BREAKING NEWS

৯ আশ্বিন  ১৪২৭  সোমবার ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

আত্মজীবনী লিখছেন সইফ, খবর প্রকাশ্যে আসতেই সোশ্যাল মিডিয়ায় নিন্দার ঝড়

Published by: Suparna Majumder |    Posted: August 25, 2020 2:15 pm|    Updated: August 25, 2020 2:15 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ১৬ আগস্ট জীবনের ৫০তম বছরে প্রবেশ করেছেন। বড় মেয়ে সারা আলি খানের (Sara Ali Khan) বয়স যখন ২৫ বছর, তখন নিজের চতুর্থ সন্তানের প্রতীক্ষা করছেন সইফ আলি খান (Saif Ali Khan)। নিজের ঘটনাবহুল জীবনের কাহিনি আত্মজীবনীতে তুলে ধরছেন সইফ। এই খবর প্রকাশ্যে আসতেই সোশ্যাল মিডিয়ায় ট্রোলড অভিনেতা।

[আরও পড়ুন: ‘সড়ক ২’ থেকে অরিজিৎ সিংয়ের গান বাদ দিয়েছেন মহেশ ভাট! নেটদুনিয়ায় নিন্দার ঝড়]

পতৌদ্দিনের তৎকালীন নবাব তথা ভারতীয় ক্রিকেট টিমের প্রাক্তন অধিনায়ক মনসুর আলি খান পতৌদি (Mansoor Ali Khan Pataudi) এবং অভিনেত্রী শর্মিলা ঠাকুরের (Sharmila Tagore) সন্তান সইফ আলি খান। মায়ের পেশাকেই নিজের পেশা হিসেবে বেছে নিয়েছিলেন সইফ। নয়ের দশকে কাজলের (Kajol) বিপরীতে ‘বেখুদি’ ছবির মাধ্যমে বলিউডে সইফের ডেবিউ হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু প্রথম শিডিউলের শুটিংয়ের পরই পরিচালক তাঁকে অপেশাদার বলে বাদ দিয়ে দিয়েছিলেন। সইফের বদলে চরিত্রটি করেছিলেন কমল সাধনা। পরে যশ চোপড়ার ‘পরম্পরা’ ছবির মাধ্যে বলিউডে সইফের সফর শুরু হয়। তাঁর আগেই অবশ্য নিজের থেকে ১২ বছরের বড় অমৃতা সিংকে (Amrita Singh) বিয়ে করেছিলেন সইফ। অমৃতা ও সইফের কন্যা সারা এবং ছেলে ইব্রাহিম। নয়ের দশকে রোমান্টিক নায়ক হিসেবে নিজের পরিচিতি গড়েছিলেন সইফ। পরে তা ভেঙে ‘ওমকারা’, ‘একলব্য’ থেকে ‘লাল কাপ্তান’, ‘তানাজি’র মতো সিনেমায়। ‘টশন’ ছবির শুটিংয়ের সময় করিনা কাপুরের (Kareena Kapoor) প্রেমে পড়েন সইফ। পাঁচ বছরের প্রেম পর্বের পর ২০১২ সালে বিয়ে করেন দু’জন। জন্ম হয় তৃতীয় সন্তান তৈমুরের। কিছুদিন আগেই আবার করিনার সন্তানসম্ভবা হওয়ার খবর আসে। নিজের জীবনের এই সমস্ত জানা-অজানা ঘটনাই আত্মজীবনীতে তুলে ধরতে চলেছেন পতৌদির দশম নবাব। ২০২১-এ প্রকাশ্যে আসবে তাঁর লেখা বই।

[আরও পড়ুন: ‘মীরাক্কেল’ থেকে বাদ পড়লেন শ্রীলেখা! বিচারকের আসনে স্বস্তিকা না নুসরত? জোর জল্পনা]

সইফের আত্মজীবনীর খবর প্রকাশ্যে আসতেই তার বিরুদ্ধে সরব হয়েছে নেটদুনিয়ার একাংশ। সইফের আত্মজীবনীকে নেপোটিজমের চূড়ান্ত দলিল আখ্যা দিয়েছেন অনেকে। অনেকে আবার কটাক্ষ করে লিখেছেন, সইফের আত্মজীবনে সেই সমস্ত মানুষের কাছে উদাহরণ হতে পারে যাঁরা ক্রমাগত অবসর না নিয়ে বাজে অভিনয় করে যেতে পারেন।

 

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement