Advertisement
Advertisement
ধান

বুলবুলের প্রভাবে ধান জমিতে জল, মাথায় হাত কৃষকদের

দুশ্চিন্তায় দিন কাটছে বাগনানের ফুলচাষিদেরও।

Paddy cultivation may be damaged in severe cyclone Bulbul
Published by: Sayani Sen
  • Posted:November 10, 2019 10:08 am
  • Updated:November 10, 2019 3:15 pm

সন্দীপ মজুমদার, উলুবেড়িয়া: মাসখানেক আগেই বন্যায় প্লাবিত হয়েছিল উদয়নারায়ণপুর। এবার বুলবুলের প্রভাবে বৃষ্টি। এই অবস্থায় দিশাহারা সেখানকার চাষিরা। ধান, আলু থেকে শুরু করে সবজি চাষে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতির আশঙ্কায় তাঁরা। একই আশঙ্কা প্রশাসনেরও। চিন্তিত বাগনানের ফুলচাষিরাও।

বন্যার ফলে উদয়নারায়ণপুরে ও আমতা ২ নম্বর ব্লকের খান দশেক গ্রাম পঞ্চায়েতে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়োছিল ধান-সহ নানা সবজি চাষে। সেই সব এলাকায় অনেকে ভেবেছিলেন রবিশস্য চাষ করে কিছুটা হলেও ক্ষত মেটাবেন। কিন্তু বুলবুল তাঁদের সেই আশায় অনেকটাই জল ঢেলে দিতে পারে বলে শঙ্কা চাষিদের। কারণ শনিবার সকাল থেকেই বৃষ্টির জেরে জমিতে জল দাঁড়িয়ে গিয়েছে। ইতিমধ্যে আলু বসানোর কাজ শুরু করে দিয়েছেন চাষিরা। আর মাসখানেকের মধ্যেই আলু সিংহভাগ জমিতে বসানোর কাজ প্রায় শেষ হয়ে যাওয়ার কথা। এই অবস্থায় সংকটে কৃষকরা।

Advertisement

[আরও পড়ুন: ভাঙল কাঁচাবাড়ি-উড়ল স্টেশনের চাল, বুলবুলের তাণ্ডবে বিপর্যস্ত সুন্দরবন]

আলুচাষিরা জানিয়েছেন, যে আলু জমিতে বসানো হয়ে গিয়েছে সেগুলোর বড় অংশ পচে যাওয়ার সম্ভাবনা প্রবল। আর এই জমা জল শুকোতে আরও দিন ১৫ লেগে যাবে। ততক্ষণে আলু বসানোর সময় অনেকটা পিছিয়ে যাবে। ব্লক কৃষি কর্মকর্তা গৌতম সামুই বলেন, “এখানে বুলবুলের প্রভাব সত্যি চিন্তার। দেখা যাক আগামী কয়েকদিন কেমন আবহাওয়া থাকে।” ক্ষতির কথা বলেছেন উদয়নারায়ণপুরের বিধায়ক সমীর পাঁজাও। জমিতে জল জমে যাওয়ার পাশাপাশি ঝোড়ো হাওয়ায় পাকা ধান জমিতে লুটিয়ে পড়েছে। তার জেরে মাথায় হাত কৃষকদের।

Advertisement

Sangbad Pratidin News App

খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ