Advertisement
Advertisement
জগন্নাথ বসু

যৌন নিগ্রহের অভিযোগ নিয়ে মুখ খুললেন বাচিক শিল্পী জগন্নাথ বসু

কী জানালেন প্রবীণ বাচিক শিল্পী?

Did no such thing, says reciter Jagannath Basu on #MeToo allegation
Published by: Sandipta Bhanja
  • Posted:October 25, 2019 2:13 pm
  • Updated:October 25, 2019 2:13 pm

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: বিগত দিন কয়েক ধরেই #MeToo মুভমেন্টে উত্তাল হয়ে উঠেছে বাংলা সংস্কৃতিজগৎ। যৌন নিগ্রহের অভিযোগে উঠে এসেছে একের পর এক বিশিষ্ট ব্যক্তিদের নাম। সুদীপ্ত চট্টোপাধ্যায় এবং খ্যাতনামা বাংলা ব্যান্ড ‘মহীনের ঘোড়াগুলি’র গায়ক রঞ্জন ঘোষালের উপর ওঠা যৌন নিগ্রহের অভিযোগের রেশ মিটতে না মিটতেই অভিযোগ উঠেছিল আরেক খ্যাতনামা বিশিষ্ট ব্যক্তিত্বের দিকে। তিনি নাট্যজগতে অতি জনপ্রিয় নাম জগন্নাথ বসু। এবার নিজের উপর ওঠা যৌন নিগ্রহের অভিযোগের বিরুদ্ধে মুখ খুললেন প্রবীণ এই বাচিক শিল্পী।

তাঁর বিরুদ্ধে ওঠা যৌন হেনস্তার অভিযোগ খারিজ করে দিলেন জগন্নাথ বসু। জ্ঞানত তিনি কোনও অপরাধমূলক কাজ করেননি বলেই দাবী করেছেন খ্যাতনামা প্রবীন এই বাচিকশিল্পী। গত ৩০-৪০ বছর ধরে বাচিকশিল্পের সঙ্গে যুক্ত তিনি। একজন নিষ্ঠাবান কর্মী হিসেবে মেধা, মনন ও যোগ্যতার নিরিখে তাঁর সফল ছাত্রছাত্রীদের সংখ্যাও নেহাত কম নয়। এমনকী, ব্যক্তিগত চেনাজানা কিংবা আত্মীয়তার কারণে কোনও দিন কাউকে সুযোগও দেননি। আর বাচিকশিল্পী হিসেবে তাঁর নিজস্ব কিছু নীতিও রয়েছে, যার সঙ্গে এই অভিযোগের কোনও মিলই নেই, এমনটাই জানিয়েছেন জগন্নাথ বসু। পাশপাশি তিনি এও জানান যে, জ্ঞানত তিনি কোনও অপরাধ করেননি।

Advertisement

[আরও পড়ুন: এবার #MeToo বাণে বিদ্ধ প্রবীণ বাচিক শিল্পী জগন্নাথ বসু! ]

২২ অক্টোবর অর্থাৎ মঙ্গলবার সংগীতা নামে এক মহিলা সোশ্যাল মিডিয়ায় যৌন নিগ্রহের অভিযোগ এনেছিলেন এই বিশিষ্ট প্রবীন শিল্পীর বিরুদ্ধে। ২১ বছর বয়সেই তিনি যৌন হেনস্তার শিকার হয়েছিলেন বলে জানিয়েছেন সংগীতা। ফেসবুকে একটি পোস্ট করে তিনি লিখেছিলেন, “সুদীপ্ত চট্টোপাধ্যায় আর রঞ্জন ঘোষালের ভণ্ডামি তো সবাই জানল। জগন্নাথ বসুকে নিয়ে কেউ কিছু বলবে না?” সেই মহিলার অভিযোগ, দূরদর্শনের চাকরি এবং নিজের নামের অপব্যবহার করেছেন তিনি। অভিযোগকারিনী স্পষ্ট ভাষায় লিখেছেন, “আরও অনেক মেয়ে ও মহিলার সঙ্গে আমি নিজেও ভুক্তভোগী, আমার একুশ বছর বয়সে। দায়িত্ব নিয়ে বলছি।” যদিও খ্যাতনামা এই বাচিক শিল্পীর বিরুদ্ধে অভিযোগ ওঠায় দু’ভাগ হয়ে গিয়েছে নেটিজেনরা। কেউ কেউ অবশ্য মেনেও নিতে পারেননি। তবে বাংলা সংস্কৃতিজগতেও যে #MeToo মুভমেন্টের জোয়ার ক্রমাগত জোরদার হচ্ছে, তা বলাই বাহুল্য।   

Advertisement

[আরও পড়ুন: ‘স্যর চুলের মুঠি জোরে চেপে ধরে…’, ফের #MeToo অভিযোগে বিদ্ধ নামী নাট্য পরিচালক ]

Sangbad Pratidin News App

খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ