যাবেন বলেই জানিয়েছেন। তবে, এক্ষেত্রে তনুশ্রীর মামলা লড়ার পরবর্তী পদক্ষেপ কী হবে, তা নিয়ে এখনও পর্যন্ত মুখ খোলেননি অভিনেত্রী। শুধু এটুকুই জানিয়েছেন যে মামলা খারিজ হওয়ার নেপথ্যে রাজনৈতিক যোগসাজশ দেখতে পাচ্ছেন তিনি। তবে যোগ্য বিচার না পাওয়া অবধি মামলা লড়ে যাবেন। আর গত বছর অর্থাৎ ২০১৮ সালের সেপ্টেম্বরে নানা পাটেকরের বিরুদ্ধে মুখ খুলেছিলেন তনুশ্রী দত্ত। অভিনেতার বিরুদ্ধে যৌন হেনস্তার অভিযোগ এনে মুম্বই পুলিশে মামলা দায়ের করেছিলেন অভিনেত্রী। শুধু নানা পাটেকরই নন, কোরিওগ্রাফার গণেশ আচারিয়ার বিরুদ্ধেও অভিযোগ এনেছিলেন। তাঁর অভিযোগ ছিল, ঘনিষ্ঠ হয়ে নাচ করার জন্য জোর করেছিলেন গণেশ। প্রযোজক অমিত সিদ্দিকি, রাকেশ সারেঙ্গিও এই অভিযোগের বাইরে ছিলেন না। যদিও গণেশ আচারিয়া এই অভিযোগ অস্বীকার করেছিলেন। কিন্তু তনুশ্রীর কথায় সবাই সেদিন মিলেমিশেই তাঁকে নাস্তানাবুদ করেছিলেন ‘হর্ন ওকে প্লিজ’ ছবির সেটে।

[আরও পড়ুন: ‘#MeToo’ নিয়ে ছবিতে বিচারকের ভূমিকায় অলোকনাথ!]

২০০৮ সালে চলছিল ‘হর্ন ওকে প্লিজ’ ছবির শুটিং। ছবির একটি গানের দৃশ্যের শুটিং করছিলেন তনুশ্রী। তাঁর অভিযোগ, তখন নাকি নানা পাটেকর তাঁকে অশালীনভাবে স্পর্শ করার চেষ্টা করেন। এরপর তিনি অভিনেতার সঙ্গে কোনও রকম ঘনিষ্ঠ দৃশ্যে অভিনয় করতে চাননি। আর এই অভিযোগের ভিত্তিতেই মুম্বই পুলিশে মামলা দায়ের করেছিলেন তিনি। শুধু তাই নয়, মহিলা কমিশনের দ্বারস্থও হয়েছিলেন তনুশ্রী। তবে ১৩ জুন বৃহস্পতিবার নানার বিরুদ্ধে মামলা বন্ধ হয়ে যাওয়ার পর যে বলিউডে #MeToo আন্দোলন এক নয়া মোড় নেবে, তা বলাই বাহুল্য।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement