১ অগ্রহায়ণ  ১৪২৬  সোমবার ১৮ নভেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: র‍্যাপ যেন তাঁর রক্তে মিশে রয়েছে। কিন্তু নিজের গানে কাল্পনিক সুন্দর জগতের কথা তুলে ধরেন না কলকাতার বাসিন্দা শান্থানাম শ্রীনিবাসন আইয়ার। কখনও তাঁর র‍্যাপে উঠে আসে কৃষকদের দুর্দশার কথা, কখনও বিজেপি সরকারের দুর্নীতির কথা। কিছুদিন আগে কৃষকদের দুরবস্থার কথা নিয়ে র‍্যাপ করে নেটদুনিয়া মাতিয়েছিলেন তিনি। এবার তাঁর র‍্যাপ সমালোচনা করল মোদি সরকারের।

যেন র‍্যাপার ডিভাইনের আদর্শেই অনুপ্রাণিত হয়েছেন কলকাতার শান্থানাম। র‍্যাপার রফতার বা হানি সিংয়ের রাস্তায় যে তিনি হাঁটেননি, তাঁর গানের শব্দচয়নই তার প্রমাণ। ডিভাইন যেমন তাঁর গানে দারিদ্র, দুঃখের কথা তুলে ধরেন তেমনই দেশের সমস্যার কথা নিয়ে র‍্যাপ বাঁধেন শান্থানাম। ইতিমধ্যেই তিনি রক, অলটারনেটিভ রক, হার্ড রক, প্রোটেস্ট পোয়েট্রির মতো চার ধরনের সংগীতকেই রপ্ত করেছেন। কিন্তু ভিড়ের মাঝে তিনি ব্যতিক্রমী শুধুমাত্র তাঁর গানের বিষয়বস্তুর জন্য। সম্প্রতি শান্থানামের একটি ভিডিও ছড়িয়ে পড়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। সেখানে তিনি দেশের বর্তমান সরকারের প্রবল সমালোচনা করেছেন। গানের নাম ‘আব কি বার কউন’। বোঝাই যাচ্ছে ‘আব কি বার মোদি সরকার’ স্লোগানকেই কটাক্ষ করেছেন তিনি। এমনকী তাঁর র‍্যাপে জিজ্ঞাসা করেছেন, ‘আব কি বার কউন, আপনা চোর আপনা চৌকিদার কউন?’ সরাসরি তিনি বলেছেন, এই দেশে দেশভক্তিকে বিক্রি করে ভোট চাওয়া হয়। অভিনন্দন বর্তমানকে সামনে রেখে ক্যাম্পেন সাজিয়েছে একটি নির্দিষ্ট রাজনৈতিক দল। বলা বাহুল্য, নিজের গানে তিনি কোনও দলের নাম নেননি। কিন্তু ইঙ্গিতে স্পষ্ট তাঁর আঙুল বিজেপি সরকার ও মোদির দিকে। শান্থানাম এও প্রশ্ন তুলেছেন, হাজার হাজার মানুষ মাসে মাসে বেতন পাচ্ছেন না। মূল্যবৃদ্ধি ও বেকারত্বে ক্রমশ বাড়ছে দেশে। এরপরই তাঁর কটাক্ষ, ‘এভাবে আচ্ছে দিন জারি রাখো’।

[ আরও পড়ুন: ডিজিটাল যুগে গ্রন্থাগার সংস্কারে নজর, সেজে উঠছে কৃষ্ণনগর লাইব্রেরি ]

এখানেই শেষ নয়। তিনি এও অভিযোগ তুলছেন, সিবিআই এদের ‘চামচে’, মিডিয়াও হরদম এদের প্রশংসা করে যাচ্ছে। বিবেক ওবেরয়কে দিয়ে একটি প্রোমোশনল ছবিও বানিয়েছে এই নির্দিষ্ট রাজনৈতিক দল ও ‘এক ব্যক্তি’। নির্বাচনের আগে কমিশন কীভাবে এমন ছবি মুক্তিকে সমর্থন করল, তা নিয়েও প্রশ্ন তুলেছেন তিনি। জাল ইভিএম, গুরুগ্রাম ইস্যুও নিজের গানে তুলে এনেছেন শান্থানাম। আর একেবারে শেষে রয়েছে স্পষ্টোক্তি। নরেন্দ্র মোদি, অমিত শাহ, রাহুল গান্ধী, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, যোগী আদিত্যনাথ, অরবিন্দ কেজরিওয়ালের নাম সরাসরি নিয়েছেন তিনি।

কলকাতাতেই বেড়ে ওঠা শান্থানাম শ্রীনিবাসন আইয়ারের। ছোট থেকেই গানের প্রতি ঝোঁক ছিল তাঁর। শুরু থেকে হার্ড রক টানত তাঁকে। ২০১০ সালে ‘আন্ডারগ্রাউন্ড অথরিটি’ নামে একটি ব্যান্ড তৈরি করেন শান্থানাম। তাঁর সঙ্গে ছিলেন আদিল রশিদ, সৌম্যদীপ ভট্টাচার্য এবং সৌরিশ কুমার। শহর থেকে শহরতলির বিভিন্ন প্রান্তে নানা অনুষ্ঠান করতে শুরু করেন তাঁরা। ধীরে ধীরে বেশ সাফল্য পায় ‘আন্ডারগ্রাউন্ড অথরিটি’। এই ব্যান্ডটি সবসময়ই একটু অন্যরকম বিষয় ভাবনাকে বেছে নেয়। পথচলার শুরুতে বর্তমান যুগের বাবা-মায়েদের সন্তানের কেরিয়ার নিয়ে ভাবনাচিন্তাকে পাথেয় করে র‍্যাপ করেছিল ‘আন্ডারগ্রাউন্ড অথরিটি’। যা মন ছুঁয়েছিল দর্শকদের।

[ আরও পড়ুন: কৃষকের দুর্দশার প্রতিবাদে সুর চড়িয়ে দেশবাসীর মন জয় কলকাতার র‍্যাপারের ]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং