BREAKING NEWS

৯ আশ্বিন  ১৪২৭  সোমবার ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

কেন একাধিক রাজ্যে নিষিদ্ধ ‘পদ্মাবত’? সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ প্রযোজকরা

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: January 17, 2018 6:06 am|    Updated: January 17, 2018 10:34 am

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: নাম পরিবর্তন করা হয়েছে। বহু টালবাহানার পর শংসাপত্র দিয়েছে সেন্ট্রাল বোর্ড অফ ফিল্ম সার্টিফিকেশন। যার উপর ছবির মুক্তির ভাগ্য নির্ধারিত করা হয়েছিল দেশের সর্বোচ্চ আদালতের পক্ষ থেকেই। তারপরেও কেন ‘পদ্মাবত’কে একাধিক রাজ্যে নিষিদ্ধ ঘোষণা করা হয়েছে? এই প্রশ্ন নিয়ে এবার সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হলেন ছবির প্রযোজকরা।

 

[এবার হরিয়ানায় নিষিদ্ধ ‘পদ্মাবত’, ছবির প্রচারে না দীপিকা-রণবীরদের]

ইতিহাস নির্ভর ছবি তৈরি করার হ্যাপা পরিচালক-প্রযোজক সঞ্জয় লীলা বনশালি বেশ ভাল ভাবেই টের পেয়েছেন। মরুশহরে শুটিংয়ে সময় থেকেই কর্ণি সেনার তাণ্ডব চলছিল। ছবির পোস্টার ও ট্রেলার রিলিজের পর তা আরও বড় আকার ধারণ করে। কর্ণি সেনার মতোই আরও কট্টরপন্থী সংগঠন ছবির বিরুদ্ধে সরব হতে থাকে। বিজেপির একাধিক সাংসদের মুখেও হুমকি শোনা গিয়েছে। যদিও প্রযোজনা সংস্থার পক্ষ থেকে বারবার বলা হয়েছিল এ ছবিতে রাজপুতানার সম্মান ও গৌরবের গাথাই তুলে ধরা হয়েছে। এমন কোনও দৃশ্য ছবিতে নেই যাতে তাঁদের সম্মানহানি হয়। তা সত্ত্বেও বিক্ষোভ অব্যাহত থাকে। পরিচালকের মাথা কেটে নেওয়ার হুমকি দেওয়া হয়। নায়িকা দীপিকার নাক কেটে তাঁকে পঙ্গু করারও কথা বলা হয়। দীপিকার মাথার দাম ১০ কোটি টাকা ধার্য করা হয়। যদিও এত বিক্ষোভের মধ্যেও নিজের সহকর্মীদের পাশে পেয়েছিলেন সঞ্জয়। টলিউড-বলিউড ছবির স্বাধীনতার দাবিকে ব্ল্যাকআউট পালন করেছিল। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও তৎকালীন ‘পদ্মাবতী’র পাশে দাঁড়ান।

[মোদির জন্য ‘পোখরান’-এর স্পেশ্যাল স্ক্রিনিংয়ের আয়োজন প্রযোজক জনের]

শেষে সুপ্রিম কোর্টকে হস্তক্ষেপ করতে হয়। ছবির মুক্তির বিষয়টি দেখার দায়িত্ব প্রসূন জোশীর সিবিএফসির উপরই ন্যাস্ত করে শীর্ষ আদালত। বিশেষ কমিটি গঠন করা হয়। যাতে মেওয়ারের রাজ পরিবারের প্রতিনিধি ও ইতিহাসবিদরাও ছিলেন। এর মধ্যেই আবার সংসদীয় কমিটির কাছেও নিজের ছবি নিয়ে জবাবদিহি করে আসেন পরিচালক। ডিসক্লেমারের ত্রুটি কাটিয়ে বহু টালবাহানার পর শেষে শংসাপত্র জোটে ছবির ভাগ্যে। ‘পদ্মাবতী’ নাম পালটে হয় ‘পদ্মাবত’। ‘ঘুমর’ গানে দীপিকার মধ্যপ্রদেশও ঢেকে ফেলতে হয় পরিচালককে। ২৫ তারিখ ছবির মুক্তির দিনও ঘোষণা হয়ে গিয়েছে। এত কিছুর পরও ছবিকে নিষিদ্ধ করা হয়েছে গুজরাট, রাজস্থান, মধ্যপ্রদেশ ও হরিয়ানার মতো রাজ্যে। সেন্সর যেখানে অনুমতি দিয়েছে, সেখানে কেন এমনটা করা হয়েছে? এই প্রশ্ন নিয়ে এবার সর্বোচ্চ আদালতের দরবারে হাজির ছবির প্রযোজকরা। আর এই প্রশ্ন মুক্তির আগেও ‘পদ্মাবত’-এর বিতর্কের আবহ জিইয়ে রাখল। তবে আরও একটা ছোট্ট আশঙ্কাও থেকে গেল। এ ছবি আদৌ ২৫ তারিখ মুক্তি পাবে তো?

[মুক্তি আসন্ন, সেন্সর বোর্ডে এখনও ছাড়পত্র পায়নি ‘প্যাডম্যান’]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement