২ কার্তিক  ১৪২৬  রবিবার ২০ অক্টোবর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: শুরু হল ঋতুপর্ণা সেনগুপ্তর পরবর্তী ছবির শুটিং। লোকেশন কবিগুরু ভক্তদের পীঠস্থান, অর্থাৎ শান্তিনিকেতন। ছবির নাম ‘দত্তা’। শরৎচন্দ্র চট্টোপাধ্যায় রচিত ‘দত্তা’ নামক উপন্যাসটিকে ভিত্তি করেই তৈরি হচ্ছে এই ছবি। পরিচালকের আসনে রয়েছেন নির্মল চক্রবর্তী। শরৎচন্দ্রের এই উপন্যাস এবছর ১০০-এ পা রাখল। আর সেই রচনাশৈলীর শতবর্ষ উদযাপন উপলক্ষ্যেই তৈরি করা এ ছবি। সদ্য ‘দত্তা’র শুটিং শুরু হল শান্তিনিকেতনে। ছবির বেশ কিছু দৃশ্যের শুট হবে এখানে। ‘দত্তা’র মূল চরিত্র বিজয়ার ভূমিকায় অভিনয় করছেন অভিনেত্রী ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত।

[আরও পড়ুন:  ‘পিএম নরেন্দ্র মোদি’ দেখে রিপোর্ট দিন, কমিশনকে পরামর্শ সুপ্রিম কোর্টের]

ঋতুপর্ণা ছাড়াও এছবিতে রয়েছেন ফিরদৌস আহমেদ, জয় সেনগুপ্ত এবং বিশ্বজিৎ চক্রবর্তী। ছবি প্রসঙ্গে ঋতুপর্ণা বলেছেন, “আমি যেই ধরনের চরিত্রগুলো করতে চাই ‘দত্তা’ ছবিতে আমার চরিত্রটা ঠিক সেরকমই। আমার খুব পছন্দের চরিত্রগুলোর মধ্যে একটা এটা। তাছাড়া, বিজয়ার চরিত্রটা এর আগে সুচিত্রা সেন করেছিলেন, তাই এটার জন্য আমার অন্যরকম একটা অনুভূতিও কাজ করছে।”

প্রসঙ্গত, ১৯৭৬ সালে শরৎচন্দ্রের এই ‘দত্তা’ উপন্যাসের ভিত্তিতে সিনেমা করেছিলেন পরিচালক অজয় কর। সেই ছবিতে বিজয়ার চরিত্রে অভিনয় করেছিলেন সুচিত্রা সেন। যেই চরিত্রে এবার দেখা যাবে ঋতুপর্ণাকে। এছাড়াও ছিলেন সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায় এবং শমিত ভঞ্জ। নরেন এবং বিলাসের চরিত্রে দেখা যাবে যথাক্রমে জয় সেনগুপ্ত এবং ফিরদৌস আহমেদকে। রাসবিহারীর চরিত্রে থাকছেন বিশ্বজিৎ চক্রবর্তী। এছাড়াও ছবির একটি গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে দেবলীনা কুমার রয়েছেন। পরিচালক নির্মল চক্রবর্তী নাকি অনেকদিন ধরেই চাইছিলেন সাহিত্যধর্মী কোনও ছবি করতে। আর এবার দত্তা’র ১০০ বছরও হল। সেই সময়কার প্রেক্ষাপটে বিজয়ার চরিত্রটি বেশ বলিষ্ঠ, প্রতিবাদী এবং নারীচরিত্র হিসেবে চমকপ্রদ, তাই এই ভূমিকাটা যে ঋতুপর্ণার বেশ মনে ধরেছে, এও জানিয়েছেন অভিনেত্রী।

[আরও পড়ুন:  বৃদ্ধ বয়সে কেমন লাগবে সলমনকে? দেখাল ‘ভারত’-এর পোস্টার]

‘দত্তা’ দিয়েই পরিচালক হিসেবে হাতেখড়ি হতে চলেছে নির্মল চক্রবর্তীর। ছবি প্রসঙ্গে পরিচালক নির্মল জানিয়েছেন, একজন হিন্দু যুবার সঙ্গে ব্রাহ্ম মহিলার সম্পর্কের গল্প বলবে এই ছবি। উপন্যাসের চরিত্রগুলো সব একইরকম রেখেছি। কিন্তু আমার ছবিতে সংলাপের হেরফের হয়েছে মাত্র। সাহিত্যধর্মী ছবি করার জন্য অন্যদের থেকে আমার শরৎচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়ের সৃষ্টি আমাকে অনেক বেশি আকৃষ্ট করেছে।

 

 

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং