১৮ চৈত্র  ১৪২৬  বুধবার ১ এপ্রিল ২০২০ 

Advertisement

‘এটা দিল্লি না সিরিয়া?’, রাজধানীর জ্বলন্ত পরিস্থিতি নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন বলিউড তারকারা

Published by: Sandipta Bhanja |    Posted: February 25, 2020 3:49 pm|    Updated: February 25, 2020 4:08 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: সংশোধিত নাগরিকত্ব আইনের প্রতিবাদে ফের জ্বলছে রাজধানী। সোমবার থেকেই কার্যত দিল্লির বিভিন্ন প্রান্তে বিক্ষিপ্ত অশান্তি। যার জেরে এখনও পর্যন্ত প্রাণ হারিয়েছেন ৮ জন। মঙ্গলবার সকালেও উত্তর-পূর্ব দিল্লির একাধিক জায়গায় পাথর বৃষ্টি ও আগুন লাগানোর ঘটনা ঘটেছে। লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে আহতের সংখ্যাও। মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সফরকালে এহেন ঘটনায় রীতিমতো উদ্বিগ্ন প্রশাসন। জরুরী বৈঠক করেছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহও। রণক্ষেত্র রাজধানীর পরিস্থিতি নিয়ে ফের সরব বলিমহল। এটা কোন হিংসার প্রতিফলন? আবারও কি মেরুকরণের রাজনীতিতে ধরাশায়ী মানবতা? প্রশ্ন তুলে দিল্লির জলন্ত পরিস্থিতি নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন বলিউড তারকারা।

সোশ্যাল মিডিয়ায় এখন ট্রেন্ডিং #Delhiburning and #Delhiviolence হ্যাশট্যাগ। AAP প্রশাসনের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন স্বরা ভাস্কর এবং অনুরাগ কাশ্যপ। যার জেরে অরবিন্দ কেজরিওয়াল স্বরা ভাস্করকে ‘আনফলো’ করেছেন সোশ্যাল মিডিয়ায়। কোথা থেকে আসছে এই ঘৃণা? মাথায় ফেজ টুপি, লম্বা দাঁড়ি দেখেই ‘আতঙ্কবাদী’ বলে চিহ্নিত হয়ে যাচ্ছেন! তাহলে আমি জানতে চাইব হাতে লাঠি ধরা এই লোকগুলো কারা? গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্ন তুলেছেন অভিনেত্রী গওহর খান।

প্রসঙ্গত, এর আগে একাধিকবার অভিনেতা রণবীর শোরে বিজেপিপন্থী মনোভাবাপন্নের ইঙ্গিত দিয়েছেন। এবারও তাঁর গলায় সেরকমই সুর শোনা গেল। দিল্লির জলন্ত পরিস্থিতি নিয়ে উদ্বিগ্ন হওয়ার চেয়ে ‘ট্রাম্প সফর’ই তাঁর কাছে বেশি গুরুত্বপূর্ণ বলে মনে হয়েছে। রণবীর শোরের কথায়, “ট্রাম্পের সফরকালেই রাজধানী দিল্লি অগ্নিগর্ভ! যেখানে আজকের দিনে ট্রাম্পের ভারত সফর নিয়ে উল্লাসে মেতে ওঠা উচিত, সেখানে দিল্লি জ্বলছে।” অভিনেত্রী এষা গুপ্তা দিল্লির বর্তমান পরিস্থিতিকে সিরিয়ার সঙ্গে তুলনা করেছেন।

[আরও পড়ুন: ‘LGBTQ সম্প্রদায়ের অধিকার আদায়ে ট্রাম্পের মন্তব্যই আশার আলো’, বললেন আয়ুষ্মান ]

উল্লেখ্য, শনিবার রাত থেকে জাফরাবাদে নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন, জাতীয় নাগরিকপঞ্জি (এনআরসি) ও জাতীয় জনসংখ্যা পঞ্জিকরণ (এনপিআর)-এর বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করছিলেন শ দু’য়েক মহিলা। রবিবার সেখানে উপস্থিত হন বিজেপি নেতা কপিল মিশ্র। পুলিশকে বলেন, “ট্রাম্প দেশ ছাড়ার আগে রাস্তা খালি করান। এরপর আমাদের রাস্তায় নামতে হবে। তখন কিছু বলতে পারবেন না।” এরপর থেকেই চড়তে থাকে উত্তেজনার পারদ। 

[আরও পড়ুন: ১০ বছরে দশজনের রহস্যমৃত্যু, নিষিদ্ধ ফিল্মসিটিতে ‘ইন্ডিয়ান ২’র শুটিং ঘিরে বিতর্ক ]

Advertisement

Advertisement

Advertisement