BREAKING NEWS

১৭  আষাঢ়  ১৪২৯  রবিবার ৩ জুলাই ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

করোনা যুদ্ধ জিততে সঙ্গী হোক গান, লকডাউনের দিনগুলিতে অনলাইনে অনুষ্ঠান সিধু-রূপঙ্করদের

Published by: Bishakha Pal |    Posted: May 4, 2020 4:28 pm|    Updated: May 4, 2020 9:12 pm

Kaushik events organize a online cultural program on corona

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: করোনার আতঙ্কে গোটা দেশ এখন ত্রস্ত। সংক্রমণ থেকে বাঁচতে চলছে লকডাউন। সাধারণ মানুষ গৃহবন্দি। হঠাৎ স্বাভাবিক জীবনযাত্রা পালটে যাওয়া জীবনের তাল কেটে গিয়েছে কোথাও। পরিস্থিতি কবে স্বাভাবিক হবে, তার এখনও কোনও ঠিক ঠিকানা নেই। এই অবস্থায় এক শান্ত, সুস্থ পরিবেশের অনুভব দেয় গান। মানসিকভাবে সুস্থ থাকার জন্য মিউজিকের মতো ওষুধ আর হয় না। তাই গানের মাধ্যমে করোনার বিরুদ্ধে যুদ্ধের উৎসাহ দিতে জোট বেঁধেছেন শিল্পীরা।

সম্প্রতি প্রয়াত হয়েছেন ঋষি কাপুর। অভিনয়ের পাশাপাশি তাঁর সিনেমার অন্যতম আকর্ষণ ছিল গান। এই গানগুলি অমর, অক্ষয়। এর সঙ্গে যুক্ত এক ব্যক্তি আজ বাংলার এক সংগীত শিল্পীর ডাকে, বাংলার মানুষের কাছে কিছু অসাধারণ গান নিয়ে হাজির হতে চলছেন। তাঁর নাম কিশোর সোধি। মুম্বাইয়ের বাসিন্দা তিনি। ‘The Trumpet King’ নামে কিশোর পরিচিত সংগীতমহলে। আর ডি বর্মণের বহু গানে তাঁর প্রতিভার ঝলক আমরা পাই। কিশোর কুমার, লতা মঙ্গেশকরের মতো সংগীত শিল্পীদের সঙ্গ দিয়েছেন ট্রাম্পেটে। এবার তাঁকে দেখা যাবে সোশ্যাল মিডিয়ায়।

[ আরও পড়ুন: ‘করোনা তুমি যাও চলে’, নতুন ভোরের অপেক্ষায় একসুরে গাইলেন বাংলার সংগীতশিল্পীরা ]

online concert

কৌশিক ইভেন্টসের উদ্যোগে এই অনুষ্ঠানে প্রত্যেক দিন থাকে নতুন কণ্ঠস্বর। প্রতিদিন নতুন শিল্পী কোনও তাঁর নিজে প্রোফাইলের মাধ্যমে অনুরাগীদের গান শোনাবেন। তাঁদের উদ্দেশ্য এই পরিস্থিতিতে সংগীতের মাধ্যমে মানুষকে একজোটে বেঁধে রাখা এবং সংগীতের মাধ্যমে করোনার সঙ্গে লড়াই। 

সংগীতজগতের বিখ্যাত তারকাদের দেখা যাবে এই অনলাইন অনুষ্ঠানে। থাকবেন রূপঙ্কর বাগচি, রাঘব চট্টোপাধ্যায়, মনোময় ভট্টাচার্য, সিধু (সিদ্ধার্থ রায়), পটা, উপল, ঋদ্ধি বন্দোপাধ্যায়, গৌরব, দেব চৌধুরি, অ্যানি আহমেদ, সোমদত্তা, সুজয় ভৌমিক, অনিন্দিতা নাগ, পরাগ রায়। এছাড়াও রয়েছেন বহু নতুন সংগীতশিল্পীও। বিভিন্ন রাজ্য থেকে তো বটেই, বিভিন্ন দেশ থেকেও মানুষ গান গেয়ে পাঠাচ্ছেন। যতদিন লকডাউন চলবে, এই অনুষ্ঠানও চলবে। কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, তাঁদের উদ্যেশ্য মানুষকে গান নিয়ে বাঁচতে শেখানো এবং গানের মাধ্যমে মানুষের মনে শক্তি সঞ্চয় করা। তাই যতদিন না জয় সুনিশ্চিত হয়, এই লড়াই জারি থাকবে বলে জানিয়েছেন তাঁরা।

[ আরও পড়ুন: শততম জন্মদিনে ফাঁকা সত্যজিতের বাড়ি, সন্দীপ খুঁজছেন ‘গুপ্তধন‘ ]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে