BREAKING NEWS

১২ আশ্বিন  ১৪২৭  মঙ্গলবার ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

‘প্রতিভা থাকলে বিকাশ হবেই’, নেপোটিজম প্রসঙ্গে মুখ খুললেন আশা ভোঁসলে

Published by: Suparna Majumder |    Posted: August 11, 2020 4:14 pm|    Updated: August 11, 2020 4:52 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: সুশান্ত সিং রাজপুতের (Sushant Singh Rajput) মৃত্যুর ঘটনার পর থেকেই বলিউডে নেপোটিজম, ফেভারিটিজম শব্দের চল নতুন করে শুরু হয়েছে। শুরু করেছিলেন কঙ্গনা রানাউত। সুশান্তের মৃত্যুর পরদিনই ইনস্টাগ্রাম ভিডিওয় আলিয়া ভাট (Alia Bhatt), করণ জোহরদের (Karan Johar) ‘মুভি মাফিয়া’ তকমা দিয়ে কাঠগড়ায় দাঁড় করিয়েছিলেন। তারপর থেকে একে একে অনেক তারকাই যোগ দিয়েছেন ভারচুয়াল কোন্দলে। অনুভব সিনহা (Anubhav Sinha) বলিউড ছাড়ার কথা পর্যন্ত ঘোষণা করেছিলেন। টুইটার প্রোফাইলের সঙ্গে জুড়ে দিয়েছেন ‘Not Bollywood’ শব্দ। এবার নেপোটিজম প্রসঙ্গে নিজের মতামত জানালেন কিংবদন্তি সংগীত শিল্পী আশা ভোঁসলে (Asha Bhosle)।

[আরও পড়ুন: সুপ্রিম কোর্টে শুনানির আগেই বড় ধাক্কা! রিয়া-সহ পরিবারের তিনজনের ফোন বাজেয়াপ্ত করল ইডি]

এক ভারচুয়াল সাক্ষাৎকারে আশা ভোঁসলে বলেন, “আমার বিশ্বাস আপনার যদি প্রতিভা থাকে তার বিকাশ হবেই। রেখা (Rekha), জিতেন্দ্র (Jeetendra), রাজেশ খান্না (Rajesh Khanna), ধর্মেন্দ্রর (Dharmendra) উদাহরণ তো রয়েইছে। কঠোর পরিশ্রমই সাফল্যের চাবিকাঠি। তবে একটা বিষয় মনে রাখতে হবে অর্থ-সাফল্য পেয়েই তার স্রোতে গা ভাসিয়ে দিলে চলবে না। সবার আগে একজন ভাল মানুষ হতে হবে। তারপর বাকি সমস্ত কিছু সঠিক সময়েই পাওয়া যাবে।” নেপোটিজম প্রসঙ্গে নিজের কেরিয়ারের উদাহরণও দেন আশা ভোঁসলে। বলেন “আমার কেরিয়ারে আমি অনেক গায়ক-গায়িকাকে গাওয়ার সুযোগ দিয়েছি যাতে তাঁরা হারিয়ে না যান।”

নিজের সাক্ষাৎকারে বর্তমান প্রজন্মের সংগীত শিল্পীদের নিয়েও মন্তব্য করেন আশা ভোঁসলে। জানান, বর্তমান প্রজন্মের গান তিনি শোনেন না। এই প্রজন্মের অনেক সংগীত শিল্পীর সঙ্গে রেকর্ডিং স্টুডিওয় কাজ করেছেন আশা। সেখানে কী কী হয়, তা তিনি জানেন বলেও তির্যক মন্তব্য করেন কিংবদন্তি সঙ্গীত শিল্পী।

[আরও পড়ুন: সুশান্তের মৃত্যুর পর দিশার সঙ্গে নাম জড়িয়ে ‘কেচ্ছা’, পুলিশের দ্বারস্থ তিতিবিরক্ত সূরজ]

এদিকে নেপোটিজম প্রসঙ্গ নিয়ে মুখ খুলেছেন করিনা কাপুরও (Kareena Kapoor)। এক সাক্ষাৎকারে করিনা জানান, শুধুমাত্র নেপোটিজমের জোরে দুই দশক ধরে কেউ বলিউডে টিকে থাকতে পারে না। সমস্তকিছুই নির্ভর করে দর্শকদের গ্রহণযোগ্যতার উপর। দর্শক চাইলে তারকার অস্তিত্ব থাকে, আর দর্শক না চাইলে তারকার কোনও অস্তিত্ব থাকে না। তা নেপোকিডই হোক আর বহিরাগত।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement