২ আশ্বিন  ১৪২৭  রবিবার ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

মাস খানেক ধরেই মুম্বই পুলিশের তাবড় কর্তাদের সঙ্গে যোগাযোগ! রিয়াকে ফের তলব ইডি’র

Published by: Sandipta Bhanja |    Posted: August 8, 2020 11:02 am|    Updated: August 8, 2020 11:02 am

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: মাস খানেক ধরেই মুম্বই পুলিশের কর্মকর্তাদের সঙ্গে যোগাযোগ! বিস্ফোরক তথ্য মিলল রিয়া চক্রবর্তীর (Rhea Chakraborty) কল রেকর্ড থেকে। তাহলে কি সুশান্ত ঘনিষ্ঠদের আশঙ্কাই সত্যি? মুম্বই পুলিশের অন্দর থেকেই কেউ কলকাঠি নাড়ছে রিয়াকে বাঁচানোর জন্য? এই মুহূর্তে এই প্রশ্নই সবথেকে জোরালো হয়ে উঠেছে।

ক্রমশ জটিল হচ্ছে সুশান্ত সিং রাজপুত (Sushant Singh Rajput) মামলা। সুপ্রিম নির্দেশ পাওয়ার আগেই তদন্তের প্রস্তুতিতে ময়দানে নেমে পড়েছে সিবিআই। জোরকদমে চলছে হোমওয়ার্ক। ইতিমধ্যেই শুক্রবার জনসমক্ষে এসেছিলেন অভিনেত্রী। ইডির দপ্তরে প্রায় সাড়ে ৮ ঘণ্টা ম্যারাথন জেরার মুখে পড়েছেন রিয়া চক্রবর্তী। দ্বিতীয় দফার জেরার জন্য ফের ১০ আগস্ট ইডির দপ্তরে ডেকে পাঠানো হয়েছে তাঁকে। সিবিআইয়ের নজরও তাঁর দিকে। বিহার পুলিশ ময়দান থেকে আপাতভাবে সরলেও বর্তমান পরিস্থিতিতে রিয়া যে বেশ চাপের মুখে, তা বোধহয় আর আলাদা করে বলার অপেক্ষা রাখে না! উপরন্তু মুম্বই পুলিশের বিরুদ্ধেও অভিযোগ উড়ে এসেছে যে, তারা সুশান্তের প্রাক্তন প্রেমিকাকে বাঁচানোর চেষ্টা করছে। আর এসবের মাঝেই সম্প্রতি প্রকাশ্যে এসেছে রিয়া চক্রবর্তীর ফোন কল রেকর্ড। সেখানেই তথ্য মিলল যে মাসখানেক ধরেই মুম্বই পুলিশের (Mumbai Police) কর্তাব্যক্তিদের সঙ্গে ভালরকম যোগাযোগ রয়েছে অভিনেত্রীর।

অন্যদিকে, রিয়া যে পাটনা থেকে মুম্বই আদালতে মামলা স্থানান্তরের আরজি জানিয়েছিলেন শীর্ষ আদালতে ১১ আগস্ট, মঙ্গলবার তারই শুনানি রয়েছে সুপ্রিম কোর্টে।

[আরও পড়ুন: কিছুই মনে পড়ছে না! ইডি’র প্রশ্নবাণের উত্তরে একই সুর রিয়ার]

প্রথম থেকেই অনুরাগীদের একাংশ আঙুল তুলেছিলেন মুম্বই পুলিশের বিরুদ্ধে। তথ্য গোপন করার চেষ্টা করছে কিংবা রিয়াকে বাঁচানোর চেষ্টা করছে মুম্বই পুলিশ, এরকম অভিযোগই এসেছিল। এরপর মুম্বই পুলিশ রীতিমতো সাংবাদিক সম্মেলন করে জানাতে বাধ্য হয়েছিল যে তাঁরা অত্যন্ত গুরুত্ব সহকারেই এই মামলাটি দেখছে। তবে কল রেকর্ড প্রকাশ্যে আলার পর তো সব উলাট-পুরান। সূত্রের খবর, রিয়া চক্রবর্তীর কল ডেটা রেকর্ডস ঘেঁটে দেখা গিয়েছে মুম্বইয়ের তাবড় পুলিশ কর্তাদের সঙ্গে আগে থেকেই যোগাযোগ ছিল রিয়ার। এমনকী ডিজিপি অভিষেক ত্রিমুখীর সঙ্গে তাঁর বেশ কয়েকবার কথাও হয়েছে। শুধু ফোনই নয়, পুলিশ অফিসারদের মধ্যে এসএমএস চালাচালিও হয়েছে বলে খবর। ওই নম্বর থেকে একই দিনে রিয়ার কাছে দু’টি ফোনও এসেছিল।

অন্যদিকে, রিয়ার আইনজীবী সতীশ মানশিন্ডের বক্তব্য, রিয়ার লুকনোর কিছু নেই। দ্বিতীয়বার জেরার জন্যেও প্রস্তুত তিনি। কারণ, গতকালই ইডি দপ্তর সূত্রে খবর মিলেছিল যে রিয়া নাকি তদন্তে অসহযোগিতা করছেন। সম্পত্তি, ফ্ল্যাট-বাড়ির কাগজপত্র দেখাতে পারেননি। এবং বেশিরভাগ প্রশ্নের উত্তরেই, “কিচ্ছু মনে পড়ছে না” বলে জানিয়েছেন। যদিও এসব অভিযোগ উড়য়ে দিয়েছেন তাঁর আইনজীবী। তাই দ্বিতীয় দফার জেরার জন্য ফের ১০ আগস্ট ইডির দপ্তরে ডেকে পাঠানো হয়েছে রিয়া চক্রবর্তীকে।

[আরও পড়ুন: রাজ চক্রবর্তীর নামে ডেটিং অ্যাপে মেয়েদের সঙ্গে গল্প! ফের ভুয়ো অ্যাকাউন্টের শিকার পরিচালক]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement