BREAKING NEWS

২০ শ্রাবণ  ১৪২৭  বুধবার ৫ আগস্ট ২০২০ 

Advertisement

কবীর সুমনকে পালটা, ফেসবুকে খোলাখুলি ‘নিজেকেই’ চিঠি লিখলেন অনিকেত

Published by: Bishakha Pal |    Posted: April 7, 2019 2:51 pm|    Updated: April 7, 2019 2:51 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: কিছুদিন আগে প্রকাশ্যে চিঠি লিখেছিলেন কবীর সুমন। এবার তার উত্তর দিলেন অনিকেত চট্টোপাধ্যায়। প্রকাশ্যেই। তবে ফেসবুকের ওই চিঠি কবীর সুমনকে উদ্দেশ্য করে লেখা নয় বলেই জানিয়েছেন পরিচালক। লিখেছেন, চিঠিটি একান্তই তাঁর নিজস্ব। নিজেকেই এই চিঠির মাধ্যমে খোলসা করেছেন তিনি।

চিঠির শুরুতেই কবীর সুমনের কাছে নিঃশর্ত ক্ষমা চেয়ে নিয়েছেন অনিকেত চট্টোপাধ্যায়। বলেছেন, যেদিন তিনি প্রথম জানতে পারেন তাঁর কারণে এমন একজন প্রবাদপ্রতীম শিল্পী দুঃখ পেয়েছেন, সেদিনই তিনি ক্ষমা চেয়েছিলেন, আজও চাইলেন। এই নিয়ে তাঁর মনে কোনও পুঞ্জীভূত অভিমান নেই। কবীর সুমন যে ‘হবুচন্দ্র রাজা গবুচন্দ্র মন্ত্রী’ ছবিতে একটি চরিত্রে অভিনয় করেছেন, তা পরিচালকমশাই সংগীত পরিচালকের সম্মতিতেই সবাইকে জানিয়েছিলেন। এর মধ্যে কোনও ‘ফাঁস’ করে দেওয়ার গল্প ছিল না। আর যা নিয়ে কবীর সুমনের মানে লেগেছে সেই ‘হ্যান্ডেল করা’ প্রসঙ্গে তাঁর বক্তব্য, তিনি বা দেব কেউই কথাটা মন্দ অভিপ্রায় নিয়ে বলেননি। কবীর সুমনের মতো একজন সেনসেটিভ শিল্পীর সঙ্গে কাজ করা খুব একটা সহজ কথা নয়। সেই কথাই পরিচালককে জিজ্ঞাসা করেছিলেন প্রযোজক। আর সেটাই উঠে এসেছিল সাংবাদিকদের সামনে। সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায় বা অমিতাভ বচ্চনের সঙ্গে কাজ করতে গেলেও অনিকেত এই ধরনের কথাই বলতেন বলে জানিয়েছেন তিনি।

[ আরও পড়ুন: দেবের মন্তব্যে মেজাজ হারিয়ে ফেসবুকে ক্ষোভ উগরে দিলেন কবীর সুমন ]

অনিকেত দাবি করেছেন, যেই মুহূর্তে তিনি শুনলেন কবীর সুমন তাঁর উপর ক্ষুণ্ণ হয়েছেন, প্রায় সঙ্গে সঙ্গেই লেখেন, “ক্ষমা চাইছি, ক্ষমা।” কিন্তু উত্তর এল, “আমার টাকা মিটিয়ে দিন।” কিন্তু তারপর একাধিক কাজে ফেঁসে যান পরিচালক অনিকেত। খোলাখুলি কথা আর বলা হয়নি। তবে টাকার জন্য তিনি দেব এন্টারটেনমেন্টকে বলেছিলেন। যাই হোক, ‘শংকর মুদি’ দেখে কবীর সুমন যেদিন বলেন, “অনিকেত এক দলিল তৈরি করেছে, একটা সময়ের দলিল।” শুনে উচ্ছ্বসিত হয়েছিলেন পরিচালক। কিন্তু সমস্যা মেটেনি তাও। তার উপর যখন ফেসবুকে খোলা চিঠি লিখলেন কবীর সুমন, মেনে নিতে পারেননি পরিচালক। তাই ফেসবুকে লিখলেন, “প্রকাশ্যে তো কবীরদা বলেইছিলেন, আবার ফেসবুকে প্রকাশ্যে উনি লিখলেন। আমার মনে হল ওনাকে নয় নিজেকেই নিজে লিখি এই চিঠিখানা, নিজেকে নিজেই আগে বোঝাই যে এই প্রজন্মের অন্যতম শিল্পীকে আমি অসন্মান করার কথা ভাবতেই পারি না। আগে নিজে বুঝে উঠি তারপর সময়ে সুযোগে কবীরদাকেও বোঝাব।”  

[ আরও পড়ুন: অকালমৃত্যুর পথে আরও এক ‘সিনেমাওয়ালা’! মিত্রার পর এবার বন্ধ হবে রক্সি? ]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement