১৪  আশ্বিন  ১৪২৯  রবিবার ২ অক্টোবর ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

‘সংসার সীমান্তে’ চিরঘুমে ‘রাজা’ সন্তু, চোখের জলে বাবাকে বিদায় মেয়ে স্বস্তিকার

Published by: Sandipta Bhanja |    Posted: March 12, 2020 9:33 am|    Updated: March 12, 2020 10:05 am

Tollywood celebs pay homage to veteran actor Santu Mukherjee

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: বুধবার রাত, ঘড়ির কাঁটা তখন ১১টা পেরিয়েছে। গল্ফগ্রীনের বাড়ি থেকেই ক্যাওড়াতলা মহাশ্মশানের দিকে মহাপ্রস্থান ঘটে অভিনেতা সন্তু মুখোপাধ্যায়। ১১.১০ নাগাদ বাড়ি থেকে বের করা হয় অভিনেতার মরদেহ। শেষযাত্রায় বাবাকে বিদায় জানাতে গিয়ে প্রায় কান্নায় ভেঙে পড়েন সন্তুকন্যা স্বস্তিকা মুখোপাধ্যায়। ১১.৪০ নাগাদ পঞ্চভূতে বিলীন হয়ে যান ‘সংসার সীমান্তে’র ‘রাজা’।  

 

বুধবার রাতেই সন্তু মুখোপাধ্যায়ের খবর প্রকাশ্যে আসতে অভিনেতার বাড়িতে যান রাজ্যের মন্ত্রী অরূপ বিশ্বাস। মাল্যদান করে শ্রদ্ধার্ঘ্যও নিবেদন করেন। প্রবীণ অভিনেতার প্রয়াণের খবর প্রকাশ্যে আসতেই শোকের ছায়া টলিউড ইন্ডাস্ট্রিতে। গতকাল রাতেই শোকবার্তা জ্ঞাপন করেছেন মাধবী মুখোপাধ্যায়, কৌশিক গঙ্গোপাধ্যায়-সহ আরও অনেকে। সহকর্মীর মৃত্যুতে স্মৃতিমেদুর সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়ের গলা যেন বুজে আসছিল। নস্ট্যালজিয়ায় ভেসে সাবিত্রী চট্টোপাধ্যায় জানিয়েছেন সিনেমার সেটেই সন্তু মুখোপাধ্যায়কে আইবুড়ো ভাত খাওয়ানোর কথা। টলিউডের নবীন প্রজন্মের তারকারাও শোকপ্রকাশ করেছেন।

অভিনেত্রী মানালী মণীষা দে, যিনি কিনা ‘নকসিকাঁথা’ ধারাবাহিক ও শিবু-নন্দিতার ‘গোত্র’তে সন্তু মুখোপাধ্যায়ের সঙ্গে স্ক্রিনস্পেস শেয়ার করেছেন তিনি বললেন, “কত বড় মাপের অভিনেতা, কিন্তু কিছু ভুল হলে কী সুন্দর শিখিয়ে দিতেন। খুব মজার মানুষ ছিলেন।” একইরকমভাবে শিখিয়ে দেওয়ার কথা বলেছেন অভিনেত্রী অপরাজিতা আঢ্যও। তাঁর কথায়, “বহু দিন ধরে অসুস্থ ছিলেন জানি, কিন্তু এত তাড়াতাড়ি চলে যাবে ভাবিনি। প্রচুর শিখেছি ওনার কাছ থেকে। আমাকে খুব স্নেহও করতেন।”

[আরও পড়ুন: চিরনিদ্রায় সন্তু মুখোপাধ্যায়, সহকর্মীর মৃত্যুতে শোকাহত সৌমিত্র-মাধবী ]

সন্তু মুখোপাধ্যায়ের বাড়িতে অরূপ বিশ্বাস

পায়েল সরকার যিনি কিনা কেরিয়ারের একেবারে গোড়ার দিকে সন্তু মুখোপাধ্যায়ের সঙ্গে অভিনয় করার সুযোগ পেয়েছিলেন, তাঁর কথায়, “আমাদের ইন্ডাস্ট্রির জন্য অপূরণীয় ক্ষতি।” শুভাশীষ মুখোপাধ্যায়ের জানালেন, একবার নাকি গলায় তাঁর এতটাই সমস্যা হয়েছিল যে সন্তু মুখোপাধ্যায় নিজে ডাক্তার ঠিক করে দিয়ে সঙ্গে করে নিয়ে গিয়েছিলেন তাঁকে।

সহকর্মী মাধবী ও সাবিত্রী বিষাদমাখা সুরে অতীতের অনেক অজানা কথাই জানিয়েছেন। সাবিত্রী চট্টোপাধ্যায়ের কথায়, “ওর সঙ্গে কত মজা করেছি। এত ভাল অভিনেতা ছিল ও। মানুষটা চলেই গেল।” আউটডোর শুটে সবাই মিলে রান্না করে সন্তু মুখোপাধ্যায়কে আইবুড়ো ভাত খাওয়ানোর কথাও বললেন স্মৃতির স্মরণীতে ভেসে গিয়েছে।

ছবি- পিন্টু প্রধান

[আরও পড়ুন: প্রয়াত অভিনেতা সন্তু মুখোপাধ্যায়, শোকের ছায়া টলিউডে ]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে