২৫ অগ্রহায়ণ  ১৪২৬  বৃহস্পতিবার ১২ ডিসেম্বর ২০১৯ 

BREAKING NEWS

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

২৫ অগ্রহায়ণ  ১৪২৬  বৃহস্পতিবার ১২ ডিসেম্বর ২০১৯ 

BREAKING NEWS

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: নারীদের অপমান করার মাশুল দিতে হল দীপক কালালকে। রেডিও মির্চির একটি শোয়ে গিয়ে রীতিমতো ঘাড়ধাক্কা খেতে হল তাঁকে। কেন? মেয়েদের এমন কী বলেছিলেন দীপক কালাল?

সেলিব্রিটি হলেও দীপক কালাল সবসময় বিতর্কের কেন্দ্রবিন্দুতে থাকেন। গত বছর রাখি সাওয়ন্তকে নিয়ে বিতর্কে জড়িয়েছিলেন তিনি। রাখি নিজে জানিয়েছিলেন, বিয়ে করতে চলেছেন। গত বছরের ডিসেম্বর মাসে বিয়ের হওয়ার কথা ছিল তাঁদের। ইনস্টাগ্রামে নিজের বিয়ের কার্ডের ছবি পোস্ট করে রাখি জানিয়েছিলেন, দীপক কালালের সঙ্গে নতুন জীবন শুরু করতে চলেছেন। কিন্তু শেষ পর্যন্ত বিয়ে আর হয়নি। কোনও কারণে সেই বিয়েও ভেস্তে যায়। রাখি এও জানিয়ে দেন, দীপকের সঙ্গে কোনও সম্পর্ক নেই তাঁর। সেই সময় রাখিও যেমন ঢাক পিটিয়ে বিয়ের কথা ঘোষণা করে ফাঁপরে পড়েছিলেন, তেমনই ফেঁসেছিলেন দীপক কালালও। কিন্তু এবার রেডিও মির্চির অফিসে গিয়ে যে কাণ্ডটি ঘটালেন দীপক, তাতে ক্ষুব্ধ তো বটেই, ছিছিক্কার করছেন নেটিজেনরা।

[ আরও পড়ুন: জুনিয়র আর্টিস্টের যৌন লালসার শিকার, অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়লেন টেলি-অভিনেত্রী! ]

ওই শোয়ে সঞ্চালিকা দীপককে প্রশ্ন করেন, কিছুদিন আগে দীপকের সঙ্গে একটি ঘটনা ঘটেছিল। মেট্রোয় একটি মেয়ে তাঁর সঙ্গে সেলফি তুলতে চেয়েছিলেন। দীপক তাঁকে আটকে দেন আর তার পরই মেয়েটি দীপককে কষিয়ে থাপ্পড় মারে। সঞ্চালিকা যখনই প্রশ্নটি জিজ্ঞাসা করেন, প্রায় সঙ্গে সঙ্গেই দীপক তাঁকে থামিয়ে দেন। বলেন, মেয়েদের হাত তৈরি হয়েছে রান্নাঘরে রুটি সেঁকার জন্য। পুরুষের উপর হাত তোলার জন্য নয়। বলেন, “মেয়েরা আমাদের মতো পুরুষের চাকর।”

দীপকের এই বক্তব্যের পরই চটে যান সঞ্চালিকা। তিনি সোজা স্টুডিওর দরজা খুলে বের করে দেন দীপককে। এরপরই ঘটে আরও একটি ঘটনা। স্টুডিওর সামনে দাঁড়িয়ে দেহরক্ষীদের ডাকতে থাকেন দীপক। তখনই স্টুডিওর দরজা বন্ধ হয়ে যায়। ধাক্কা খান তিনি। একে কিছুক্ষণ আগে ঘাড়ধাক্কা খেয়েছেন। তার উপর স্টুডিওর দরজার ধাক্কা খেয়ে আরও চটে যান সেলিব্রিটি। বলেন, “কোনও স্টপার নেই। জানি না এ কেমন দরজা!” এতে আবার অপমানিত হন তিনি। সঞ্চালিকা বলেন, “যে কোনও বড় স্টুডিওয় গেলে দেখতে পাবেন। দরজা এমনই হয়। কিন্তু আপনি তো কোনও বড় স্টুডিওয় যাননি। কারণ আপনার তেমন দিন কখনও আসেনি।” এরপর অফিসের নিরাপত্তারক্ষীরা এসে দীপককে বাইরে যেতে বলেন। বারবার তিনি দেহরক্ষীদের কথা বললেও কেউ এগিয়ে আসেননি। ফের একবার ঘাড়ধাক্কা খেতে হয় দীপককে।

ঘটনার ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়তে বেশি দেরি হয়নি। আর এখন তো ভাইরাল হয়ে গিয়েছে সেটি। দীপকের এমন কাণ্ডের ফলে খুব চটেছেন নেটিজেনরা। তাঁদের মতে, কোনও সভ্য দেশে মেয়েদের এমন অপমান করা হয় না। দীপক যা করলেন, তা খুব লজ্জাজনক। প্রত্যেকেই ওই সঞ্চালিকার কাজের প্রশংসা করেছেন ও তাঁর সাহসিকতাকে বাহবা দিয়েছেন।

[ আরও পড়ুন: ছত্রপতি শিবাজিকে ‘অপমান’ করায় কেবিসি বয়কটের ডাক, ক্ষমা চাইলেন অমিতাভ ]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং