৭ মাঘ  ১৪২৬  মঙ্গলবার ২১ জানুয়ারি ২০২০ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: দেশের প্রথম তথ্যপ্রযুক্তি কোম্পানি ইনফোসিসের প্রতিষ্ঠাতা এনআর নারায়ণ মূর্তি এবং সুধা মূর্তির প্রেমকাহিনি নিয়ে ছবি তৈরি করতে চলেছেন পরিচালক অশ্বিনী আইয়ার তিওয়ারি, একথা অবশ্য অনেক আগেই প্রকাশ্যে এসেছে। এবার কেবিসির মঞ্চে নিজের জীবনের কিছু অজানা দিক তুলে ধরলেন সুধা মূর্তি।

কলেজে ৫৯৯ জন ছাত্র থাকলেও তিনিই একমাত্র ছাত্রী ছিলেন। জনপ্রিয় টেলিভিশন রিয়ালিটি শো ‘কৌন বনেগা ক্রোড়পতি’-র সিজন ফিনালে’তে এসে সেই কথাই ফাঁস করলেন লেখক, সমাজসেবী এবং ইনফোসিস ফাউন্ডেশনের চেয়ারপার্সন সুধা মূর্তি। সুধার কলেজ জীবনের সেই স্মৃতিচারণার ঝলক সম্প্রতি চ্যানেলের পক্ষ থেকে ইনস্টাগ্রামে শেয়ার করা হয়েছিল। ইতিমধ্যেই যে পোস্টে ৫৮,০০০-এরও বেশি ‘ভিউজ’ এবং ততোধিক ‘কমেন্ট’ পড়ে গিয়েছে। পাশাপাশি টিভিতে গোটা পর্বটি দেখার জন‌্য লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে দর্শকদের উৎসাহও। আগামী ২৯ নভেম্বর, শুক্রবার রাত ন’টায় সোনি চ‌্যানেলে বহু প্রতীক্ষিত এই পর্ব সম্প্রচারিত হতে চলেছে। 

তা, নিজের কলেজ জীবন সম্পর্কে আর কী কী জানিয়েছেন সুধা মূর্তি? মূর্তির কথায়, ‘‘কর্নাটকের হুবলিতে বিভিবি কলেজ অফ ইঞ্জিনিয়ারিং অ‌্যান্ড টেকনোলজিতে পড়তাম আমি। কলেজে ৫৯৯ জন ছাত্র থাকলেও ছাত্রী ছিলাম আমি একাই। কাজেই সেখানে পড়ার জন‌্য কলেজের অধ‌্যক্ষ আমার কাছে তিনটি শর্ত রেখেছিলেন। এক, কলেজে শুধুমাত্র শাড়ি পরে যেতে হবে। দুই, কলেজ ক‌্যান্টিনে যাওয়া চলবে না এবং তিন, কোনও ছেলের সঙ্গে কথা বলা চলবে না। প্রথম শর্তে আমি রাজি হই। ঘটনাচক্রে, কলেজ ক্যান্টিনের খাবার খুব খারাপ ছিল, এতটাই বিস্বাদ যে, আমি এমনিতেও ওই খাবার মুখে তুলতে পারতাম না। তাই ওই ক্যান্টিনমুখো এমনিতেও হতাম না। তাই দ্বিতীয় শর্ত মানা বা না-মানা, একই ছিল। এবার পালা ছিল তৃতীয় শর্তের। কলেজের প্রথম এক বছর আমি কোনও ছেলের সঙ্গে কথা বলিনি। দ্বিতীয় বছর, কলেজের সব ছেলেরা জানতে পারল, আমি প্রথম হয়েছি। তখন ওরাই উজিয়ে আমার সঙ্গে কথা বলতে চলে এল।’’

টিজারে দেখা গিয়েছে, মূর্তির কথা শেষ হওয়া মাত্রই সেটে উপস্থিত দর্শকরা হাসি এবং হাততালিতে ফেটে পড়ছেন। প্রশংসা করতে ভুলছেন না কেবিসির সঞ্চালক অমিতাভ বচ্চনও। ৫ মিনিটের সেই টিজারে মূর্তিকে ইনফোসিস ফাউন্ডেশনের কথাও উল্লেখ করতে দেখা গিয়েছে। ৬৯ বছরের মূর্তি জানিয়েছেন, ইনফোসিস ফাউন্ডেশনের হয়ে কীভাবে তিনি দেবদাসী সম্প্রদায়ের জন‌্য নানাবিধ সংস্কারমূলক কাজ করেছেন, কীভাবেই বা ১৬,০০০ শৌচালয় গড়ে তুলেছেন প্রভৃতি। টিজারটি দেখে বহু নেটিজেনই মূর্তির উদ্যোগকে প্রশংসায় ভরিয়ে দিয়েছেন। কেউ লিখেছেন, “সুধা মূর্তি কর্নাটকের গর্ব”। আবার কেউ বা লিখেছেন, “কে বিশ্বাস করবে, এঁর সম্পত্তির মূল‌্য অন্তত ১.২ বিলিয়ন! কী অসম্ভব বিনয়ী এই মহিলা!’’  

[আরও পড়ুন: ‘নিজের সুখের জন্য মেয়েকেও বিক্রি করতে পারেন’, কদর্য আক্রমণ অভিনেত্রী কামিয়াকে]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং