BREAKING NEWS

৭ আশ্বিন  ১৪২৭  বৃহস্পতিবার ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

ক্ষমা চাইলেন বিবেক, সোশ্যাল মিডিয়া থেকে মুছলেন ঐশ্বর্যকে নিয়ে কুরুচিকর পোস্ট

Published by: Sandipta Bhanja |    Posted: May 21, 2019 11:08 am|    Updated: May 21, 2019 1:13 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ঐশ্বর্য রাই বচ্চনকে নিয়ে মিম শেয়ার করে বিপাকে পড়লেন বিবেক ওবেরয়। ওয়েব দুনিয়া সরগরম হয় বিবেকের সমালোচনায়। জাতীয় মহিলা কমিশনের তরফে বিবেকের বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপ নেওয়ার কথা জানিয়ে অভিনেতাকে নোটিস পাঠানো হয়। সোমবার এই ঘটনার পরই তড়িঘড়ি ঐশ্বর্যকে নিয়ে শেয়ার করা টুইট নিজের সোশ্যাল মিডিয়া অ্যাকাউন্ট থেকে ডিলিট করে দেন বিবেক ওবেরয়। এমনকী, একটি টুইট পোস্ট করে ক্ষমাও চেয়ে নেন। তিনি বলেন, “ওই মিমকে কেন্দ্র করে আমার কোনও মন্তব্য যদি একজন মহিলাকেও আঘাত করে থাকে, তাহলে আমি ক্ষমাপ্রার্থী। ক্ষমা করবেন। টুইট ডিলিট করে দিয়েছি।”

[ আরও পড়ুন: এক্সিট পোলের মজাদার মিম পোস্ট করে হাসির খোরাক বিবেক ওবেরয় ]

ক্ষমা চাওয়ার পাশাপাশি, আরও একটি টুইট পোস্টে বলেন, “কখনও কখনও তোমার কাছে যা ক্ষতিকারক মনে হবে না এবং মজার মনে হবে, অন্যের কাছে তা নাও হতে পারে। বিগত ১০ বছর ধরে প্রায় দু’ হাজার দুঃস্থ মেয়েদের উন্নতির জন্য কাজ করে এসেছি। তাই আমি কোনও মহিলাকে অসম্মান করার ব্যাপারে ভাবতেও পারি না।”

প্রসঙ্গত, ঐশ্বর্যর ভক্তরা তো বটেই, বিবেকের বলিউড সহকর্মীরাও তীব্র সমালোচনা করেন। বিবেকের রিটুইট করা মিমের তীব্র নিন্দা করেন সোনম কাপুর। “ডিসগাস্টিং অ্যান্ড ক্লাসলেস..” এমন মন্তব্যে বিঁধেছেন মোদি বায়োপিক অভিনেতাকে। সোনমের এহেন মন্তব্যের জন্য বিবেকও তাঁকে একহাত নিয়েছেন। প্রশ্ন তুলেছেন সোনমের অভিনয় নিয়ে। বলেছেন, “আগে সিনেমায় অতি অভিনয় করা বন্ধ করুন। সঙ্গে সোশ্যাল মিডিয়ায় অতিরিক্ত প্রতিক্রিয়া দেওয়াও।”

[ আরও পড়ুন:  ৩ মিনিটেই বাজিমাত, কান চলচ্চিত্র উৎসবে পুরস্কৃত ভারতীয় ছবি]

‘‘তোমাকে ছেড়ে অভিষেককে বেছে নেওয়ার সিদ্ধান্তে যে ঐশ্বর্য একদম সঠিক ছিলেন, তা প্রমাণ করে দিলেন”-এমন-ই মত নেটিজেনদের। প্রসঙ্গত, মিমে এক্সিট পোলের প্রসঙ্গ টেনে নিম্নরুচির আক্রমণ করা হয়েছে প্রাক্তন বিশ্বসুন্দরী ঐশ্বর্য রাই বচ্চনকে। আর ওই মিম নিয়ে সোমবার সকাল থেকেই সরগরম ওয়েব দুনিয়া। ছবিটির তিনটি ভাগ। ওপিনিয়ন পোল অর্থাৎ জনমত সমীক্ষা। এক্সিট পোল অর্থাৎ বুথ ফেরৎ সমীক্ষা এবং রেজাল্ট অর্থাৎ চূড়ান্ত ফলাফল। এই তিনটি ভাগে ব্যবহার করা হয়েছে ঐশ্বর্যর জীবনের তিনটি সময়ের ছবি- জনমত সমীক্ষায় সলমন খানের সঙ্গে ঐশ্বর্য। 

বুথ ফেরৎ সমীক্ষায় বিবেক ওবেরয়ের সঙ্গে। আর চূড়ান্ত ফলাফলের জায়গাটিতে ঐশ্বর্য-অভিষেক আর আরাধ্যার হাসিখুশি ছবি। টুইটারে বিবেক ওবেরয় রিটুইট করেন ছবিটি। ক্যাপশনে লেখেন, “হাহা! বেশ ভাল ভাবনা। কোনও রাজনৈতিক বিষয় নয়। স্রেফ জীবন।” আর এই ছবি টুইটারের টাইমলাইনে পৌঁছাতে না পৌঁছাতেই তীব্র সমালোচনার মুখোমুখি হন বিবেক ওবেরয়। এমনিতেই মোদি বায়োপিকের পর থেকে একাধিকবার খবরের শিরোনামে এসেছেন বিবেক।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement