৪ মাঘ  ১৪২৬  শনিবার ১৮ জানুয়ারি ২০২০ 

Menu Logo ফিরে দেখা ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

৪ মাঘ  ১৪২৬  শনিবার ১৮ জানুয়ারি ২০২০ 

BREAKING NEWS

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ‘ইন্ডিয়ান আইডল’-এ ফের ২০১৮ সালের ঘটনার পুনরাবৃত্তি ঘটল। বিচারকের আসন ছাড়লেন অনু মালিক। এবারও সেই #MeToo কাণ্ডের জেরে। সোনা মহাপাত্র বলছেন এটা তো মহিলাদের জন্য ‘প্রতীকী জয়’।

২০১৮ সালে গায়িকা সোনা মহাপাত্রের তোলা যৌন হেনস্তার অভিযোগের পর সুরকার-গায়ক অনু মালিকের বিরুদ্ধে অনেকেই সুর চড়িয়েছিলেন। সোনার মতে যাঁরা সায় দিয়েছিলেন তাঁদের মধ্যে ছিলেন শ্বেতা পণ্ডিত, নেহা ভাসিনের মতো বিশিষ্ট গায়িকারাও। তোলপাড় হয়ে যায় সোশ্যাল মিডিয়া। যার জেরে ইন্ডিয়ান আইডলের চ্যানেল কর্তৃপক্ষকে নোটিস পাঠানো হয় জাতীয় মহিলা কমিশনের তরফে। সেই একই কাণ্ডের পুনরাবৃত্তি হল অনু মালিকের বিরুদ্ধে করা সোনার নয়া পোস্ট ভাইরাল হওয়ার পর। কারণ, এত কাণ্ডের পর একাদশতম মরশুমেও অনুকে বিচারকের আসনে বসানো হয়েছে। যার বিরোধিতা করেছেন গায়িকা সোনা।  

সম্প্রতি ‘ইন্ডিয়ান আইডল’-এর একাদশতম মরশুম শুরু হওয়ার পর অনু মালিক আত্মপক্ষ সমর্থনে সোশ্যাল মিডিয়ায় একটি পোস্ট করেছিলেন। অনু লিখেছিলেন, “একবছর ধরে যাবতীয় মিথ্যা অভিযোগ চুপ করে শুনে যাচ্ছিলাম। তবে এখন মনে হচ্ছে চুপ করে ছিলাম বলেই লোকে নিজের মতো করে যা ইচ্ছে তাই ভেবে নিয়েছে। দুই মেয়ের বাবা আমি। স্বপ্নেও কোনও দিন এরকম ঘৃণ্য কাজ করার কথা ভাবতে পারব না আমি।” এই পোস্টের জবাবে ফের গর্জে ওঠেন গায়িকা সোনা মহাপাত্র। একটা লম্বা পোস্ট করে সোনা লিখলেন, “আপনি দয়া করে ‘সেক্স রিহ্যাবে’ যান। আর সন্তানদের বলুন আপনার পরিবারের জন্য টাকা কামাতে। আপনি বরং বিরতি নিয়ে যৌন নেশামুক্তি কেন্দ্রে কোনও মনস্তত্ত্ববিদের পরামর্শ নিন।” 

[আরও পড়ুন: ‘হোম সিস্টেম’ অটোতে মজেছেন টুইঙ্কল, অভাবনীয় উদ্যোগকে বাহবা অভিনেত্রীর ]

এখানেই থেমে থাকেননি গায়িকা। সোনা মহাপাত্রর কথায়, “১৩০ কোটি মানুষের বাস এদেশে। তাঁদের সবাইকেই যে রিয়েলিটি শোয়ের বিচারক হয়ে সংসার চালাতে হবে এমন কোনও কথা নেই! বিশেষত যে উঠতি প্রতিভারা আসছে, তাদের নিরাপত্তা নষ্ট করে তো নয়ই। জাতীয় টিভি চ্যানেলে আসার কোনও অধিকার আপনার নেই।” আর এই পোস্টের পরই মাথা চাড়া দিয়ে ওঠে পুরনো বিতর্ক। যার জেরে ‘ইন্ডিয়ান আইডল’-এর দশম মরসুমের পর একাদশতম মরসুম থেকেও বিচারকের আসন ছাড়তে বাধ্য হন অনু মালিক। সোনার কথায়, “আমি অনেকদিন থেকেই লড়ছিলাম। অনুর সরে যাওয়া মানে সেসব মহিলাদের জয়, যাঁরা ওঁর যৌন হেনস্তার শিকার।”

এখন প্রশ্ন, অনু মালিক নিজেই শো থেকে বেরিয়ে গেলেন নাকি চ্যানেল কর্তৃপক্ষ থেকে তাঁকে বের করে দেওয়া হল? সূত্রের খবর, সংশ্লিষ্ট রিয়ালিটি শো তথা চ্যানেলের সুনামের কথা মাথায় রেখেই কর্তৃপক্ষের তরফে অনুকে বিচারকের আসন ছাড়তে বলেছেন।

[আরও পড়ুন:গোলাপি টেস্টে বর্ণাঢ্য অনুষ্ঠানে গলা মেলাবেন দু’বাংলার শিল্পী জিৎ-রুনা ]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং