১ অগ্রহায়ণ  ১৪২৬  সোমবার ১৮ নভেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

চন্দ্রশেখর চট্টোপাধ্যায়:  মঙ্গলবারই বাচিক শিল্পী উর্মিমালা বসুকে নিয়ে কুরুচিকর পোস্টের বিরুদ্ধে মুখ খুলেছিলেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়। এবার নিজের সংসদীয় এলাকা আসানসোলে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে আরও একধাপ এগিয়ে প্রশ্ন তুললেন উর্মিমালা বসুর রাজনৈতিক মতাদর্শ নিয়ে।

[আরও পড়ুন:উর্মিমালা বসুকে ‘যৌনদাসী’ বলে আক্রমণ সমর্থকদের, শিল্পীর কাছে ক্ষমা চাইলেন বাবুল ]

গত বৃহস্পতিবার কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়র যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রবেশ নিয়ে ধুন্ধুমার পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছিল। ছাত্রদের সংঘর্ষের জেরে অগ্নিগর্ভ হয়ে উঠেছিল গোটা যাদবপুর চত্বর। যেই ঘটনার তীব্র নিন্দা করেছিলেন উর্মিমালা বসু। সেই সঙ্গে সোশ্যাল মিডিয়ায় একটি পোস্ট করে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বাবুলকে ক্ষমাও চেয়ে নিতে বলেছিলেন তিনি। “বাবুলের উচিত বাচ্চাগুলোর কাছে ক্ষমা চেয়ে নেওয়া”- আর ঠিক পোস্টের পর থেকেই উর্মিমালাকে নিয়ে একটি অশ্লীল মিম ভাইরাল হতে থাকে নেটদুনিয়ায়। যেখানে বিশিষ্ট এই বাচিক শিল্পীকে ‘বামপন্থীদের যৌনদাসী’ বলে আক্রমণ করা হয়। তারপর থেকেই উর্মিমালা বসুর ট্রোলড হওয়া নিয়ে গর্জে উঠেছে রাজ্যের সংস্কৃতিমহল। যেই ঘটনার জেরে মঙ্গলবার সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করে ক্ষমা চেয়ে নিয়েছিলেন বাবুল সুপ্রিয় নিজে। তবে কুরুচিকর ওই মিমের বিরুদ্ধে মুখ খোলার পর সন্ধে গড়াতেই কেন্দ্রীয় মন্ত্রী প্রশ্ন তোলেন উর্মিমালা বসুর রাজনৈতিক মতাদর্শ নিয়ে।

[আরও পড়ুন: চিন্তার মুক্তিতেই নবজন্ম, পুজোয় আবার সুমন-ভবতোষ যুগলবন্দি ]

বাবুল বলেন, “উর্মিমালা বসু এবং তাঁর স্বামী জগন্নাথ বসুকে আমি ব্যক্তিগতভাবে চিনি। ওনার বিরদ্ধে হওয়া কুরুচিকর মিমের জন্য ক্ষমা চেয়েছি। কিন্তু ওঁরা বোধহয় ধর্মান্ধ। ‘বাম-বাদে’ বিশ্বাসী হতেই পারেন। কিন্তু কেউ পক্ষপাতদুষ্ট না হলে, ওরকম মন্তব্য করে না। হঠাৎ প্রাসঙ্গিক হয়ে ওঠার জন্য বোধহয় মন্তব্য করেছেন। যদিও ওনাকে নিয়ে যা হয়েছে তার তীব্র বিরোধীতা করছি।” পাশাপাশি কারও বিরোধীতা করলেও এমন ভাষা যে কারও জন্যই কাম্য নয়, এও জানিয়ে দেন বাবুল। যাদবপুর কাণ্ডে উর্মিমালা বসুর মন্তব্যকে দায়িত্বজ্ঞানহীন এবং অসহনীয় বলে আখ্যা দেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী। বাচিক শিল্পীর মন্তব্যকে তীব্র ধিক্কারও জানিয়েছেন বাবুল। যাদবপুরের ছাত্রদের সমর্থনে কথা বলার জন্য উর্মিমালা বসুকে কটাক্ষ করার পাশাপাশি সোশ্যাল মিডিয়ায় অশালীন ভাষা ব্যবহারকারীদেরও এদিন আসানসোলে একহাত নেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী। হাবে-ভাবে বুঝিয়ে দেন যে তিনি এমন আচরণ মোটেই বরদাস্ত করবেন না।  

দেখে নিন সেই ভিডিও

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং