৩০ কার্তিক  ১৪২৬  রবিবার ১৭ নভেম্বর ২০১৯ 

BREAKING NEWS

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

৩০ কার্তিক  ১৪২৬  রবিবার ১৭ নভেম্বর ২০১৯ 

BREAKING NEWS

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: প্রিয় সেলিব্রিটির সঙ্গে সাক্ষাৎ অনেকের কাছেই স্বপ্ন সফল হওয়ার মতো ব্যাপার। অনেকেই আবার সেই সাক্ষতের সময় এমন কিছু করে বসেন যাতে অস্বস্তিতে পড়েন সেই সেলেব। কিন্তু তাই বলে চুমু! ‘ইন্ডিয়ান আইডল’-এর মঞ্চে এমনই একটা ঘটনা ঘটল নেহা কক্করের সঙ্গে।

শুরু হতে চলেছে ‘ইন্ডিয়ান আইডল’-এর নয়া মরশুম। তার আগে শোয়ের তিন বিচারক অনু মালিক, নেহা কক্কর এবং বিশাল দাদলানির উপস্থিতিতে অডিশন চলছিল। অডিশনেই এক ব্যক্তি অনেক উপহার নিয়ে মঞ্চে প্রবেশ করেন। রাজস্থানি পোশাকে ছিলেন তিনি। মাথায় পরেছিলেন পাগড়ি। নেহাকে তিনি জিজ্ঞাসা করেন, ‘চিনতে পারছেন?’ প্রথমে ধন্দে পড়ে গেলেও পরে ওই ব্যক্তিকে চিনতে পারেন নেহা। সঙ্গে সঙ্গে উপহারগুলি নেন ও আলিঙ্গন করেন। তখনই ঘটে যায় ঘটনাটি। নেহার গালে চুম্বন করেন ওই ব্যক্তি। গোটা ঘটনায় স্তম্ভিত হয়ে যান বিচারকের আসনে বসে থাকা বিশাল ভরদ্বাজ ও অনু মালিক। সঞ্চালক আদিত্য নারায়ণও বেকুব বনে যান। নেহা ততক্ষণে মুখ ঢেকেছেন। বোঝাই যাচ্ছিল বেশ অস্বস্তিতে পড়ে গিয়েছেন তিনি।

[ আরও পড়ুন: কেবিসি’র তৃতীয় ক্রোড়পতি পুরুলিয়ার গৌতম, পুরস্কারের টাকা দান করবেন দুঃস্থ পড়ুয়াদের ]

এই ঘটনায় ইতিমধ্যেই তৈরি হয়েছে বিতর্ক। অনেকে ঘটনাটিকে যৌন হেনস্তা বলেও দাবি করছেন। নেটদুনিয়ায় এই নিয়ে চর্চা শুরু হয়ে গিয়েছে। কেউ কেউ তো লিখেছেন, “কারওর অনুমতি না নিয়ে তাকে চুমু খাওয়া শারীরিক হেনস্তার মধ্যেই পড়ে।” কেউ আবার লিখেছেন, “পরের বার থেকে নেহার আরও সচেতন হওয়া উচিত। নাহলে এমন ঘটনা আবার ঘটতে পারে।”

কিছুদিন আগে বয়ফ্রেন্ডের সঙ্গে সম্পর্ক ভাঙার পর খবরে এসেছিলেন নেহা। ইনস্টাগ্রামে নেহা লিখেছিলেন, “যখন আমি এটা লিখছি, তখন আমি ভাল অবস্থায় নেই৷ শারীরিকভাবে নয়, মানসিকভাবেও নয়৷ কিন্তু আমাকে মুখ খুলতেই হবে! ওরা ভাবতেই চায় না যে, আমি কারও মেয়ে, বোন হতে পারি৷ সারা জীবন ধরে আমি কঠোর পরিশ্রম করেছি৷ চেষ্টা করেছি যাতে পরিবারের সদস্যদের এবং পরিচিতদের গর্বিত করার৷ কেন ওরা এই ধরনের গুজব ছড়ায়? একবারও ভাবে না, এই ধরনের গুজব একজনের পরিবারের প্রতি কতটা বাজে প্রভাব ফেলতে পারে৷ সেলেবরাও মানুষ! নির্দয় হওয়া বন্ধ করুন৷ একজনের ব্যক্তিগত জীবন ও চরিত্র নিয়ে আলোচনা বন্ধ করুন৷ এমন কিছু করবেন না, যাতে ওই ব্যক্তি মানসিক অবসাদে ভুগতে থাকে৷ যদি আপনি কারও বাবা বা ভাই হন, তবে নিজের মেয়ে বা বোনের সঙ্গে এমনটা করতে পারবেন? দয়া করে কাউকে এতটাও অবসাদের দিকে ঠেলে দেবেন না যাতে, সে নিজেকে শেষ করে দেওয়ার কথা ভাবে!”

[ আরও পড়ুন: সম্পর্কে তিক্ততা, বিয়ে ভাঙছে তারকাজুটি ভাস্বর-নবমিতার ]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং