BREAKING NEWS

১৪ অগ্রহায়ণ  ১৪২৮  বুধবার ১ ডিসেম্বর ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

JNU-তে কৌশিক সেন, দেখা করলেন আক্রান্ত ছাত্রসংসদ সভানেত্রী ঐশীর সঙ্গে

Published by: Sandipta Bhanja |    Posted: January 17, 2020 2:17 pm|    Updated: January 17, 2020 5:51 pm

Bengali intellectual Kaushik Sen meets Aishi Ghosh

সোমনাথ রায়, দিল্লি: শুক্রবার জওহরলাল নেহেরু বিশ্ববিদ্যালয়ে পৌঁছলেন বাংলার বিশিষ্ট অভিনেতা তথা নাট্যকার কৌশিক সেন। JNU-তে গিয়ে আক্রান্ত বঙ্গকন্যা ঐশী ঘোষের সঙ্গে দেখা করে এলেন। উল্লেখ্য, ৫ জানুয়ারি JNU কাণ্ডের পর এই প্রথম বাংলা থেকে কোনও বিদ্বজ্জন দেখা করে এলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রসংসদের সভানেত্রী ঐশীর সঙ্গে। কথা বললেন। খোঁজখবর নিলেন সেই রাতে আক্রান্ত ৩০ জন শিক্ষার্থীরও।

কৌশিক সেন যে শুধু ঐশীর সঙ্গে কথা বললেন এমনটা নয়। বিশ্ববিদ্যালয়ে পাঠরত বাংলার অন্যান্য শিক্ষার্থীদের সঙ্গেও দেখা করলেন। উল্লেখ্য, ছাত্রসমাজের উপর হওয়া বারবার আক্রমণের বিরোধীতা করে কিন্তু কৌশিক সেন একাধিকবার আওয়াজ তুলেছেন।

দিল্লির জওহরলাল নেহরু বিশ্ববিদ্যালয়ে ৫ জানুয়ারি রাতে যেভাবে পড়ুয়াদের উপরে নির্যাতন চালিয়েছে একদল মুখঢাকা দুষ্কৃতী, তার নিন্দায় একতালে সোচ্চার হয়েছিলেন বাংলার বিশিষ্টজনেরা। কলকাতার রাজপথে নেমে শান্তিপূর্ণ মিছিলে হেঁটে প্রতিবাদ করেছেন অঞ্জন দত্ত, কৌশিক সেন, উষসী চক্রবর্তী, ঋদ্ধি সেন, সুরঙ্গমা বন্দ্যোপাধ্যায়-সহ আরও অনেকেই।

[আরও পড়ুন: শিব সেনার দপ্তরে ছবি তুলে সোশ্যাল মিডিয়ায় ট্রোলড তৃণমূল সাংসদ দেব ]

বঙ্গ বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ ঐশীর মাথার রক্ত নিয়ে সন্দেহপ্রকাশ করে বিদ্রূপ করলেও তাঁর মন্তব্যের পালটা দিতেও ছাড়েননি কৌশিক সেন। সেদিনের মিছিলে হাঁটাকালীনই রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষকে কটাক্ষ করে কৌশিক সেন মন্তব্য করেছিলেন, “উনি যেরকম উলটো-পালটা মন্তব্য করছেন, তাতে পরিষ্কার যে, ভয় পাচ্ছে বিজেপি সরকার। মোক্ষম ভয় পাচ্ছে। তাই এসব করে ছাত্রসমাজকে বাকরুদ্ধ করার চেষ্টা করছে। ঐশীর মাথার রক্তও নকল কিনা, তা নিয়েও প্রশ্ন তুলেছেন উনি। উনি হয় পাগল, নয় শয়তান।” পাশাপাশি তিনি এও উল্লেখ করেন যে, “পশ্চিমবঙ্গে যেন আরএসএস বা বিজেপি কোনওরকম সুবিধে না করতে পারে, সেদিকটা নজর দিতে হবে সকলেরই।” 

এর আগে জামিয়া মিলিয়াতে CAA প্রতিবাদী আন্দোলন ইস্যুতে ছাত্রসমাজের উপর পুলিশি আক্রমণের বিরুদ্ধেও সরব হয়েছিলেন কৌশিক সেন। ছাত্রসমাজই ভবিষ্যতের দূত। তারাই দেশের আওয়াজ। কারণ, তাদের কণ্ঠেই সূচিত হয় আগামির পদধ্বনি। কিন্তু সেই ছাত্রসমাজের উপরেই যখন নেমে আসে রাষ্ট্র-রাজনীতির খড়্গাঘাত, তখন যে বিদ্বজ্জনেরা চুপ করে দেখবেন না, মুখ খুলবেন। তদুপরি, আক্রান্তের পাশে গিয়ে দাঁড়াবেন। সেটা বারবার দেখিয়ে দিয়েছেন বাংলার বুদ্বিজীবীমহল। শুক্রবার তা আবারও প্রমাণ করলেন কৌশিক সেন।

[আরও পড়ুন: শিব সেনার দপ্তরে ছবি তুলে সোশ্যাল মিডিয়ায় ট্রোলড তৃণমূল সাংসদ দেব ]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে