২ আশ্বিন  ১৪২৭  শনিবার ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

নতুন করে সেন্সর বোর্ডে ‘পদ্মাবতী’, জট কি কাটবে?

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: December 12, 2017 10:29 am|    Updated: September 19, 2019 5:32 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: জটিলতা অব্যাহত। তার মধ্যেই নতুন আবেদন করে সেন্সর বোর্ডের দ্বারস্থ হলেন ‘পদ্মাবতী’র নির্মাতারা। আগামী সপ্তাহে ছবি দেখবেন সার্টিফিকেশন বোর্ডের সদস্যরা। তারপরই চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

বিয়ের পরও নেটদুনিয়ার খোরাক বিরুষ্কা, শুভেচ্ছাতেও মশকরা ]

এর আগেও সেন্সর বোর্ডে গিয়েছিল ‘পদ্মাবতী’। কিন্তু টেকনিক্যাল কারণে তা বাতিল করে সেন্সর বোর্ড। ছবি নিয়ে গোড়া থেকেই জটিলতা ছিল। ইতিহাসকে বিকৃত করা হয়েছে অভিযোগ করে দিকে দিকে আন্দোলন দানা বাঁধছিল। সেই প্রেক্ষিতে বিশেষজ্ঞদের নিয়ে একটা প্যানেল তৈরির পরিকল্পনা ছিল বোর্ডের। কিন্তু গণ্ডগোল বাধিয়ে বসেন নির্মাতারাই। ছবি ইতিহাসভিত্তিক না কাল্পনিক, সে বিষয়ে স্পষ্ট করে কিছু বলা ছিল না। টেকনিক্যাল এই বিভ্রান্তির কারণেই ছবি ফিরিয়ে দেন বোর্ড কর্তারা।

[ ভাঙনের মুখে সুপারস্টার শাকিব-অপুর বিয়ে, ঠেকাতে কারা উদ্যোগী হল জানেন? ]

এদিকে সেন্সর সার্টিফিকেশনের আগেই ছবি নিয়ে মুখ খোলায় সুপ্রিম কোর্ট ভর্ৎসনার মুখে পড়েছিলেন একাধিক নেতা-মন্ত্রী। ছবি নিয়ে লাগাতার কথা চলছিল। কিন্তু যেহেতু ছবি সেন্সরের ছাড়পত্র পায়নি, সুতরাং তা বিচারাধীন বিষয়। তা নিয়ে জনপ্রতিনিধিরা কেন মুখ খুলছেন, সে প্রশ্ন তোলে সুপ্রিম কোর্ট। হুমকির জেরে পরিস্থিতি ক্রমশ হাতের বাইরে চলে যেতে থাকে। এমনকী একটি মৃত্যুও জড়িয়ে যায় এই বিতর্কে। যদিও নাহারগড় ফোর্টের সে মৃত্যু পরে আত্মহত্যা বলেই চিহ্নিত হয়েছে। বিবাদ মেটাতে সংসদীয় কমিটি তৈরি করা হয়। সেখানে পরিচালক সঞ্জয় লীলা বনশালি জানান, ছবি ইতিহাসনির্ভর নয়। বরং সুফি কবি মালিক মহম্মদ জায়সির কবিতা অবলম্বনেই এ ছবি তৈরি হয়েছে। কোথাও কোনও বিকৃতি ঘটানো হয়নি। তাঁর এই কথার পর, অনেকটা শান্ত হয় আন্দোলন। যদিও ছবির মুক্তি ঝুলেই থাকে। একাধিক আদালত এ নিয়ে তিরস্কার করলেও, দেশের ভাবমূর্তি ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে বললেও, আদতে কাজের কাজ কিছু হয়নি। বাস্তব এই, কর্ণি সেনার মতো একটা সংগঠনের দাপটেই আটকে গিয়েছে ছবির মুক্তি।

[ অর্থকষ্টে দিন কাটাচ্ছেন, প্রকাশ্যেই কাজের আরজি অভিনেত্রীর ]

এই প্রেক্ষিতেই নতুন করে আবেদন জানালেন ছবির নির্মাতারা। বোর্ড সূত্রে জানানো হয়েছে, নতুন আবেদনে সমস্ত নিয়মকানুন বজায় রাখা হয়েছে। যে যে কারণে গতবার ফিরিয়ে দেওয়া হয়েছিল সিনেমা, তার পুনরাবৃত্তি যাতে না হয়, সেদিকে নজর রেখেছেন নির্মাতারা। আগামী সপ্তাহে বোর্ডের সদস্যরা ছবি দেখবেন। তারপরই ছাড়পত্র দেওয়ার বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। পরিস্থিতি যেদিকে এগোচ্ছে তাতে নতুন করে কোনও ভুল না হলে, ‘পদ্মাবতী’ জট কাটারই ইঙ্গিত মিলছে।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement