২৯ অগ্রহায়ণ  ১৪২৫  শনিবার ১৫ ডিসেম্বর ২০১৮ 

BREAKING NEWS

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

২৯ অগ্রহায়ণ  ১৪২৫  শনিবার ১৫ ডিসেম্বর ২০১৮ 

BREAKING NEWS

সোমনাথ লাহা: নিজস্ব প্রযোজনা সংস্থা খুলেছেন একবছরও হয়নি। ‘চ্যাম্প’, ‘ককপিট’-এর মতো ছবি নির্মাণ করে ইতিমধ্যেই দর্শকদের তাক লাগিয়ে দিয়েছেন টলিউড সুপারস্টার দেব। মুক্তির অপেক্ষায় প্রহর গুনছে সন্ত্রাসবাদের আবহে গাঁথা থ্রিলার ছবি ‘কবীর’। এখানেই শেষ নয়, পাইপ লাইনে রয়েছে ‘পদ্মশ্রী সুবাসিনী মিস্ত্রি’-র বায়োপিক।

তবে সিরিয়াস ছবির পর এবার দেবের ঝুলি থেকে বেরোতে চলেছে প্রাণখোলা দমফাটা হাসির ‘হইচই আনলিমিটেড’। কমেডি এই ছবি নির্মিত হতে চলেছে দেবের প্রযোজনা সংস্থা দেব এন্টারটেনমেন্ট ভেনচার্স প্রাঃ লিমিটেডের ব্যানারে। ছবির পরিচালক অনিকেত চট্টোপাধ্যায়। দেবের সঙ্গে এটি-অনিকেতের তৃতীয় ছবি (‘কবীর’ ও ‘সুবাসিনী মিস্ত্রী’-র পর)। নিখাদ এই কমেডি ছবি মুক্তি পাবে পুজোয়। এখানেই শেষ নয়। ছবির একটা বিরাট অংশের শুটিং হতে চলেছে উজবেকিস্তানে। তবে অন্দরের খবর কমেডির মধ্যেও এই ছবিতে রয়েছে প্লেন হাইজ্যাক ও তাকে ছাড়িয়ে নিয়ে আসার মতো সিরিয়াস বিষয়বস্তুও।

[অবসাদ নিয়ে কটাক্ষ, সলমনকে কড়া জবাব দীপিকার]

এক অর্থে মাল্টিস্টারার এই ছবি। তবে এখানেও চমক দিয়েছেন দেব। দেব-এর প্রযোজনা সংস্থার সব ছবি মানেই দেবের নায়িকা রুক্মিণী, এটা যখন প্রায় সবাই ধরেই নিয়েছিলেন বড় চমকটা সেখানেই রয়েছে। এই ছবিতে দেবের বিপরীতে রয়েছেন মিমি চক্রবর্তী। অনেকদিন পরে আবার বড় পর্দায় জুটি বাঁধতে চলেছেন দেব-মিমি। এর পাশাপাশি ছবিতে রয়েছেন শাশ্বত চট্টোপাধ্যায়, রজতাভ দত্ত, খরাজ মুখোপাধ্যায়, প্রিয়াঙ্কা সরকার, সুদীপ্তা চক্রবর্তী, কনীনিকা বন্দ্যোপাধ্যায়, বিশ্বজিৎ চক্রবর্তী, মানসী সিনহা, অর্ণ মুখোপাধ্যায় ও অন্যান্য শিল্পী।

এছাড়াও ছবিতে একটি গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে দেখা যাবে পূজা বন্দ্যোপাধ্যায়কে। ইতিমধ্যেই ছবির মহরত হওয়ার পাশাপাশি ছবি ঘোষণার এক আনুষ্ঠানিক ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় আপলোড করা হয়েছে। যেটি দেখে বোঝাই যাচ্ছে এবার পুজোয় জমজমাট হইচই হতে চলেছে। ছবির নামকরণেই অবশ্য তা পরিষ্কার করে দিয়েছেন নির্মাতারা।সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে এ মাসের শেষাশেষি ছবির প্রযোজক পরিচালক রওনা দেবেন উজবেকিস্তানে রেকি করতে।

[নগ্নতা পেরিয়ে আত্মার সন্ধান, ‘ন্যুড’ ট্রেলারে সংগ্রামের নিশান]

ছবির কাহিনি আবর্তিত হয়েছে চার নায়ক ও পাঁচ নায়িকাকে কেন্দ্র করে। এক বড় শিল্পপতির ঘরজামাই উত্তীয়(দেব)। তার স্ত্রী(মিমি) অতি রক্ষণশীল। সর্বক্ষণ পুজোপাঠ নিয়ে ব্যস্ত, আর এটাই উত্তীয়ের জীবনের সমস্যার কারণ। প্রোমোটার বিজন(খরাজ)-এর আবার দুই স্ত্রী। কিন্তু কেউই আবার কারও অস্তিত্বের কথা জানে না। এই দুই স্ত্রীর চরিত্রে দেখা যাবে কনীনিকা ও মানসী সিনহাকে। পাছে বিজনের এই দুই স্ত্রী একে অন্যের বিষয়ে জানতে পেরে যান তাই সর্বক্ষণ দুশ্চিন্তায় ভোগে বিজন, রিটায়ার্ড ফ্লাইট লেফটেন্যান্ট অনিমেষ চাকলাদার(শাশ্বত) অবিবাহিত। তার জীবনে সমস্যার এক অন্যতম কারণ এক গুন্ডা(সুদীপ্তা)। সে মাঝেমধ্যেই বাড়ি এসে বাড়িটা তাকে লিখে দিতে বলে। আজমল খান (অর্ণ) গ্যারাজ মেকানিক। তার স্ত্রী অভিনেত্রী হতে চায়। এই চরিত্রে রয়েছেন প্রিয়াঙ্কা। আজমলের স্ত্রী মনে করে এই কালিঝুলি মাখা মানুষটি তার বর হওয়ার উপযুক্ত নয়। প্রত্যেকেই নিজেদের জীবনে অবসাদে ভোগে। এমতাবস্থায় তারা উজবেকিস্তানে বেড়াতে যায়। সেখানে গিয়ে তাদের সঙ্গে আলাপ হয় গাইড ললিতা ঝুরঝুরোস্কির(পূজা বন্দ্যোপাধ্যায়)-র সঙ্গে। আর তারপর ঘটনাচক্রে তৈরি হয় এমন সমস্যা যা রীতিমতো হইচই বাধিয়ে দেয় তাদের জীবনে। সেটা কী? উত্তর মিলবে ছবির পর্দায়। ছবির কাহিনি ও চিত্রনাট্য লিখেছেন পরিচালক স্বয়ং।

সূত্রের খবর, বছর দেড়েক আগে উজবেকিস্তান বেড়াতে গিয়েই এই ছবির বিষয় ভাবনাটা মাথায় এসেছিল পরিচালকের। অনিকেত চট্টোপাধ্যায়ের মতে, “উজবেকিস্তানের বেলি ডান্স, নানারকম পানীয়, দুর্দান্ত খাবার, অসাধারণ লোকেশন। সবমিলিয়ে এক হইহই ব্যাপার। আর বেড়ানো, খাওয়া-দাওয়া, মজা, এই বিষয়গুলো আমায় ভীষণরকম আকর্ষণ করে। এটাও সিচুয়েশনাল কমেডি ছবি, এমন একটা গল্প যেখানে একদল দম্পতি বেড়াতে গিয়েছে। গিন্নিরা ঐতিহাসিক জায়গা দেখছে আর কর্তারা মজা করছে। এইভাবেই গল্পের ভাবনাটা মাথায় এসেছিল।” দেবের কথায় “আদতে এটাও সিরিয়াস ছবি, সিরিয়াস বিষয়কে নিয়ে আমরা কমেডি ছবি করছি। সেটা দর্শকরা ছবি দেখলেই বুঝতে পারবেন, ছবিটা কিন্তু কোনও রিমেক নয়। দর্শকরা পুজোর সময় এই ছবি দেখলে সত্যিই আনন্দ পাবেন।”

[‘সুই ধাগা’র শুটিংয়ে আচমকা মেজাজ হারালেন অনুষ্কা]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং