২০ অগ্রহায়ণ  ১৪২৮  মঙ্গলবার ৭ ডিসেম্বর ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

পর্দায় ঠাকরেকে জীবন্ত করে তুললেন নওয়াজ, ট্রেলার মুক্তির দিনই শুরু বিতর্ক

Published by: Sulaya Singha |    Posted: December 26, 2018 6:31 pm|    Updated: December 26, 2018 6:39 pm

Thackeray movie trailer released

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ব্যক্তিগত জীবনটাই ছিল ‘লার্জার দ্যান লাইফ’। জীবনের শেষদিন পর্যন্ত বেঁচেছেন বাঘের মতো। দম্ভের সঙ্গে। তাই রিল লাইফে সেভাবেই ধরা দিতে চলেছেন বালাসাহেব ঠাকরে। ট্রেলার মুক্তি পেতেই তা স্পষ্ট হয়ে গেল।

বুধবারই মুক্তি পেল ‘ঠাকরে’র ট্রেলার। যেখানে বালাসাহেব ঠাকরের মতোই তাঁর চরিত্রে অভিনয় করে সক্কলকে পিছনে ফেলে দিলেন নওয়াজউদ্দিন সিদ্দিকি। অভিনয় যে শুধুই পেশা নয়, বরং বহু সাধনার ফল, অভ্যন্তরীণ দক্ষতা, তা আরও একবার প্রমাণ করে দিলেন এই অভিনেতা। শুধু ট্রেলারেই তাঁর যত প্রশংসা করা যায়, তা কম হবে। গেরুয়া বসন, গলায় রুদ্রাক্ষের মালা, কাঁধে চাদর। আঙুল তুলে নির্দেশ দিচ্ছেন জনতার উদ্দেশে। এ দৃশ্য নস্ট্যালজিক করে তুলছে দেশবাসীকে। শিব সেনার প্রতিষ্ঠাতার প্রতিটি অঙ্গ-ভঙ্গি, কথাবার্তা, চলনে যেন জীবন্ত হয়ে উঠেছেন আসল মানুষটিই। বাকি সকলেই তাঁর পাশে ফ্যাকাসে। আগামী ২৫ জানুয়ারি ছবি মুক্তির পরই যে অভিনয়ের জন্য অন্য মাত্রায় প্রশংসা কুড়োবেন নওয়াজ, তা বলার অপেক্ষা রাখে না।

[আগামী পুজোয় বড়পর্দায় ‘কাকাবাবুর প্রত্যাবর্তন’!]

রাজ্যসভার সাংসদ তথা শিব সেনার মুখপাত্র সঞ্জয় রাউত নিজে এ ছবির চিত্রনাট্য লিখছেন। ছবির প্রযোজকও তিনি। বাল ঠাকরে জনগণের নেতা ছিলেন। তাঁকে একদম কাছ থেকে দেখার সুযোগ পেয়েছেন রাউত। গোটা মুম্বইকে তিনি দেশপ্রেমের বাঁধনে বেঁধেছিলেন। বিভিন্ন ইস্যুতে সংগঠিত করেছিলেন প্রত্যেককে। দূরদর্শিতায় তাঁর জুড়ি মেলা ভার। কার্টুনিস্ট থেকে জননেতা হয়ে ওঠার এ কাহিনি তাই দর্শকদের অবশ্যই জানা উচিত। এমনটাই মনে হয়েছে তাঁর। সেই কারণেই এ কাহিনি পর্দায় ফুটিয়ে তুলতে চেয়েছিলেন। ঠাকরে হিসেবে তাঁর প্রথম পছন্দ ছিলেন নওয়াজই। আর সেই বিশ্বাসের পূর্ণ মর্যাদা দিয়েছেন নওয়াজ। উত্তপ্ত মুম্বই থেকে ভারত-পাকিস্তান ম্যাচ নিয়ে শিব সেনার আপত্তি, এ গল্পে সব ঘটনার উল্লেখই থাকছে।

তবে ট্রেলার মুক্তির দিনই বিতর্কে জড়াল অভিজিৎ পানসের ছবি। ট্রেলার মুক্তির কয়েক ঘণ্টা আগেই ছবির দুটি দৃশ্য নিয়ে আপত্তি তোলে সেন্সর বোর্ড (সিবিএফসি)। ছবির একটি দৃশ্যে বাবরি মসজিদ ভাঙার উল্লেখ রয়েছে। যে ইস্যু এখন বিচারাধীন। তাই সেন্সর বোর্ড চায় না, ছবিতে এমন কোনও বিতর্কিত ইস্যু থাকুক। আরও একটি দৃশ্য কেটে বাদ দিতে চায় বোর্ড। যেখানে নওয়াজ ওরফে বাল ঠাকরে মুম্বইয়ে বসবাসকারী দক্ষিণ ভারতীয়দের ‘ইয়ুন্ডু- গুন্ডু’ বলে উল্লেখ করেছেন। তবে রাউত সাফ জানিয়ে দিয়েছেন, কোনও ঘটনাই বাদ দেওয়া হবে না। যে দাপটের সঙ্গে জীবন কাটিয়েছেন বাল ঠাকরে, তার পুরোটাই দর্শকদের সামনে তুলে ধরা হবে। পরে অবশ্য ছবির মারাঠি ভার্সান থেকে ওই দুই দৃশ্য সরিয়ে ফেলতে রাজি হয়েছেন ছবির নির্মাতারা।

ভারতের রাজনীতির মানচিত্রে জন্ম নেওয়া এক জননেতার অজানা জীবনকাহিনির পাশাপাশি নওয়াজের তুখোড় অভিনয়ের অপেক্ষায় রইলেন সিনেপ্রেমীরা।

[দীপিকার সঙ্গে ছবির সুযোগ হাতছাড়া রাজকুমারের! কেন?]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে